প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] স্ট্রোকে আক্রান্তদের ২৩ শতাংশই জাঙ্ক ফুডে আসক্ত

শিমুল মাহমুদ: [২] স্ট্রোকে আক্রান্ত রোগীদের ১৭ শতাংশই মানসিক চাপের শিকার। আর স্ট্রোকে আক্রান্ত রোগীদের মধ্যে ১৯ শতাংশেরই ভুঁড়ি আছে বলে জানিয়েছে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের (ঢামেক) নিউরোসার্জারি বিভাগের চিকিৎসকরা।

[৩] আগামী ২৯ অক্টোবর বিশ্ব স্ট্রোক দিবসকে সামনে রেখে বুধবার ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল (ঢামেক) এক সেমিনারের আয়োজন করে। সেমিনারে মুল প্রবন্ধে পাঠ করেন নিউরোসার্জারি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. শফিকুল ইসলাম।

[৪] লিখিত বক্তব্যে শফিকুল ইসলাম বলেন, দেশে প্রতি চারজনে একজন স্ট্রোক আক্রান্ত হন। খাদ্যাভ্যাসের অনিয়ম স্ট্রোকের অন্যতম কারণ হিসেবেও আমরা দেখি। পরিসংখ্যান বলছে, স্ট্রোকে আক্রান্তদের ২৩ শতাংশই জাঙ্ক ফুডে আসক্ত। এছাড়াও কোলেস্টেরল এইচডিএল কম থাকলে স্ট্রোকের ঝুঁকি বাড়ে প্রায় ২৭ শতাংশ। আমরা দেখে থাকি, প্রতি ১০০ জন স্ট্রোকে আক্রান্ত রোগীর মধ্যে ৩৬ জনই অনিয়ন্ত্রিত জীবনযাপনে অভ্যস্ত।

[৫] তিনি আরও বলেন, স্ট্রোকে আক্রান্ত হলে বা লক্ষণ দেখা মাত্রই ৩ থেকে ৪ ঘণ্টার মধ্যে রোগীকে হাসপাতালে নিয়ে আসতে হবে। তাহলেই আমরা চিকিৎসার মাধ্যমে তাকে স্বাভাবিক জীবন ফিরিয়ে দিতে চেষ্টা করতে পারব। বিশ্বব্যাপী ৮ কোটি মানুষ স্ট্রোকে আক্রান্ত হওয়ার পর সুস্থ হয়েছেন।

[৬] অনুষ্ঠানে অন্য বক্তারা বলেন, মস্তিষ্কে রক্ত চলাচল কমে গেলে ও অক্সিজেনের ঘাটতি দেখা দিলে মস্তিষ্কের কোষগুলো মারা যেতে শুরু করে। একে স্ট্রোক বলা হয়। স্ট্রোক দুই প্রকার। একটিকে বলে ইসকেমিক স্ট্রোক। এক্ষেত্রে মস্তিষ্কে রক্ত চলাচল কমে যায়। সাধারণত রক্তনালীর ভেতর জমাট বাঁধা রক্তপিণ্ড এ সমস্যা করে থাকে। মোট স্ট্রোকের ৮০ শতাংশই এ ধরনের স্ট্রোক। অপরটি হলো হেমোরেজিক স্ট্রোক। মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণ হলে এটি দেখা যায়।

[৭] অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মেডিকেল কলেজের প্রিন্সিপাল অধ্যাপক ডা. মো. টিটো মিয়া। বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. নাজমুল হক, ভাইস প্রিন্সিপাল অধ্যাপক ডা. শফিকুল আলম চৌধুরী প্রমুখ।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত