প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মাহবুব চৌধুরী: সত্যিকার ধার্মিক ও সেক্যুলার সবাইকেই দাঙ্গাবিরোধী প্রতিরোধ একসঙ্গেই গড়তে হবে

মাহবুব চৌধুরী
মোগলে আজম সম্রাট আকবর এবং বোম্বে বলিউড শাহেন শাহ- (মোহাম্মদ ইউসুফ খান) দিলীপ কুমারের মতো কিং শাহরুখ খানও পুরোদস্তুর একজন অসম্প্রদায়িক মানুষ। ঘরে বাইরে অসাম্প্রদায়িক এবং উদার। হিন্দুসহ সব সম্প্রদায়ের মানুষের পালা-পার্বণে স্বতঃস্ফ‚র্তভাবেই অংশগ্রহণ করে থাকেন। তার বন্ধুবান্ধব অধিকাংশই হিন্দু। ভালোবেসে বিয়েও করেছেন গৌরিকে। অসম্প্রদায়িকতার কোনো ঘাটতি নেই। যেমন ছিলো না কংগ্রেস ম্যান এহসান জাফরীর। ২০০২ সালের গুজরাট দাঙ্গায়- তাকে দাঙ্গাকারীরা ঘরে আটকে আগুনে পুড়িয়ে মারে। তিনি ভারতীয় কংগ্রেস থেকে নির্বাচিত লোকসভার সদস্য ছিলেন। জনপ্রিয় তুখোড় এক রাজনীতিক। তার বন্ধুবান্ধবদের অধিকাংশও ছিলো হিন্দু। তিনিও তার হিন্দু বন্ধুদের যাবতীয় পালা-পার্বণে স্বতঃস্ফ‚র্তভাবে অংশগ্রহণ করতেন। কিন্তু দাঙ্গার সময় তার এই অসম্প্রদায়িক সার্টিফিকেট তাকে বাঁচাতে পারেনি। অন্য লোকসভার সদস্যদের নিরাপত্তার অভাব হলো না- হলো শুধু তার। এখানে ভারত সরকার পরাজিত হয়েছিলো দাঙ্গাকারীদের কাছে। পরাজিত এহসান জাফরীই শুধু নয়।

শাহরুখও সেকুলার বা অসম্প্রদায়িক হওয়ার কম চেষ্টা করছেন না। বিয়ে করেছেন হিন্দু পরিবারে, ছেলেমেয়েদের নাম রেখেছেন ধর্মনিরপেক্ষতার পরিচয় দিয়ে। কোনো দিকেই কমতি রাখেননি। তার পরও শত শত ড্রাগ ডিলার নাকের সামনে ঘুরে বেড়ালেও তার ছেলেকে নিয়ে অথবা সালমান খানকে নিয়ে টানা হেঁছড়াটা একটুখানি অতিরিক্তই হয়ে থাকে। কেন? অবশ্য আন্ডার দা টেবিল শাহরুখ খান বিজেপির পক্ষে একটু ঝুলে পড়লে ল্যাবরেটরি পরীক্ষায় তার ছেলের ড্রাগগুলো ট্যালকম পাউডার হয়ে যেতে পারে। সেটিও এক সম্ভাবনা। সব ধর্ম, বর্ণে সামাজিকগোষ্ঠীতেই ভালো মানুষ আছেন। শত সহস্র আছেন। বাংলাদেশে আছেন এবং ইন্ডিয়াতেও আছেন। তারা পরাজিত হচ্ছেন তবে আশাও জাগিয়ে রাখছেন। শুধু সেক্যুলার হলেই সব হয়ে গেলো, কিংবা সেক্যুলার হতেই হবে- এটা কোনো কথা নয়। সত্যিকার ধার্মিক ও সেক্যুলার সবাইকেই দাঙ্গাবিরোধী প্রতিরোধ এক সঙ্গেই গড়তে হবে। লড়তে হবে। এটাই মূল কথা, এটাই শেষ কথা। Mahbub Chowdhury-র ফেসবুক ওয়ালে লেখাটি পড়ুন।

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত