প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] লাশ থাকুক আর না থাকুক চন্দ্রিমা উদ্যানে কারো কবর থাকতে পারে না : স্থানীয় সরকার মন্ত্রী

শাহীন খন্দকার: [২] জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের খুনিদের পার্লামেন্ট চত্বরে শুয়ে থাকার অধিকার নেই বলে মন্তব্য করেছেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী তাজুল ইসলাম।

[৩] তিনি বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুকে যারা হত্যা করেছে, তাঁদের পার্লামেন্ট চত্বরে শুয়ে থাকার অধিকার নেই। জাতির জনকের খুনি স্বাধীনতা বিরোধীর কবর যদি সংসদের মতো গৌরব উজ্জ্বল স্থানে হয় তাহলে জাতির প্রতি আমাদের অঙ্গীকার কি ঠিক থাকলো। সংসদ ভবনের নকশায় কোন কবর থাকার কথা নয়। ওই নকশাও বিকৃত করা হয়েছে।

[৪] মন্ত্রী বলেন, জিয়াউর রহমান যে জাতির পিতার খুনি এটা প্রমাণ করতে তথ্য প্রমাণের অভাব নেই। আমরা তখনই সফল হবো, যখন সংসদ চত্বর থেকে কুলাঙ্গারের কবর অপসারণ করতে পারবো।

[৫] তাজুল ইসলাম বলেন, মুক্তিযুদ্ধে মা বোনের ইজ্জত লুণ্ঠনকারী গাড়িতে স্বাধীনতার পতাকা উড়ানোর সুযোগ করে দেওয়া হয়েছে। জিয়াউর রহমানকে ইতিহাস বিকৃত করে স্বাধীনতার ঘোষক বানানো হয়েছে। এদেশকে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু যেভাবে সাজাতে চেয়েছিলেন, বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর আর সেভাবে করা হয়নি।

[৬] তিনি বলেন, একই সঙ্গে ঢাকা শহরের পরিকল্পনাও গতি হারিয়েছে। তবে আজকে বঙ্গবন্ধুর দর্শন ধারণ করে কাজ করায় বিশ্বের কাছে বাংলাদেশ আর ভিক্ষুকের জাতি না। বাংলাদেশ আজ অনেক এগিয়ে গেছে। এরই মধ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নেতৃত্ব দেওয়ার পর অনেক সমস্যার সমাধান হয়েছে।

[৭] আজ শুক্রবার রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে ‘ঢাকা শহরের জলাবদ্ধতা: সমস্যা ও প্রতিকার’ শীর্ষক সেমিনারে স্থানীয় সরকার মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

[৮] সেমিনারে আরও বক্তব্য রাখেন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র আতিকুল ইসলাম, বুয়েটের অধ্যাপক ড. মফিজুর রহমান, আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার আবদুস সবুর, আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মণ্ডলীর সদস্য অধ্যাপক ড. হোসেন মনসুর প্রমুখ। সম্পাদনা : খালিদ আহমেদ