প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] ছাত‌কে যৌতুকের জন্য গৃহবধূকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

নুর উদ্দিন: [২] সুনামগ‌ঞ্জের ছাত‌কে নাজ‌মিন বেগম (২৬) নামে এক গৃহবধূকে লা‌ঠি দি‌য়ে পিটিয়ে ও বা‌ড়ি পুকু‌‌রের পানিতে ডু‌বি‌য়ে হত‌্যার অভিযোগ উঠেছে স্বামী ও শ্বশুর বাড়ির লোকজ‌নের বিরুদ্ধে।

[৩] সোমবার সকা‌লে স্বামীর বা‌ড়ির পুকু‌র থে‌কে গৃহবধুর লাশ পু‌লিশ উদ্ধার করে‌ছে। সে উপজেলার ছৈলা আফজলাবাদ ইউনিয়নের লা‌কেশ্বর গ্রা‌মের ছুরাব আলী মে‌য়ে। উপজেলার দোলারবাজার ইউ‌পির কাটাশলা গ্রা‌মে এ ঘটনা ঘ‌টে। ছাতক-দোয়রাবাজারের সার্কেল বিল্লাল আহমদ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

[৪] জানা যায়,যৌতু‌কের জন‌্য মার‌পিট নির্যাতনে অ‌তিষ্ট হ‌য়ে ১৭ সেপ্টেম্বর বাবার বা‌ড়ি‌তে চ‌লে যান। গত ২ অ‌ক্টোম্বর শশুড় সময় আলী পুত্রবধুকে নি‌য়ে আ‌সেন। ওই রা‌তে স্বামী স্ত্রীর ম‌ধ্যে ঝগড়া বা‌ধে। প‌রের দিন সকা‌লে বাবার বা‌ড়ি‌তে মোবাইল ফো‌নে খবর দেয়া হয় তা‌কে খোজে পা‌ওয়া যাচ্ছেনা ব‌লে। সোমবার সকা‌লে নি‌খোঁজের এক‌দিন পর গৃহবধুর লাশ তার স্বামী বা‌ড়ির পুকু‌রে ভাসতে দেখে স্থানীয় লোকজন জা‌হিদপুর পু‌লিশ ফাঁ‌ড়িতে খবর দেন। পু‌লিশ ঘটনাস্থ‌লে পৌ‌ছে গৃহবধুর লাশ উদ্ধার ক‌রে‌ সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতা‌লে পা‌ঠি‌য়ে দেয়।

[৫] পু‌লিশ ও গ্রামবা‌সি জানায়, গৃহবধুর দে‌হের ম‌ধ্যে মাথা, বু‌ক ও পি‌টে একা‌ধিক আঘা‌তের দাগ র‌য়ে‌ছে। স্বামী বা‌ড়ির লোকজন তা‌কে পি‌টি‌য়ে হত‌্যা ক‌রে‌ছে ব‌লে পু‌লিশ ধারনা ক‌রছে।

[৬] এ ঘটনায় নিহতের পিতা ‌ছোরাব আলী বাদী হ‌য়ে স্বামী সুমন মিয়া, শশুর সময় আলী ও শাশুরী দিলারা বেগম‌কে আসামী ক‌রে থানায় এক‌টি অ‌ভি‌যোগ ক‌রেছেন।

[৭] উপজেলার ছৈলা আফজলাবাদ ইউনিয়নের লা‌কেশ্বর গ্রা‌মে ছোবার আলীর কন‌্যা নাজ‌মিন বেগ‌মের স‌ঙ্গে একই উপ‌জেলার দোলারাবাজার ইউ‌পির কাটাশলা গ্রা‌মে সমর আলী ছেলে সুমন মিয়ার স‌ঙ্গে তার পারিবারিক ভাবে বিয়ে হয়। দাম্পত্য জীবনে তাদের একটি ছেলে সন্তান রয়েছে।

[৮] নি‌হতের পিতা ছোরাব আলী জানান, বিয়ের পর থেকেই যৌতুকের জন্য নাজ‌মিনকে নির্যাতন করতেন স্বামী ও শ্বশুর বাড়ির লোকজন। নির্যাতনের বিষয়টি বেশ কয়েকবার শা‌লিশ বৈঠক অনু‌ষ্টিত হয়। পরে স্বামীসহ অন্যরা মিলে নাজ‌মিনকে লা‌ঠি দি‌য়ে পিটিয়ে পুকু‌রের পা‌নি‌তে ডু‌বি‌য়ে হত্যা করেছেন ব‌লে নিহ‌তের প‌রিবার অ‌ভি‌যোগ ক‌রেন।

[৯] ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ না‌জিম উ‌দ্দিন এঘটনার সত‌্যতা নি‌শ্চিত ক‌রে ব‌লেন, লাশ ময়না তদন্তের পর মৃত্যুর প্রকৃত ঘটনা জানা যাবে।

সর্বাধিক পঠিত