প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] দাঙ্গায় ১১৬ জন নিহত হওয়ার পর কারাগারে জরুরী অবস্থা ঘোষণা করলো ইকুয়েডর

লিহান লিমা: [২] দেশের কারাগারগুলোতে ‘জরুরী অবস্থা ঘোষণা করেছেন ইকুয়েডরের প্রেসিডেন্ট গুইলারমো লাসো। বুধবার দেশটির কারাগারের মধ্যে দুই সন্ত্রাসী গোষ্ঠির দাঙ্গায় ১১৬ জন নিহত হন এবং আহত হন ৮০ জন। কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে এর মধ্যে পাঁচজনের মাথা কেটে ফেলা হয় ও বাকিরা গুলিতে নিহত হন। এপি

[৩]এটি দেশটির ইতিহাসে কারাগারে সবচেয়ে বড় রক্তপাতের ঘটনা বলে জানিয়েছে কারা কর্তৃপক্ষ। রাজ্যটির গভর্নর পাবল আরোসেমেনা আইন ব্যর্থ হওয়ার অভিযোগ করেছেন।

[৪]সরকারের ঘোষিত কারা জরুরী অবস্থার আওতায় সরকার কারাগারের ভেতরে পুলিশ ও সেনাবাহিনী মোতায়েন করতে পারবেন। সংবাদ সম্মেলনে লাসো বলেন, ‘কারাগার সন্ত্রাসী গোষ্ঠিদের ক্ষমতা ও নিয়ন্ত্রণের বিতর্ক হওয়ার বিষয়টি দুঃখজনক ও জঘন্য। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসতে আমি সর্বোচ্চ চেষ্টা করবো।’ তবে কর্তৃপক্ষ কারাগারের পূর্ণনিয়ন্ত্রণ নিয়েছে এই নিশ্চয়তা দিতে পারেন নি তিনি।

[৫]জানা গিয়েছে, গুয়াকুইয়েরর লস লোবেস ও লস চোনেরোস কারাগারের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে আন্তর্জাতিক মাদক ও সন্ত্রাসী গোষ্ঠির সঙ্গে জড়িত দুই গ্যাংয়ের মধ্যে বিরোধে এই ঘটনা ঘটে। কারগারটিতে এখন ৪০০ পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

[৬]স্থানীয় গণমাধ্যমগুলো বলছে, মেক্সিকান মাদক চোরাচালান গ্রুপগুলো এখন ইকুয়েডরে ব্যাপকভাবে সক্রিয়। ইকুয়েডরের কারাবন্দিদের সঙ্গে মেক্সিকোর ড্রাগ গ্যাংগুলোর দ্বন্দ্ব চলছে। দু’সপ্তাহ আগে গুয়েকুইল কারাগারে চারজন ড্রোন হামলার শিকার হয়েছে। চলতি বছর জুলাইয়ে দুটি কারাগারে দাঙ্গায় ২৭ জনকে হত্যা করা হয়েছিল। ২০২০ সালে দেশটিতে ১০৩ কারাবন্দিকে হত্যা করা হয়েছিল। বিবিসি

[৭]গত জুলাইয়ে প্রেসিডেন্ট লাসো বলেছেন, ইকুয়েডরের কারাগারে ধারণক্ষমতা ৩০ শতাংশ ছাড়িয়েছে। দেশটির কারাগারে ৩৯ হাজার কারাবন্দি আছে। কারাগারের ধারণক্ষমতা রক্ষার্থে তিনি যারা বেশিদিন ধরে কারাবন্দি আছেন ও ছোটখাট অপরাধ করেছেন তাদের ছেড়ে দেয়ার পরিকল্পনার কথা জানিয়েছেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত