প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ঈর্ষণীয় বেতনের কারণে ব্রিটেনে ট্রাক ড্রাইভার হতে চান অনেকে

রাশিদ রিয়াজ : লার্জ গুড ভেইকল বা হেভি গুডস ভেইকল অর্থাৎ সাড়ে ৩ হাজার কেজির বেশি মালামাল নিয়ে যেসব ট্রাক চলে তার চালক হতে চাচ্ছেন ব্রিটেনের অনেকে। ব্রেক্সিট পরবর্তী পরিস্থিতি ও কোভিড মহামারীর পর অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধারে ব্যাপক চাহিদা এখন ট্রাক চালকদের। ট্রাক চালাতে পারেন এমন চালকদের পাঁচদিনের অতিরিক্ত প্রশিক্ষণ দিতে হয় ভারী ট্রাক চালক হওয়ার জন্যে। আর লাইসেন্স পেতে ব্রিটেনে ৮ থেকে ১০ সপ্তাহ লেগে যায়। গত ফেব্রুয়ারি থেকে আগস্ট পর্যন্ত ভারী ট্রাক চালকদের বেতন বেড়েছে ১২.৮ শতাংশ, এরপর রয়েছে আকর্ষণীয় বোনাস। ভারী ট্রাক চালকদের প্রশিক্ষণ ফি নেওয়া হচ্ছে দেড় হাজার পাউন্ড। এ প্রশিক্ষণ নেওয়ার পর ‘সি’ ও ‘সি প্লাস ই’ ক্যাটাগরির লাইসেন্স পাচ্ছেন চালকরা। ডেইলি মেইল

এর ফলে অনেকে পেশা পরিবর্তন করে ভারী ট্রাক চালনার প্রশিক্ষণ নেওয়ার উদ্যোগ নিচ্ছেন। অফিস প্রশাসনে কাজ করছেন এমন অনেকে বা সদ্য বিশ^বিদ্যালয় পাশ করা তরুণও এখন ট্রাক চালক হতে আগ্রহী। তারা মনে করছেন ট্রাক ড্রাইভার হতে পারলে অন্যান্য পেশার চেয়ে সহজে দ্বিগুণ আয় করা সম্ভব। সাত বছর আগে সাধারণ ড্রাইভিং লাইসেন্স পেয়েছেন এমন এক তরুণ জানান, তিনি এখন ভারী ট্রাক চালানোর প্রশিক্ষণ নিতে যাচ্ছেন। অভিজ্ঞ ভারী ট্রাক চালকদের বছরে ৭০ হাজার পাউন্ড বেতনের প্রস্তাব দেওয়া হচ্ছে। দি ইজ মানি’র অ্যাঞ্জেলিক রুজিকা বলেন মোটা বেতন ও বোনাসের প্রস্তাব খুব সহজেই অনেককে প্রলোভনে ফেলে দিচ্ছে।

এধরনের প্রস্তাবের আরেক লক্ষ্য হচ্ছে পুরাতন ও নতুন ট্রাক চালকদের আকর্ষণ করার চেষ্টা। ব্রেক্সিট পরবর্তী পরিস্থিতি, কোভিড মহামারী, কাজের খারাপ অবস্থা এবং কাজের সময় কম বেতন দেওয়ার কারণে সার্বির পরিস্থিতির অবনতি ঘটেছে। বিশেষ করে চালকদের পরিবারের সঙ্গে কাটানোর সুযোগ ও আগের চেয়ে তাদের কর্মপরিধি কিছু শিথিল করা হচ্ছে। আগামী বছর ১৮ বছরের বেশি হলে কেবল ভারী ট্রাক চালকের প্রশিক্ষণে সুযোগ পাওয়া যাবে। রোড হলেজ এ্যাসোসিয়েশনের এ্যাকাউন্ট ম্যানেজার মার্টিন ডিয়ান বলেন চালকের চাহিদা যদি ১ শতাংশ বাড়ে তাহলে তাদের বেতন বাড়ার সম্ভাবনা হয় ৭.৬ শতাংশের বেশি। ভারী ট্রাক চালানো চাট্টিখানি কথা নয় এবং মহাসড়কে অনেক সময় নিঃসঙ্গ অবস্থায় কাটাতে হয়। আর সঠিক প্রশিক্ষণও বেশ ব্যয়বহুল।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত