প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] প্রাচীন যে ৮ আবিষ্কার চীনকে শ্রেষ্ঠত্ব দিয়েছে

মাকসুদ রহমান: [২] ১৯৪২ সালে প্রফেসর ড. জোসেফ নিধাম প্রথম বার চীন ভ্রমনে যান এবং প্রথম পশ্চিমা বিজ্ঞানী হিসেবে বিশ্বের উন্নয়নে চীনাদের অবদান ও অর্জনের উপর আলোকপাত করেন। উনি চৈনিকদের ইতিহাস, সংস্কৃতি ও ভাষাগত অর্জনকে তুলে ধরার জন্য চীনের ইতিহাস সমৃদ্ধ ২৭টি বই অনুবাদ করে ৭টি খন্ডে প্রকাশ করেন। উনার অনুদিত বইটির নাম দেন, ”সাইন্স এন্ড সিবিল ইজেশন ইন চায়ন”। এনসেইন্ট অরজিনস

[৩] প্রফেসর জোসেফের লেখা বইটিতে চীনের এমন আটটি প্রাচীন উদ্ভাবনী সাফল্যের উল্লেখ পাওয়া যায় যেটা সেই সময়কার ইউরোপীয়দের পক্ষে যা অর্জন করা কল্পনার বাহিরে ছিল।

[৪] কাগজ , টয়লেট পেপার, কাগজের মুদ্রা, মেনু কাগজের সাহায্যে অন্যান্য বিষয়গুলো প্রস্তুত করা হয় সেজন্য চীনাদের এই চারটি আবিষ্কারকে এক ক্যাটাগরিতে রাখা হয়েছে। যে সময়টাতে ইউরোপীয়রা মিশরীয়দের কাছ থেকে লেখার জন্য চামড়ার টুকরা কিনতে শুরু করে তখন চীনারা কাগজ ব্যবহার করতে শেখে এবং এটা ছিল টেকসই ও সহজে ব্যবহার যোগ্য। গবেষণা থেকে এটা নিশ্চিত হওয়া যায় চীনে লেখার জন্য কাগজের উৎপাদন শুরু হয় খ্রিস্টপূর্ব দ্বিতীয় শতাব্দিতে। অপর দিকে চীনের ইতিহাস বলে ১০৫ খ্রি¯টপূব্দে রাজা কাই লুনের শাসনামলে চীন কাগজ উৎপাদন শুরু করে। ইউরোপের ইতিহাস বলে পশ্চিমারা ১৪-১৫ শতাব্দিতে কাগজ ব্যবহারের সিন্ধান্ত নেয়।

[৫] টয়লেট পেপার ব্যবহার শুরু হয় চীন থেকে আনুমানিক ৮৫১ খ্রিস্টপূর্বব্দে এটা শুরু হয়। পশ্চিমারা ১৮৫৭ সাল থেকে টয়লেট পেপার ব্যবহার শুরু করে।
খ্রিস্টপূর্ব নবম শতাব্দি থেকে চীনারা কাগজের মুদ্রার ব্যবহার প্রচলন করে। তাদের মুদ্রা গুলো সাথে লেন দেন করার জন্য বিদেশী বনীকরা তখন ধাতব মুদ্রা ব্যবহার করতেন।
বাণিজ্যিক কারনে চীনে পর্যটন এলাকাগুলো বহিবিশ্বে পরিচিতি লাভ করতে শুরু করে, তখন চীনের খাবার দোকানগুলোতে খেতে যাওয়া বিদেশিরা মান্দারিন ভাষা না জানায় তাদের জন্য চীনারা ছবি সহ খাদ্য তালিকা তৈরি করতে শুরু করেন। ইতিহাস থেকে জানা সং রাজবংশের শাসনাম ৯৬০খ্রিস্টাব্দ থেকে ১২৭৯ খ্রিস্টাব্দ।

[৬] প্রিন্টিং ইতিহাসে প্রথম বই প্রিন্টি করার সাফলতা দেখা যায় ভারতীয়দের। ৮৫১ পূর্বাব্দে তারা হীরক সূত্র কাঠের উপর প্রিন্ট করে। তারও আগে চীনারা এই পদ্ধতিটির উদ্ভাবন করে। সাধারণত তখন কাঠের উপর খোদাই করে বর্ণগুলো উল্টোভাবে লেখা হত। খোদাই করা বর্ণের উপরে কালি পরার পর সেটার উপর থেকে কাগজে ছাপ নেয়া হত।

[৭] মদ ২০০৪ সালে ইউনির্ভাসিটি অব পেনসিলভানিয়ার একটি গবেষণায় চীনে প্রথম মদের অস্তিত্ব পাওয়া যায়। ৯০০০ বছরের পুরনো একটা জারে মদের অস্বিত্ত পাওয়া যায়। কাটাচামচপ্রত্নতত্ত্ববিদের আবিষ্কারে চীনের কিন শি হুয়াং আমলের একটি প্রাচীন মন্দির খুড়ে পাওয়া যায় কাটা চামচের অস্বিত্ব। হুয়াংরা ২৫৯ অব্দ থেকে ২১০ অব্দ পর্যন্ত শাসন করেছিল। তারও কয়েক শতাধিক বছর আগে থেকে চীনে কাটাচামচ ব্যবহৃত হয়ে আসছে।

[৮] কম্পাস কম্পাসের ইতিহাস থেকে জানা যায় আরবরা ইউরোপীয়দের কাছ থেকে প্রথম কম্পাস কিনে। কিন্তু চীন তারও আগে থেকে এর ব্যবহার করে আসছে। চীনাদের ইতিহাস থেকে জানা যায় তারা সাং রাজবংশের শাসনামল থেকে কম্পাস ব্যবহার করে আসছে। সাং বংশ খ্রিস্টপূর্ব দশম শতব্দিতে দেশটি শাসন করেছিল । সম্পাদনা: ফাহমিদুল কবীর

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত