প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

পলাতক সাক্ষীর সঙ্গে আরিয়ানের নতুন ভিডিও ফাঁস

বিনোদন ডেস্ক: নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরো (এনসিবি)-র দপ্তরে আরিয়ান খানের পাশে বসা পলাতক সাক্ষী কিরণ পি গোসাভি। নিজের ফোনে আরিয়ানকে অন্যকারও সঙ্গে কথা বলালেন তিনি। সম্প্রতি এমন একটি ভিডিও প্রকাশ্যে এসেছে।

অথচ কিরণের সহযোগী প্রভাকর সেইল দাবি করেছেন, তদন্তকারী সংস্থা তাকে ফাঁকা পঞ্চনামায় সই করিয়েছে। এনসিবি কর্মকর্তা সমীর ওয়াংখেড়ে তাকে বিপদে ফেলার ভয়ও দেখিয়েছেন।

নিজেকে কিরণের দেহরক্ষী বলে পরিচয় দিয়ে তিনি দাবি করেন, শাহরুখপুত্রের বিরুদ্ধে মুখ খুলতে ১৮ কোটি রুপির চু্ক্তি হয়েছে বলে শুনেছেন। বাংলাদেশি টাকায় যা ২০ কোটিরও বেশি। এ বক্তব্য প্রকাশ হতেই তোলপাড় চলছে।

এদিকে নতুন ভিডিও প্রকাশ্যে আসতেই শিব সেনার সাংসদ সঞ্জয় রাউত প্রতিবাদ জানিয়েছেন। ভিডিওটি টুইট করে তিনি লিখেছেন, ‘আরিয়ানকাণ্ডে এনসিবি প্রভাকর সেইলকে ফাঁকা পঞ্চনামায় সই করিয়েছে শুনে চমকে উঠেছি। আরও দাবি উঠেছে যে, সাক্ষ্যের বিনিময়ে বহুল পরিমাণ টাকার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে বলেছিলেন, মহারাষ্ট্রের ভাবমূর্তি নষ্ট করার উদ্দেশ্যে এ সমস্ত কিছু ঘটানো হচ্ছে। এখন তো মনে হচ্ছে, সেই মন্তব্যই সত্যি হতে চলেছে।

এর আগে আরিয়ানকে গ্রেপ্তারের ঘণ্টাখানেকের মধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ছবি ছড়িয়ে পড়ে। সেখানে দেখা যায়, আরিয়ানের সঙ্গে এক ব্যক্তি সেলফি তুলছেন। সেই ব্যক্তির নাম কিরণ পি গোসাভি। প্রথমে মনে করা হয়েছিল কিরণ এনসিবির কর্মকর্তা। সে সময় অনেকেই ওই সেলফি নিয়ে প্রশ্ন তোলেন।

পরবর্তীতে এনসিবি বিবৃতি দিয়ে জানায়, কিরণ তাদের কেউ নন। শুধু তাই নয়, কিরণকে এই মামলার অন্যতম সাক্ষী হিসেবে তুলে ধরে তার খোঁজ চালায় এনসিবি। কিরণ ওই ঘটনার পর থেকেই পলাতক।

প্রসঙ্গত, মুম্বাইয়ের একটি প্রমোদতরীর পার্টিতে মাদক সেবনের অভিযোগে গ্রেপ্তার হয়েছেন বলিউড বাদশা শাহরুখ খানের ছেলে আরিয়ান খান। নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরোর (এনসিবি) কর্মকর্তাদের দীর্ঘ ছয় ঘণ্টার জিজ্ঞাসাবাদে মাদক গ্রহণের কথা স্বীকার করেছেন আরিয়ান। তাকে নারকোটিক ড্রাগস অ্যান্ড সাইকোট্রপিক সাবস্ট্যান্সেস (এনডিপিএস) আইনের আওতায় গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গ্রেপ্তারি পরোয়ানায় লেখা রয়েছে- ৩০ গ্রাম কোকেন, ২১ গ্রাম চরস, ২২টি এমডিএমএ বড়ি এবং নগদ ১ লাখ ৩৩ হাজার টাকা পাওয়া গেছে।

মাদক মামলায় গ্রেপ্তার আরিয়ানের বার বার জামিন আবেদন করেও মুক্তি মিলছে না। মুম্বাইয়ের আর্থার রোড জেলের কুঠুরিতে দিন কাটছে তার। আরিয়ান খানের পরিচিতি এখন ‘কয়েদি নম্বর ৯৫৬’। এদিকে ছেলেকে মুক্ত করতে চেষ্টার কমতি রাখছে না শাহরুখ-গৌরী। আগামী মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) মুম্বাই হাইকোর্টে সেই মামলার চতুর্থ দফার শুনানি হবে। এদিকে জামিনের আবেদন খারিজ হওয়ায় মানসিকভাবে ভেঙে পড়েছেন শাহরুখপুত্র।জেলের জীবনযাত্রার সঙ্গে নিজেকে মানিয়ে নিতে পারছেন না আরিয়ান খান। কারও সঙ্গে কথাও বলছেন না তিনি। বই পড়েই সময় কাটাচ্ছেন।

সর্বাধিক পঠিত