প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

শওকত আলী সাগর: অভিবাদন প্রশান্ত রায়

শওকত আলী সাগর: ১.কথা ছিলো প্রশান্ত’র সঙ্গে কোথাও বসে চা খাবো। চা খেতে খেতে তার ম্যারাথনের গল্প শুনবো। হঠাৎ করে একই সময়ে হাই কমিশনারের প্রোগ্রাম পরে যাওয়ায় চায়ের কাপে প্রশান্তর ম্যারাথনের গল্প শোনাটা হলো না। তবু জয়ন্ত দা’র (জয়ন্ত বনিক) গাড়িতে বসে প্রশান্তর গল্প শুনতে থাকি।

২.বাংলাদেশের লালসবুজ পতাকা উড়িয়ে কানাডার ক্যালগেরিতে একটি ম্যারাথনে তিন বাংলাদেশির অংশ নেয়ার খবরটা পত্রিকায় পড়েছিলাম। তাদের একজন প্রশান্ত রায় এসেছেন বাংলাদেশ থেকে। ম্যারাথনে অংশ নিতে কেউ বাংলাদেশ থেকে কানাডায় উড়ে এসেছেন- কথাটা শুনেই কেমন থ্রিল্ড ফিল করি। ঢাকায় আমার সাবেক সহকর্মী সুনীতি বিশ্বাসের সাথে নানা বিষয় নিয়ে আলোচনার এক ফাঁকে প্রশান্তর কথা ওঠে। সুনীতি জানায় প্রশান্ত রায় আমার ফেসবুক বন্ধু। ব্যাস, যোগাযোগ সহজ হয়ে যায়।

৩. ক্যালগেরি ম্যারাথন হচ্ছে কানাডার সবচেয়ে দীর্ঘসময় ধরে চলমান ম্যারাথন।গত ৫৭ বছর ধরে অনুষ্ঠিত হচ্ছে এই ম্যারাথন।ক্যালগেরির গন্ডি পেরিয়ে সারা বিশ্বকে আকৃষ্ট করেছে এই আয়োজন। ফলে কেবল ক্যালগেরি বা কানাডা নয়, সারা বিশ্ব থেকেই মানুষ এই ম্যারাথনে অংশ নেন। প্রশান্ত তেমনি একজন অংশ গ্রহনকারী।প্রশান্তর সাথে যে দুজন ছিলেন, তার বন্ধু খোকন সিকদার এবং নবাংশু শেখর দাস- তারা ক্যালগেরিতেই থাকেন।
নানা বয়সের, নানা সক্ষমতার মানুষের অংশ গ্রহন নিশ্চিত করতে নানা দৈর্ঘের এবং নানা মাত্রার ম্যারাথনের আয়োজন করছে ক্যালগেরি ম্যারাথন। প্রশান্তরা অংশ নিয়েছিলেন ৪২.২০ কিলোমিটারের পূর্ণ দৈর্ঘের ম্যারাথনে।

৪. প্রশান্তর কোনো স্পন্সর ছিলো না, তিনি কোনো পেশাদার অ্যাথলেটও না। ঢাকার একজন আইটি ব্যবসায়ী, ব্যবসার কারনে সৃষ্ট মানসিক চাপ কমাতে হাঁটা এবং পরে দৌড়াতে শুরু করা প্রশান্ত পৌঁছে গেছেন আন্তর্জাতিক একটি আয়োজনে, যেখানে তিনি উড়িয়ে দিয়েছেন বাংলাদেশের লাল সবুজ পাতাকা।
অভিবাদন প্রশান্ত রায়, চায়ের কাপে দীর্ঘ আড্ডা দিতে না পারার অপূর্ণতা সহজে যাবে বলে মনে হয় না।

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত