প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

কামারখন্দে মৃৎ শিল্পীদের কর্মব্যস্ত দিন কাটছে

মো. রাইসুল ইসলাম : আগামী ১১ অক্টোবর মহা ষষ্ঠী তিথির মধ্য দিয়ে হিন্দু (সনাতন) ধর্মাবলম্বীদের সর্ববৃহৎ ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজার আনুষ্ঠানিকতা শুরু হবে । তারই ধারাবাহিকতায় সিরাজগঞ্জের কামারখন্দ উপজেলার ভদ্রঘাট গ্রামের পাল পাড়ায় মৃৎ শিল্পীদের সুনিপুন হাতের ছোঁয়ায় যেন প্রতিমায় ফোটে ওঠেছে দৃষ্টিনন্দন মাতৃমূর্তি।

শুক্রবার ( ২৪ সেপ্টেম্বর ) বিকেলে সরজামিনে গিয়ে দেখা যায়,সারা দেশের মতো কামারখন্দে ও চলছে দিনরাত প্রতিমা তৈরীর কাজ। এখন ব্যস্ত সময় পার করছেন প্রতিমা শিল্পীরা। তবে কিছুটা দুশ্চিন্তায় রয়েছে মৃৎ শিল্পীরা কারণ গতবারের তুলনায় বাঁশ,সুতলি,খড় এর দাম বেশি হওয়ায় লাভের আশঙ্কা খুবই কম।

নিজেদের মনের মতো করে প্রতিমার তৈরি করে নিজেকে সেরা শিল্পী হিসেবে তুলে ধরতে দিন-রাত ব্যস্ত সময় পার করছেন উপজেলার স্থানীয় মৃৎশিল্পীরা। আগামী ১১ অক্টোবর ষষ্ঠী তিথিতে শুরু হবে এ পূজা। ১৫ অক্টোবর দশমী তিথিতে প্রতিমা বির্সজনের মধ্যে দিয়ে শেষ হবে।

এ বিষয়ে মৃৎশিল্পী ভূপিনাথ পাল আমাদের সময় ডট কম কে বলেন,গতবারের তুলনায় এবার প্রতিমার চাহিদা বেশি কিন্তু দাম খুবই কম এজন্য বেশি লাভ হবে না। তবে বাঁশ,খড়,সুতলি এই গুলোর দাম বেশি লাভের আশঙ্কা খুবই কম। আমাদের প্রতিমা বিভিন্ন জেলায় বিক্রি করে থাকি বগুড়া, নাটোর, টাঙ্গাইলসহ অনেক জেলাতে।

মৃৎশিল্পী পলান পাল আমাদের সময় ডট কম কে বলেন, প্রতিমা বিভিন্ন জেলায় বিক্রি করে আমার কিন্তু আমাদের রাস্তা না থাকায় প্রতিমা বিক্রির পরে তা নিয়ে যাওয়ার সময় অনেক সমস্যা হয়।গতবার করোনা ভাইরাস এর কারণে বেশি প্রতিমা বিক্রি করতে পারিনি তবে এবার মোটামুটি বিক্রি হবে বলে আশাবাদী।

কামারখন্দ উপজেলার পুঁজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক প্রভাত কুমার দাস আমাদের সময় ডট কম কে বলেন, সরকারিভাবে সামাজিক দূরত্ব বজায় ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিত আকারে শারদীয় দুর্গাৎসব পালন করা হবে। এবার কামারখন্দ উপজেলায় ২৪ টি দুর্গাপূজা উদযাপন হবে।

কামারখন্দ থানার অফিসার ইনচার্জ হাবিবউল্লাহ আমাদের সময় ডট কম কে বলেন,পূজা মন্ডপগুলোর নিরাপত্তায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারীবাহিনী নিয়োজিত থাকবে এবং নিরাপত্তার জন্য আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর পক্ষ থেকে সব ধরনের পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

সর্বাধিক পঠিত