প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] অস্ট্রেলিয়াকে সহজে জিততে দেয়নি দক্ষিণ আফ্রিকা

স্পোর্টস ডেস্ক :[২]দক্ষিণ আফ্রিকাকে ১১৮ রানে থামানোর পর যত সহজে জেতার আশা করেছিল অস্ট্রেলিয়া, ততই কঠিন হয়েছে। ১১৯ রান করতে গিয়েই ঘাম ছুটে গেছে অ্যারন ফিঞ্চের দলের। শেষ ওভারে গিয়ে ৫ উইকেটের জয় পেয়েছে তারা।

[৩]১১৯ রানের লক্ষ্য। আবু ধাবিতে এই ছোট লক্ষ্যে ছুটতে গিয়ে সুবিধা করতে পারছে না অস্ট্রেলিয়াও। দক্ষিণ আফ্রিকাকে ৯ উইকেটে ১১৮ রানে থামানোর পর পাওয়ার প্লেতেই তারা ২ উইকেট হারায় ২৮ রান করে। সতীর্থদের আস্থার প্রতিদান দিতে পারেননি ডেভিড ওয়ার্নার। ৪ রান করে কাগিসো রাবাদার শিকার তিনি। তার আগে আনরিখ নর্টিয়ের বলে শূন্য রানে প্রথম ওভারেই বিদায় নেন অ্যারন ফিঞ্চ। মিচেল মার্শ ১১ রানে আউট হয়েছেন। তাতে ১০ ওভারে ৩ উইকেটে ৫১ রান অস্ট্রেলিয়ার।

[৪]টি-টোয়েন্টিতে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে দক্ষিণ আফ্রিকার ব্যাটিং দৈন্যতা নতুন কিছু নয়। তাদের দুটি সর্বনিম্ন স্কোরই (৮৯ ও ৯৬) অজিদের বিপক্ষে। এবার এই ফরম্যাটের বিশ্বকাপেও নিজেদের সর্বনিম্ন ইনিংসে গুটিয়ে যাওয়ার লজ্জা পেতে বসেছিল প্রোটিয়ারা। শেষ পর্যন্ত তা হয়নি। ৯ উইকেটে ১১৮ রানে থামে তারা।

[৫]বিশ্বকাপে দক্ষিণ আফ্রিকার সর্বনিম্ন স্কোর ভারতের বিপক্ষে, ২০০৭ সালে ডারবানে ভারতের বিপক্ষে ৯ উইকেটে ১১৬ রান করেছিল।

[৬]জশ হ্যাজেলউডের দুর্দান্ত বোলিংয়ে পাওয়ার প্লেতে ৩ উইকেট হারিয়ে ২৯ রান করেছিল দক্ষিণ আফ্রিকা। টস হেরে ফিল্ডিং নিয়ে যে অস্ট্রেলিয়া ভুল করেনি, তা প্রমাণ করেছে পুরো ইনিংস জুড়ে।
২৩ রানে ৩ উইকেট হারানোর ধাক্কা দক্ষিণ আফ্রিকা সামলে নিতে পারেনি। উইকেট বাঁচাতে গিয়ে রানের গতি কমে যায়। ১০ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে স্কোর ৫৯ রান। এইডেন মার্করাম হাল ধরেছিলেন। কিন্তু ১৪তম ওভারে জোড়া উইকেট হারিয়ে একশ রানের মধ্যেই গুটিয়ে যাওয়ার শঙ্কায় পড়েছিল।

[৭]তা হয়নি। টুকটাক ব্যাটিংয়ে একশ ছাড়ায় প্রোটিয়ারা। দল তিন অঙ্কের ঘরে পৌঁছানোর ২ রান আগেই মাঠ ছাড়েন মার্করাম। ৩৬ বলে ইনিংস সেরা ৪০ রান করেন তিনি।

[৮]কাগিসো রাবাদার ব্যাটে দল বিশ্বকাপের সর্বনিম্ন স্কোরের লজ্জা এড়ায়। ২৩ বলে দলের দ্বিতীয় সেরা ২০ রানে অপরাজিত ছিলেন তিনি। এছাড়া দুই অঙ্কের ঘরে পৌঁছান টেম্বা বাভুমা (১২), হেনরিখ ক্লাসেন (১৩) ও ডেভিড মিলার (১৬)।

[৯]দুটি করে উইকেট নিয়েছেন মিচেল স্টার্ক, হ্যাজেলউড ও অ্যাডাম জাম্পা। সম্পাদনা : রাহুল রাজ।

সর্বাধিক পঠিত