প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] মধ্যরাতে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের সংঘর্ষ, আহত ৪

দোস্ত মোহাম্মদ: [২] চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের বগিভিত্তিক বিজয় গ্রুপ তাদের অভ্যন্তরীণ কোন্দলকে কেন্দ্র করে মধ্যরাতে দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এসময় হলের ভিতর দেশীয় ধারালো অস্ত্র নিয়ে উভয়ের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া হয়। এতে ছাত্রলীগকর্মী চারজন আহত হয়।

[৩] বুধবার রাত সাড়ে ১২ টার দিকে আলাওল হলে এ ঘটনা ঘটে। পরে রাত ২টার দিকে প্রক্টরিয়াল বডি পুলিশের সহযোগিতায় পরিস্থিতি শান্ত করে।

[৪] আহতরা হলেন- হিসাববিজ্ঞান বিভাগের ১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের মো. জাহিদ, সংস্কৃত বিভাগের ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের মো. মুজাহিদ, রাজনীতি বিজ্ঞান বিভাগের ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের সাব্বির আহমেদ ও আরবি বিভাগের ১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের সাহিল কবির। এরমধ্যে গুরুতর আহত জাহিদকে চবি মেডিকেল সেন্টারে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠনো হয়েছে।

[৫] এ ঘটনার পর সংস্কৃত বিভাগের ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের মো. মুজাহিদকে শিক্ষার্থী মারধর,ব্যবসায়ীকে পেটানো,কর্মচারীকে হত্যার হুমকি ও শিবির সংশ্লিষ্টতার অভিযোগে তাকে পিটিয়ে অবাঞ্ছিত করছে বিজয় গ্রুপের কর্মীরা।

[৬] বিজয় গ্রুপের নেতা ও ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ ইলিয়াস “আমাদের নতুন সময়কে” বলেন, জামায়াতের আমির জাকির হোসেনের ছেলে মুজাহিদ অনেকদিন ধরে ছাত্রলীগে ঘাপটি মেরে শিবিরের এজেন্ডা বাস্তবায়ন করতেছিল। তার বাবা বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মচারী। ছাত্রলীগের বলিষ্ঠ ভূমিকায় জামায়াত শিবির যেখানে নিশ্চিহ্ন, সেখানে তারা বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মচারী সেজে শিবিরের এজেন্ডা বাস্তবায়ন করতেছে। গত কয়েকমাস তার অবৈধ কার্যকলাপ আমরা প্রত্যক্ষ করছি। গ্রুপে অভ্যন্তরীণ কোন্দল সৃষ্টির পাঁয়তারায় লিপ্ত ছিল। সর্বশেষ সে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে ছাত্রলীগের ছেলেদের গতিরোধ করে। তাই আজকে ছাত্রলীগের ছেলেরা তাকে প্রতিহত করে। তার আগে আমাদের জুনিয়র কর্মীদের তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়

[৭] বিশ্ববিদ্যালয় মেডিকেল সেন্টারের দায়িত্বরত চিকিৎসক ডা. টিপু সুলতান বলেন, আমাদের এখানে জাহিদ নামের এক শিক্ষার্থী চিকিৎসা নিতে এসেছে। তার বিভিন্ন জায়গায় আঘাত লেগেছে। আমরা প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেলে পাঠিয়ে দিয়েছি।

[৮] বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. রবিউল হাসান ভূঁইয়া বলেন, দুই পক্ষের মধ্যে হাতাহাতিতে চারজন আহত হয়েছেন। আমরা গিয়ে আহতের হাসপাতালে পাঠানোর ব্যবস্থা করেছি। পরিস্থিতি শান্ত আছে। জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত