প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] ফলহীন প্রতিশ্রুতি নয়, আমাদের প্রয়োজন জলবায়ু সমৃদ্ধি পরিকল্পনা: শেখ হাসিনা

আসিফুজ্জামান পৃথিল: [২] ফিনানশিয়াল টাইমসে লেখা এক কলামে জলবায়ু পরিবর্তনজনিত সমস্যা নিয়ে কথা বলেছেন প্রধানমন্ত্রী।

[৩] তিনি বলেন, বাংলাদেশ শূন্য কার্বন ভবিষ্যতকে সামনে রেখে বিনিয়োগ শুরু করেছে। তিনি বৈেরন, বিশ্বকে অবশ্যই কপ-২৬ এ বাংলাদেশের মতো উদ্যোগ গ্রহণের প্রতিশ্রুতি দিতে হবে।

[৪] বাংলাদেশের মতো দেশগুলোকে নিরাপদে রাখতে যতো দ্রুত কার্বন নি:সরণ কমাতে হবে, অন্য দেশগুলো তা করছে না।

[৫] উত্তরবঙ্গের কোটি কোটি মানুষ হিমালয়ের আইসফিল্ডে জমাট বরফ থেকে আসা পানির উপর নির্ভরশীল। উষ্ণ আবহাওয়া এসব মাঠকে গলিয়ে ফেলছে।

[৬] আর দক্ষিণে সাগরের উচ্চাতা বৃদ্ধির কারণে বিপুল পরিমাণ এলাকা ডুবে যাচ্ছে।

[৭] বাংলাদেশি কার্বন নি:সরণের কারণে বৈশ্বিক তাপমাত্রার খুব সামান্যই বাড়ে। তবুও বাংলাদেশ এটুকুও কমিয়ে ফেলার প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। শূণ্য কার্বনের দিকে এগুলো নতুন কর্মক্ষেত্র তৈরি হবে, যা অর্থনীতির জন্যও ভালো।

[৮] এ বছর সরকার ১০টি কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ প্রকল্প বাতিল করে। তবে এটি আসলে ছোট পদক্ষেপ।

[৯] বাংলাদেশ বিশ্বের প্রথম দেশ যারা জাতীয় জলবায়ু সমৃদ্ধি পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে। এর আওতায় সক্ষমতা বুদ্ধি, অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি, নতুন কাজ সৃষ্টি এবং নাগরিকদের জন্য নতুন সুযোগ তৈরি করা হবে।

[১০] এই দশকের শেষ নাগাদ দেশের চাহিদার ৩০ শতাংশ বিদ্যুৎ পাওয়া যাবে নবায়ণযোগ্য উৎস থেকে।

[১১] বাংলাদেশ বিশ্বাস করে, উপক’লজুড়ে উইন্ড ফার্ম নির্মাণ করলে ম্যানগ্রোভ রক্ষার পাশাপাশি উপক’ল সরে যাওয়া ঠেকানো যাবে। রক্ষা পাওয়া যাবে ঝড়-জলোচ্ছোস থেকে।

[১২] নিজেদের তৈরি এই পরিকল্পনা বিশ্বের সব দেশকে বিনা পয়সায় দিয়ে সহায়তা করতে রাজি আছে বাংলাদেশ। তবে শর্ত একটাই বিশ্বকে অবশ্যই প্যারিস জলবায়ু চুক্তি মেনে চলতে হবে।

[১৩] বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে ৫০ বছর আগে স্বাধীনতা লাভ করে বাংলাদেশ। তাই নতুন এই পরিকল্পনার নাম রাখা হয়েছে মুজিব পরিকল্পনা। বাংলাদেশ বিশ্বাস করে মুজিব পরিকল্পনাই হবে সারা বিশ্বের মুক্তিদাতা।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত