প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] মাদক কারবারীদের টার্গেট সকল স্থরের শিক্ষার্থীরা

আবু হাসাদ: [২] রাজশাহীর পুঠিয়ায় থানা-পুলিশের শীর্ষ তালিকায় রয়েছেন অর্ধশতাধিক শীর্ষ মাদককারবারী। তাঁরা হাইস্কুল ও কলেজের শিক্ষার্থীদের প্রথম টার্গেট করছেন।

[৩] নতুন ক্রেতা বৃদ্ধি করতে তাঁরা বিভিন্ন মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের কাছে মাদকদ্রব্য পৌঁছে দিচ্ছেন। আইনি তদারকি না থাকায় তাঁরা প্রকাশ্যে এলাকায় ঘুরে বেড়াচ্ছেন। এতে অনেক শিক্ষার্থী এখন মাদকাসক্ত হয়ে পড়েছে বলে দাবি করছেন বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকেরা।

[৪] থানা সূত্রে জানা গেছে, গত কয়েক বছরে এই এলাকায় মাদকের কারবার কয়েক গুণ বেড়ে গেছে। সেই তথ্যমতে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ শীর্ষ মাদক কারবারীদের একটি তালিকা তৈরির নির্দেশ দেয়। নির্দেশ মোতাবেক গত ২০২০ সালের শেষের দিকে এলাকার অর্ধশতাধিক মাদক ব্যবসায়ীর একটি তালিকা তৈরি করা হয়। ওই তালিকায় শীর্ষে রয়েছে চিহ্নিত ২৭ জনের নাম। তাঁদের মধ্যে একাধিক জনপ্রতিনিধি, রাজনৈতিক নেতা ও ছাত্রনেতাদের নামও তালিকায় উঠে এসেছে।

[৫] জাহিদ হোসেন নামের একজন শিক্ষার্থীর অভিভাবক বলেন, আমার ছেলে সদর এলাকার একটি কলেজে পড়ে। এলাকার চিহ্নিত দুজন মাদককারবারী ওই কলেজে প্রতিদিন আসা-যাওয়া করেন। তাঁরা সেখানে বিভিন্ন শিক্ষার্থীর সঙ্গে সখ্য গড়ে তুলছেন। আর ওই শিক্ষার্থীরা এখন মাদকাসক্ত। ছেলেকে চোখে চোখে রাখতে প্রায় প্রতিদিন আমিও তার সঙ্গে কলেজে আসি।

[৬] নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বলেন, মাদক ব্যবসায় এখন রাজনৈতিক নেতা ও জনপ্রতিনিধিরা জড়িয়ে পড়েছেন। আর বিশেষ সুবিধা নিয়ে তাঁদের নিয়ন্ত্রণ করছেন একজন শীর্ষ রাজনৈতিক নেতা। ওই নেতা স্থানীয় পুলিশ প্রশাসনসহ বিভিন্ন দপ্তরে নিয়মিত যোগাযোগ রক্ষা করেন। আর মাঝেমধ্যে দু-একজন ছোটখাটো ব্যবসায়ীকে পুলিশ আটক করলেও শীর্ষ কারবারীরা থাকছেন ধরাছোঁয়ার বাইরে। বিষয়গুলো নিয়ে উপজেলা পরিষদের মাসিক আইনশৃঙ্খলা সভায় অভিযোগ তুলেও কোনো সুফল আসছে না।

[৭] এ ব্যাপারে উপজেলা চেয়ারম্যান জি এম হিরা বাচ্চু বলেন, একসময় পাড়া-মহল্লায় কোনো মাদকসেবী ছিল না। এখন মাদকসেবী প্রায় ঘরে ঘরে রয়েছে। বখাটেরা কখনো কারও বন্ধু হয় না। প্রতিটি পরিবারের উচিত তাঁদের সন্তানদের সব সময় নজরে রাখা।

[৮] পুঠিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সোহরাওয়ার্দী হোসেন বলেন, মাদকের সঙ্গে আমরা কোনো আপস করি না। তবে আমি এই থানায় আসার আগে শীর্ষ মাদককারবারীদের একটি তালিকা হয়েছে। আমরা তালিকার সঙ্গে এলাকায় কিছু নতুন মাদক বিক্রেতার তথ্যও পাচ্ছি। এরই মধ্যে অনেককে আটক করেছি। বাকিদের আটকে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

সর্বাধিক পঠিত