প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] খুলনায় পূজার নিরাপত্তায় প্রশাসন কঠোর

শরীফা খাতুন : [২] মন্দির ও পূজামন্ডপগুলো মুখরিত ঢাকের বাদ্য আর উলুধ্বনি-শঙ্খের আওয়াজে। শারদীয় দুর্গোৎসবের বুধবার মহাষ্টমী। এ দিনের অন্যতম আনুষ্ঠানিকতা কুমারী পূজা। খুলনার মহানগরী একটি মাত্র মন্ডপে এবার কুমারী পূজা অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

[৩] মণ্ডপে মণ্ডপে পুষ্পাঞ্জলী, মাইকে স্তোত্রপাঠ, সাড়ম্বরে চলছে দেবী বন্দনা। ফুল, বেলপাতা দিয়ে অঞ্জলী শেষে ভক্তরা দেবীর কাছে প্রার্থনা করছেন। পৃথিবীতে শান্তি প্রতিষ্ঠা এবং করোনাভাইরাস থেকে বিশ্ববাসীকে মুক্ত করার জন্য তারা প্রার্থনা করছেন। পূজার নিরাপত্তায় কঠোর অবস্থানে রয়েছে প্রশাসন।

[৪] এবছর এক হাজার তিনটি মণ্ডপে শারদীয় দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এর মধ্যে খুলনা সিটি কর্পোরেশন এলাকায় ১৩২টি, দাকোপে ৮১ টি, বটিয়াঘাটায় একশত নয়টি, তেরখাদায় একশত সাতটি, দিঘলিয়ায় ৫৯ টি, রূপসায় ৭৫টি, ফুলতলায় ৩৩ টি, ডুমুরিয়ায় দুইশত চারটি, কয়রায় ৫৪টি ও পাইকগাছায় একশত ৪৯টি মণ্ডপে শারদীয় দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

[৫] বটিয়াঘাটার নারায়ণপুরের মহানামা যজ্ঞাস্থলী গোপাল বাড়ি মণ্ডপের পূজার আয়োজক খুলনার বিশিষ্ট শিল্পপতি ও তরুণ আওয়ামী লীগ নেতা শ্রীমন্ত অধিকারী রাহুল বলেন, গোপাল বাড়ি মণ্ডপে ঠাকুর দর্শনের জন্য দর্শনার্থীদের ঢল নেমেছে। হাজার হাজার হিন্দু ভক্ত-দর্শনার্থী দূর্গাকে দর্শন ও প্রার্থনা-তর্পণে আসছেন। তাদের আগমনে মুখরিত হয়ে উঠেছে মন্দির প্রাঙ্গণ।

[৬] জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মাহবুব হাসান বলেন, শারদীয় দূর্গাপূজা উপলক্ষে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। উৎসবমুখর পরিবেশে শান্তিপূর্ণভাবে হিন্দু ধর্মাবলম্বীরা প্রধান ধর্মীয় অনুষ্ঠান শারদীয় দূর্গাপূজা উৎযাপন করছেন। দূর্গাপূজাকে কেন্দ্র করে কোন ব্যক্তি বা গোষ্ঠী যাতে আইন-শৃঙ্খলার অবনতি ঘটাতে না পারে সেজন্য পুলিশ ও আইশৃঙ্খলা বাহিনী সজাগ রয়েছেন। সম্পাদনা: জেরিনআহমেদ

 

সর্বাধিক পঠিত