প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] ফটিকছড়ির ১৪ ইউনিয়নে নৌকার মাঝি হতে চান ৯০ প্রার্থী

ওমর ফয়সাল: [২] সকল জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে আগামী ১১ নভেম্বর অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ফটিকছড়ির ১৪ ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন। ইতোমধ্যে চেয়ারম্যান পদে দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী ৯০ জন নেতাকর্মীর আবেদনপত্র গ্রহণ করে কেন্দ্রে জমা দিয়েছে উপজেলা আওয়ামী লীগ।

[৩] ইউনিয়ন গুলো হলো- বাগানবাজার, দাঁতমারা, নারায়ণহাট, হারুয়ালছড়ি, পাইন্দং, সুন্দরপুর, কাঞ্চননগর, লেলাং, রোসাংগীরি, সমিতিরহাট, বক্তপুর, ধর্মপুর, জাফতনগর ও আব্দুল্লাহপুর। এদিকে, দলীয় প্রতীকে অনুষ্ঠিতব্য এ নির্বাচনে বিএনপি অংশ না নিলেও এ নির্বাচনকে সামনে রেখে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের সম্ভাব্য প্রার্থীরা দলীয় মনোনয়ন পেতে দৌঁড়ঝাপ শুরু করে দিয়োছেন।

[৪] এরমধ্যে উপজেলার বাগানবাজার ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন চেয়েছেন বর্তমান চেয়ারম্যান রুস্তম আলী, স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা ডা. শাহাদাত হোসেন সাজু ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি রফিকুল ইসলাম। দাঁতমারা ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক জানে আলম, কার্যনির্বাহী সদস্য নুরুল আলম, ইসমাইল মজুমদার, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক জয়নাল আবেদীন, সাংবাদিক আবু মনছুর ও মাস্টার জয়নাল। নারায়ণহাট ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি হারুনুর রশিদ, সাধারণ সম্পাদক মাস্টার রতন কান্তি চৌধুরী, আওয়ামী লীগ নেতা নুরুল আমিন, সাবেক চেয়ারম্যান ইব্রাহিম, যুবলীগ নেতা খোরশেদুল আলম মামুন, সাবেক ছাত্রনেতা বাবলু বিশ্বাস, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা বিকাশ কান্তি নন্দি ও ইদ্রিছ আলম। হারুয়ালছড়ি ইউনিয়নে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সাবেক চেয়ারম্যান হাসান সরোয়ার আজম চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক জুলফিকার আলী ভুট্টু, আওয়ামী লীগ নেতা কাজী রহমত উল্লাহ ও যুবলীগ নেতা রবিউল হোসেন সিকদার রুবেল।

[৫] পাইন্দং ইউনিয়নে উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও সাবেক চেয়ারম্যান শাহ আলম সিকদার, কার্যনির্বাহী সদস্য তসলিম বিন জহুর, শফিউল আজম, রাইসুল ইসলাম চৌধুরী এমিল, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি হাবিবুল্লাহ চৌধুরী সাবু, সাধারণ সম্পাদক মজাহারুল ইসলাম, আওয়ামী লীগ নেতা বেলাল উদ্দিন ও ছাত্রলীগ নেতা সাদেক আলী সিকদার শুভ।

[৬] কাঞ্চননগরে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি দিদারুল আলম, কার্যনির্বাহী সদস্য আসাদুজ্জামান তানভীর, সাবেক সাধারণ সম্পাদক জানে আলম ও আওয়ামী লীগ নেতা এটিএম আমান উল্লাহ। সুন্দরপুর ইউনিয়নে উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও বর্তমান চেয়ারম্যান মুহাম্মদ শাহনেওয়াজ, দিদারুল বশর চৌধুরী দুুদু, যুগ্ম সম্পাদক আমান উল্লাহ চৌধুরী লিটন, সাবেক চেয়ারম্যান রেজাউল করিম চৌধুরী, সাবেক ছাত্রনেতা জসিম উদ্দিন, ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি শহিদুল্লাহ, যুবলীগ নেতা মেজবাহ উদ্দিন সিকদার ও ফরিদ সিকদার। লেলাং ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান সরোয়ার উদ্দিন চৌধুরী শাহীন,

[৭] উপজেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা ও সাবেক চেয়ারম্যান কুতুব উদ্দিন মুহুরী, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি জসীম উদ্দিন মুহুরী, সাধারণ সম্পাদক আবুল হাসান বাবুল, আওয়ামী লীগ নেতা ওয়াহিদুল আলম, সাইফুদ্দিন মাহমুদ ও ছাত্রলীগ নেতা মাসুদ করিম। রোসাংগিরীতে বর্তমান চেয়ারম্যান শোয়েব আল সালেহীন, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও সাবেক চেয়ারম্যান শফিউল আলম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আব্দুস সালাম, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা সেলিম জাবেদ, সাবেক ছাত্রনেতা আলাউদ্দিন, তারেক নেওয়াজ পলাশ ও মোফাচ্ছের হোসেন।

[৮] বক্তপুরে বর্তমান চেয়ারম্যান এস.এম সোলায়মান বি.কম, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক মুজিবুর রহমান স্বপন, কার্যানির্বাহী সদস্য জালাল হোসেন, সাবেক চেয়ারম্যান ফারুকুল আজম, আব্বাস উদ্দিন বাদল ও সাবেক ছাত্রলীগ নেতা মীর মোরশেদুল আলম। ধর্মপুরে উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি বর্তমান চেয়ারম্যান আব্দুল কাইয়ুম, সাংগঠনিক সম্পাদক ও সাবেক চেয়ারম্যান কাজী মাহমুদুল হক, কার্যনির্বাহী সদস্য মুহাম্মদ মাসুদ পারভেজ, যুবলীগ নেতা মোরশেদুল আলম ও মুহাম্মদ সরোয়ার। জাফতনগরে বর্তমান চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল হালিম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য আফাজ উদ্দিন, শফিউল আলম, সাবেক ছাত্রনেতা জিয়া উদ্দিন জিয়া, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি জিন্নাত আলী, সাবেক ছাত্রনেতা জাহাঙ্গীর আলম, শহিদুল ইসলাম, মুহাম্মদ সেলিম ও ফয়েজ উল্লাহ মুজিব। সমিতিরহাট বর্তমান চেয়ারম্যান হারুনুর রশিদ ইমন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শাহনেওয়াজ, আওয়ামী লীগ নেতা নাসির উদ্দিন চৌধুরী, এডভোকেট মঞ্জুরুল আজম, সাইফুল ইসলাম মনজু, আব্দুস সবুর, রফিকুল ইসলাম, ইউসুফ সিরাজ, মোকাররম হোসেন ও হানিফ হোসেন। আব্দুল্লাহপুরে বর্তমান চেয়ারম্যান অহিদুল আলম, আওয়ামী লীগ নেতা এস.কে.এম সেলিম, আব্দুল মাবুদ, এডভোকেট নাসির উদ্দিন মহসিন ও তৈয়ব আলী নৌকা পেতে দলের কাছে আবেদন করেছেন।

[৯] ইতোমধ্যে নৌকা প্রত্যাশীরা আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর ধানমন্ডি কার্যালয় থেকে দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন বলে জানা গেছে। দ্বিতীয় ধাপের ইউপি নির্বাচনকে সামনে রেখে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের স্থানীয় সরকার নির্বাচন মনোনয়ন বোর্ডের সভা ৮ ও ৯ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। এ বৈঠকে ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে দলীয় প্রার্থীদের মনোনয়ন চ‚ড়ান্ত করা হবে। ম‚লত এ বৈঠকের পরই জানা যাবে ফটিকছড়ির ১৪ ইউনিয়নে নৌকার মাঝি কারা হচ্ছেন। জানা গেছে, প্রার্থী নির্বাচনে ম‚লত আগামী দিনের রাজনীতিসহ বিভিন্ন বিষয় বিবেচনায় নেবেন আওয়ামী লীগের মনোনয়ন বোর্ড। এসব বিষয়ে যারা এগিয়ে থাকবেন তারাই পাবেন নৌকা প্রতীক।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত