প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] ফের ‘পেগাসাস’ কেলেঙ্কারী, এবার শিকার ফ্রান্সের ৫ মন্ত্রী

রাশিদুল ইসলাম : [২] ফ্রান্সের অন্তত পাঁচজন মন্ত্রীর মোবাইল ফোনে মিলেছে ইসরায়েলের গোপন নজরদারি সফটওয়্যার পেগাসাস সফ্টওয়্যারের অস্তিত্ব। ওয়াশিংটন পোস্ট বলছে গোপন সূত্রে এই ঘটনার কথা জানা গেছে। তবে মন্ত্রীদের মোবাইলগুলো যে হ্যাক করা হয়েছে, তার কোনও প্রমাণ পাওয়া যায়নি।

[৩] মাস কয়েক আগেই এই পেগাসাস নিয়ে উত্তাল হয়ে ওঠে ভারতের রাজনীতি। অভিযোগ ওঠে, দেশের একাধিক নেতা, মন্ত্রী, সাংবাদিক, ব্যবসায়ী, সরকারি আমলা, কর্মীদের ফোন হ্যাক করে আড়িপাতা হয়েছে এই পেগাসাস ব্যবহার করে।

[৪] ইসরায়েলের প্রাক্তন সাইবার গোয়েন্দাদের হাত ধরে ২০১০ সালে গড়ে উঠেছিল এনএসও গ্রুপ। তাদেরই তৈরি পেগাসাস স্পাইওয়্যার। এটি ব্যবহার করে বিশ্বের অন্তত ৪৫টি দেশে সাংবাদিক, মানবাধিকার কর্মী, রাজনীতিবিদ-সহ বিভিন্ন পেশার বহু ব্যক্তির স্মার্টফোনে আড়ি পাতা হয়েছে।

[৫] ২০১৯ সালে ফ্রান্সের ওই ৫ মন্ত্রীর ফোনে স্পাইওয়্যারটি দিয়ে নজরদারি শুরু করা হয়েছে। তবে সেই সময়ে তারা সকলে মন্ত্রী ছিলেন না। অভিযোগ ওঠার পরে বৃহস্পতিবার রাতে এনএসও-র তরফে একটি বিবৃতি দিয়ে বলা হয়েছে, আমরা আগেও ফরাসি সরকারকে বলেছি, পেগাসাসের লক্ষ্যবস্তু হিসেবে সে দেশের কর্তারা কখনওই ছিলেন না। এর পরে কোন সূত্র কী খবর সামনে আনছে, তা নিয়ে আমরা কোনও মন্তব্য করতে চাই না।

[৬] এনএসও গ্রুপের দাবি, গুরুতর অপরাধ ও সন্ত্রাস প্রতিরোধের বাইরে পেগাসাস সফটওয়্যারকে কাজে লাগানো মানে তা এটির অপব্যবহার করা। এ কথা পেগাসাসের চুক্তিতেও উল্লেখ করা রয়েছে। এনএসও আরও দাবি করেছে, কেউ যদি এটির অপব্যবহার করে, তা জানতে পারলে এনএসও-র তরফে পদক্ষেপ করা হয়।

[৭] এনএসও আরও জানিয়েছে, বিশ্বজুড়ে বহু মানুষ এই সফটওয়্যারের কল্যাণেই নিরাপদে রয়েছে। কিন্তু কার্যক্ষেত্রে এমনটা ঘটেনি বলেই এর আগে ১৭টি আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম একযোগে জানিয়েছিল।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত