প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] দারিদ্রের কারনে পাকিস্তানে পুরনো পোশাক আমদানি বেড়েছে দ্বিগুণ

খালিদ আহমেদ: [২] পাকিস্তান পরিসংখ্যান ব্যুরো বলছে, গত অর্থবছরে দেশটিতে সেকেন্ডহ্যান্ড কাপড়ের আমদানি ৯০ শতাংশ বেড়ে ৭ লাখ ৩২ হাজার ৬২৩ মেট্রিক টন হয়েছে। এর মূল্য ৩০৯ দশমিক ৫৬ মিলিয়ন মার্কিন ডলার, যা আগের অর্থবছরের তুলনায় ৮৩ দশমিক ৪৩ শতাংশ বেশি। আরব নিউজ

[৩] পাকিস্তান ২০২১-২২ অর্থবছরের প্রথম ২ মাসে (জুলাই-আগস্ট) ১ লাখ ৮৬ হাজার ২৯৯ মেট্রিক টন ব্যবহৃত পোশাক আমদানি করেছে। গত বছরের একই সময়ের তুলনায় এটি ২৮৩ শতাংশ বেশি।

[৪] একই সময়ে দেশটি ব্যবহৃত পোশাক আমদানিতে ৭৯ মিলিয়ন মার্কিন ডলার ব্যয় করেছে, যা আগের বছরের তুলনায় ২৭৩ দশমিক ৪ শতাংশ বেশি।

[৫] চলতি বছরের সেপ্টেম্বরে পাকিস্তানের মুদ্রাস্ফীতি ৯ শতাংশে দাঁড়িয়েছে।

[৬] পাকিস্তান সেকেন্ডহ্যান্ড ক্লথিং মার্চেন্টস অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ উসমান ফারুকী বলেন, ‘দেশে উচ্চ মূল্যস্ফীতির কারণে সেকেন্ডহ্যান্ড কাপড়ের ব্যবহার ও আমদানি বাড়ছে। যারা আগে সেকেন্ডহ্যান্ড কাপড় ব্যবহার করতেন না, তারাও এখন ব্যবহৃত পোশাকের বাজারের দিকে ঝুঁকছেন।’

[৭] বিশেষজ্ঞরা বলছেন, সেকেন্ডহ্যান্ড পোশাক আমদানির অন্যতম প্রধান কারণ দারিদ্র্য। পাকিস্তান ইনস্টিটিউট অব ডেভেলপমেন্ট ইকোনমিকসের তথ্য মতে, দেশটির প্রায় ৩৯ শতাংশ জনগণ দরিদ্র।

সর্বাধিক পঠিত