প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] অনলাইন রিটার্ন জমায় আবারো দেশসেরা কুমিল্লা

মো. আকতারুজ্জামান: [২] অনলাইন রিটার্ন জমায় আবারো শীর্ষে কুমিল্লা কমিশনারেট। এ নিয়ে তের বার শ্রেষ্ঠত্ব অর্জন করলো সিইভিসি টিম। সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশের অঙ্গীকার বাস্তবায়নে মাঠে সক্রিয় কাস্টমস এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেট (সিইভিসি) কুমিল্লা টিম। অক্টোবরে প্রথম হ্যাট্রিক, ২০২১ এর জানুয়ারিতে ডাবল হ্যাট্রিক, এপ্রিলে ট্রিপল হ্যাট্রিক। প্রতিনিয়ত নিজেদের ছাড়িয়ে যাবার প্রতিযোগিতায় কুমিল্লা। আগস্ট-২১ মাসে অনলাইন রিটার্ন দাখিলের হার ছিল ৯৫.৮৩ শতাংশ। বর্তমানে সেপ্টেম্বর-২১ মাসে অনলাইন রিটার্ন দাখিলের হার বেড়ে দাঁড়ায় ৯৭.০৩ শতাংশ। জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সামগ্রিক অনলাইন রিটার্ন জমার হার প্রায় ৫০ শতাংশ।

[২] চলতি সেপ্টেম্বর মাসে এই কমিশনারেটে অনলাইনে রিটার্ন জমা হয়েছে ৯৭.০৩ শতাংশ। মাঠ পর্যায়ে কর্মকর্তাদের সক্রিয়তার মাধ্যমেই এই অর্জন সম্ভব হয়েছে। চেয়ারম্যান মহোদয়ের নির্দেশ মতো দেশকে ডিজিটাল করার প্রত্যয়ে সরকারের পক্ষ থেকে বিভিন্ন কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে। জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের অধীন অনলাইনে ভ্যাট নিবন্ধন ও রিটার্ন দাখিল অন্যতম ডিজিটাল কর্মকাণ্ড।

[৩] মাঠ পর্যায়ে কর্মকর্তাদের সক্রিয়তার মাধ্যমেই এই অর্জন সম্ভব হয়েছে। উপর্যুপরি তের বার অনলাইন ভ্যাট রিটার্ন জমায় সাফল্যকে চমক হিসেবে দেখছে এনবিআর। জানা যায়, মাত্র এক তৃতীয়াাংশ জনবল নিয়ে কমিশনার এ সাফল্য অর্জন করেছে। কথায় নয়, কাজে প্রমাণ করে দেখিয়েছে কুমিল্লা কাস্টমস ও ভ্যাট কমিশনারেট। কিভাবে অনলাইন রিটার্ন দাখিল সফল করা যায়!

[৪] মাসের প্রথম তারিখ হতে কমিশনার মহোদয়ের কক্ষে মিটিং করে কর্মকর্তাদের মধ্যে কাজ ভাগ করে দেয়া হয়। অনেক কর্মকর্তা স্বেচ্ছায় গত ১৫ ও ১৬ তারিখ শুক্রবার ও শনিবারের সাপ্তহিক ছুটি বাতিল করে অনলাইন রিটার্ন দাখিলের কাজ অগ্রাধিকার দেন। লক্ষ্য, কুমিল্লা ভ্যাট টিমকে তের বারের এর মত চ্যাম্পিয়ন করা। ভ্যাট অনলাইন প্রকল্পের ইমেইল হতে তথ্য পাওয়া যায়। অন্যান্য কমিশনারেটগুলোও নানা বৈরিতার মধ্যে কাজ করতে হয় টিমকে। অনলাইনে ভ্যাট রিটার্ন জমাদানের সময় সার্ভারে ক্রটি, বিদ্যুৎ ভোগান্তি। এবার শেষ সময়ে সার্ভার সমস্যা করায় অনলাইন রিটার্ন দাখিল নিশ্চিত করতে কর্মকর্তাদের হিমশিমে পড়তে হয়েছে।

[৫] আগস্ট ২১ মাসে ড্রাপসে ৬২ রিটার্ন জমা থাকায় রিটার্ন দাখিলের হার ছিল ৯৫.৮৩ শতাংশ। আগস্ট মাসে ড্রাপসের বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে কাজ করায় সেপ্টেম্বর ২১ মাসের রিটার্ন দাখিলের হার দাঁড়ায় ৯৭.০৩ শতাংশ। সাফল্যের পিছনে রয়েছে ডিজিটাল বাংলাদেশ রূপায়নের অঙ্গীকারে সক্রিয় থাকা কাস্টমস, এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেট কুমিল্লার (সিইভিসি) কর্মবিলাসী টিম। আর এ টিমকে ক্যারিশমেটিক নেতৃত্ব দিয়ে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার মূল কারিগর হলেন কুমিল্লা কাস্টমস, এক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেটের কমিশনার মোহাম্মদ বেলাল হোসাইন চৌধুরী। রিটার্ন দাখিলের হার ক্রমান্বয়ে বাড়ছে।

[৬] সহকারী কমিশনার মোহাম্মদ ছালাউদ্দিন রিপন বলেন, অনলাইন ভ্যাট রিটার্ন দাখিলে কুমিল্লা ভ্যাট কমিশনারেট সর্বমোট তেরবার প্রথম। চারটি সার্কেল শতভাগ রিটার্ন দাখিল করতে সক্ষম হয়েছে। আশা করছি পর্যায়ক্রমে ষোলটি শতভাগ রিটার্ন অনলাইনে করতে সক্ষম হবে।

[৭] এ বিষয়ে কুমিল্লা কমিশনারেটের অতিরিক্ত কমিশনার মো. আবদুল হাকিম বলেন, রিটার্ন দাখিলের প্রথম স্থান অর্জনের পথ কুসুমাস্তীর্ণ ছিল না। একটা ভালো টিমওয়ার্কের মাধ্যমে এ অর্জন। কর্মকর্তারা পরিশ্রম করেছেন। উদ্যম নিয়ে কর্মকর্তা ও কর্মচারিরা রাজস্ব আদায় ও রিটার্ন অনলাইন দাখিলের কাজ করে যাচ্ছেন।

[৮] মোহাম্মদ বেলাল হোসাইন চৌধুরী বলেন, সাফল্য অর্জনের চেয়ে ধরে রাখা কঠিন। কুমিল্লার কর্মপ্রবণ এনবিআরের সম্মানও উচ্চকিত করেছে। করোনাকালে কুমিল্লা টিমের জন্য বিষয়টি খুবই চ্যালেঞ্জের ছিল। আগেও বলেছে দলবদ্ধ প্রচেষ্টা প্রতিযোগিতা এ অভূতপূর্ব সাফল্যের মূল নিয়ামক এবং দেশ প্রেমে উদ্ধুদ্ধ কর্মকর্তাদের পরিশ্রম ও সাফল্যের পিপাসা কুমিল্লা কমিশনারেটকে রাজস্ব প্রবৃদ্ধি ও রিটার্ন দাখিলে উপর্যুপরি সাফল্য এনে দিয়েছে।

[৯] তিনি আরও বলেন, সক্ষম কর্মকর্তাদের বাছাই করে জটিলতর কাজে নিয়োগ, মনিটরিং উদ্বুদ্ধকরণ এক্ষেত্রে গতি বৃদ্ধিতে সহায়ক হয়েছে। সর্বোপরি কর্মস্থলে দেশাত্মবোধ ও সেবার মনোভাব থাকা জরুরি। সারা বাংলাদেশের কর্মকর্তাদের এরকম কাজের ধারা অব্যাহত থাকা উচিত। দক্ষ, সক্ষম, উপযুক্ত ও রাজস্ব বৃদ্ধিতে সকল কর্মকর্তাদের আমরা পুরস্কৃত করি। ভবিষ্যতেও তাদের পুরস্কৃত করা হবে। জনবলের সীমাবদ্ধতার চ্যালেঞ্জ নিয়ে কাজ করে গেছে সিইভিসি টিম। ধরে রেখেছে ধারাবাহিক সাফল্য। সম্পাদনা : ভিকটর রোজারিও

সর্বাধিক পঠিত