প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] জাতিসংঘ অধিবেশনে প্রধানমন্ত্রীর যোগদানে বাংলাদেশের কোন অর্জন নেই: মির্জা ফখরুল

শিমুল মাহমুদ ও মহসীন কবির: [২] মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ‘অর্জন তার একটায় যেটা আমি লক্ষ্য করেছি সেটা হচ্ছে আরো মিথ্যাচার কিভাবে করা যায়। আপনারা লক্ষ্য করলে দেখবেন তার গোটা বক্তব্যের মধ্যে দেশে যে গনতন্ত্র নেই, দেশে যে মানুষের অধিকার গুলো হরণ করা হয়েছে, দেশে যে নির্বাচন কমিশনকে সম্পুর্নভাবে ধ্বংস করে দেওয়া হয়েছে।

[৩] তিনি বলেন, একটা গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র গঠনের জন্য যে সমস্ত উপদান দরকার তার প্রত্যেকটিকে ধ্বংস করে দিয়ে এখানে একটি দলীয়করনকৃত করা হয়েছে এবং একটি ফ্যাসিবাদ রাষ্ট্র কায়েম করা হয়েছে।
এটা কিভাবে অতি দ্রুত সত্যিকার অর্থে একটি গনতান্ত্রিক রাষ্ট্রে পরিনত করবেন, নির্বাচনী ব্যবস্থাকে গণতান্ত্রিক ব্যবস্থায় পরিণত করবেন, জনগণ যে দূর্বল অসহায় অবস্থায় তা দূর করবেন তিনি সে সর্ম্পকে কিছু উল্লেখ করেননি। একই সঙ্গে আমরা দেখেছি তিনি মিথ্যাচার করেছেন। এই মিথ্যাচারকে আমরা তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি। তিনি তার সর্ম্পকে যে বক্তব্য পত্রপত্রিকা বা মিডিয়ায় উঠে এসেছে এখানে তিনি বেগম খালেদা জিয়া সম্পর্কে অনেক গুলো নেতিবাচক কথা বলেছেন। তার তীব্র নিন্দ্রা জানাচ্ছি, প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

[৪] বিএনপি মহাসচিব বলেন, আমরা সবসময় প্রত্যাশা করি, গণতন্ত্রকে প্রাতিষ্টানিক রুপ দেওয়ার জন্য। জনগণের যে অধিকার, ভোটের যে অধিকার, বাকস্বাধীনতার যে অধিকার, তার বেচেঁ থাকবার যে অধিকার তা নিশ্চিত করবার জন্য তাদের শুভবুদ্ধির উদয় হবে।

[৫] তারা সত্যিকার অর্থে পদত্যাগ করে, একটি নিরপেক্ষ নিদলীয় সরকারে অধীনে, নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশনের পরিচালনায় নির্বাচনের ব্যবস্থ্যা করবে। যাতে করে একটি সত্যিকারে জনগনের পার্লামেন্ট প্রতিষ্ট্রা হতে পারে।
সংবাদিকদের আরেক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমি কোনো আউটপুট পাইনি। এমনকি রোহিঙ্গাদের যে সমস্যা, সে সমস্যারও কোনো সমাধান তিনি নিয়ে আসতে পারেনি। আমরা যেটা মনে করি এখানে সবচেয়ে বড় যে প্রবলেম দাড়িয়েছে, রোহিঙ্গা ইস্যূকে নিয়ে এখন পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রী বলুন বা সরকার বলুন তার কোনো ইতিবাচক ভুমিকা পালন করেনি। যারা স্টেকহোল্ডার আছেন যেমন স্পেন, ভারত তাদের কাছে এখন পর্যন্ত যেতে পারেনি। এই সমস্যা সমাধানের কোনো পথ তারা বের করতে পারেনি।

[৬] রোববার দুপুরে রাজধানীর চন্দ্রিমা উদ্যানে দলের প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের মাজারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানোর পর বিএনপি মহাসচিব এসব কথা বলেন। বিএনপির অন্যতম অঙ্গসংগঠন কৃষক দলের কেন্দ্রীয় আংশিক কমিটি ঘোষণা উপলক্ষ্যে এই আয়োজন করে দলটি।

[৭] মির্জা ফখরুল বলেন, আমাদের যে লক্ষ্য এই বর্তমানে ফ্যাসিস্ট দানবীয় সরকার , নির্বাচন না করেই যারা ক্ষমতা দখল করে আছে তাদের সড়িয়ে দেওয়ার জন্য। জনগণের মধ্যে একটা আন্দোলন এবং একই সঙ্গে একটা গণঅভ্যুত্থানের জন তারা কাজ করবে। ইনশাআল্লাহ আমরা এটা করতে সক্ষম হবো এই নবগঠিত নেতৃত্বের মাধ্যমে।

সর্বাধিক পঠিত