প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] উত্তর কোরিয়ার অস্ত্র উৎপাদন ও পরীক্ষার অধিকার রয়েছে, জাতিসংঘে বললেন দেশটির রাষ্ট্রদূত

লিহান লিমা: [২] দক্ষিণ কোরিয়ার সামরিক বাহিনী জানিয়েছে উত্তর কোরিয়া মঙ্গলবার ভোরে তার পূর্ব উপকূল সমুদ্রের দিকে স্বল্প পাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করেছে। এই মাসের শুরুর দিকে উ. কোরিয়া ব্যালিস্টিক এবং ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালায়। বিবিসি

[৩]সর্বশেষ উৎক্ষেপণের কিছুক্ষণ পর জাতিসংঘ সাধারণ অধিবেশনে পিয়ংইয়ংয়ের রাষ্ট্রদূত বলেন, ‘আমরা কেবল প্রতিরক্ষা, নিরাপত্তা এবং দেশের দেশের শান্তি-শৃঙ্খলা রক্ষার জন্য জাতীয় প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা তৈরি করেছি। পিয়ংইয়ংয়ের আত্মরক্ষা এবং অস্ত্র পরীক্ষার অধিকারকে কেউ অস্বীকার করতে পারে না। উত্তর কোরিয়ার অস্ত্র হালনাগাদ, উন্নয়ন, পরীক্ষা এবং উৎপাদনের অধিকার রয়েছে।’ তিনি আরো বলেন, যুক্তরাষ্ট্র দক্ষিণ কোরিয়ায় প্রায় ৩০ হাজার সেনা মোতায়েন করে রেখেছে এবং এখন পর্যন্ত কোরিয় যুদ্ধ বন্ধের কোনো আনুষ্ঠানিক চুক্তি হয় নি।’

[৪]এই উৎক্ষেপণের নিন্দা জানিয়ে পিয়ংইয়ংকে সংলাপে অংশ নেয়ার আহ্বান জানিয়েছে মার্কিন পররাষ্ট্রদপ্তর। মার্কিন ইন্দোপ্যাসিফিক কমান্ড বলেছে, এই উৎক্ষেপণ উত্তর কোরিয়ার অবৈধ অস্ত্র কর্মসূচীর অস্থিতিশীল প্রভাবকে তুলে ধরেছে।

[৫]মঙ্গলবার জাপানের গণমাধ্যম প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে বলেছে, এটি প্রজেক্টটি ব্যালেস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র হতে পারে যা জাতিসংঘের নিষেধাজ্ঞাভূক্ত। দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জে ইন সিওলের জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদকে সর্বশেষ ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণের পেছনের উদ্দেশ্য এবং কিম জং উনের বোন কিম ইয়ো জংয়ের সাম্প্রতিক বিবৃতি বিশ্লেষণের নির্দেশ দিয়েছেন। কিম ইয়োপ কয়েকদিন আগে বলেছিলেন, তারা কোরিয় যুদ্ধের অবসান ঘটাতে প্রস্তুত কিন্তু এর আগে দক্ষিণকে প্রথমে তার ‘প্রতিকূল নীতি’বন্ধ করতে হবে।

[৬]মহামারী ও বন্যার কারণে গত এক বছরেরও বেশি সময় ধরে খাদ্য সংকটের সম্মুখীন উত্তর কোরিয়া। কোভিড থেকে বাঁচতে চীনের সঙ্গে সীমান্ত বাণিজ্যও বন্ধ করে দিয়েছে। তবে দেশটি তার অস্ত্র কর্মসূচী অব্যাহত রেখেছে। আগস্টে জাতিসংঘের পারমাণবিক সংস্থা বলেছিলো, উত্তর কোরিয়া পরমাণু অস্ত্রের জন্য প্লুটোনিয়াম তৈরি করতে পারে এমন একটি চুল্লি পুনরায় চালু করেছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত