প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] সিরাজগঞ্জে স্ত্রী হত্যার দায়ে স্বামী গ্রেপ্তার

সোহাগ হাসান : [২] হাসপাতালে ভর্তি থেকে বন্ধুদের দিয়ে পরিকল্পিতভাবে সৃষ্ট সড়ক দুর্ঘটনায় নিজের স্ত্রীকে হত্যা করালেন এক পাষন্ড স্বামী। এ ঘটনায় স্বামী তানভীর শেখ বাপ্পীকে (২২) হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র পেয়ে তাকে হাসপাতাল থেকে গ্রেপ্তার করে সদর থানা পুলিশ।

[৩] গ্রেপ্তারকৃত সিরাজগঞ্জ পৌর এলাকার দিয়ারধানগড়া (সর্দারপাড়া) গ্রামের পরিবহন নেতা দুলাল শেখ ওরফে দুলু শেখের ছেলে। ভিকটিম একই গ্রামের কালাম শেখের মেয়ে কামরুন নাহার কেয়া (১৯)। এঘটনায় নিহতর বাবা বাদী হয়ে বৃহস্পতিবার ২৩ সেপ্টেম্বর একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন মামলা নং-৬৭।

[৪] গত বুধবার সকালের কথিত সড়ক দুর্ঘটনায় আহত কেয়াকে জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করিয়ে দিতে আসা বাপ্পি তিন বন্ধুও এ মামলার সন্দেহভাজন আসামি। হাসপাতালের সিসিটিভি ফুটেজ দেখে আসামি হন তারা। মামলা দায়েরের পর তাদেরও খুঁজছে পুলিশ। দুর্ঘটনার একদিন আগেই হাসপাতালে ভর্তি হন বাপ্পী। ঘুমের ট্যাবলেট খেয়ে আত্নহত্যার চেষ্টায় বাপ্পীকে হাসপাতালে ভর্তি করেন তার নিকট স্বজনরা।

[৫] সদর থানার ওসি নজরুল ইসলাম বলেন, ‘ভিকটিমের বাবার পক্ষ্য থেকে মামলা হয়েছে। হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র দেবার পর বাপ্পীকে বৃহস্পতিবার দুপুরে এনে পুলিশ হেফাজতে রাখা হয়েছে। বুধবার সকালে কথিত দুর্ঘটনার পর কে বা কারা ভিকটিম কেয়াকে প্রথমে হাসপাতালে ভর্তি করে। পরে তাকে বগুড়া শজিমেক হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। পথে মারা যায় কেয়া। বিষয়টির তদন্ত শুরু হয়েছে। রহস্য উদ্ঘাটন বা আসামীরাও গ্রেপ্তার হবে।’

[৬] এদিকে, ভিকটিমের বাবা কালাম শেখ বলেন, ‘গত বছরের এপ্রিল মাসে একই গ্রামের দুলাল শেখ দুলুর ছেলে তানভীর শেখ বাপ্পীর সাথে বিয়ে হয় কেয়ার। বিয়ের পর থেকেই যৌতুকের জন্য চাপ দিতে থাকে বাপ্পী ও তার স্বজনরা। যৌতুক দিতে না পারায় কেয়ার উপর নির্যাতন চালায় শ্বশুর বাড়ীর লোকজন। গত দুমাস পর মেয়ে নিজে থেকেই বাড়িতে চলে আসে। কেয়া ইন্টারমেডিয়েটও পাস করেছে। বাপ্পীই বুধবার সকালে তার বন্ধুদের দিয়ে কেয়াকে কৌশলে ডেকে খুন করে। তারা দুর্ঘটনা দেখিয়ে কেয়াকে হাসপাতালে ফেলে চলে যায়।’

[৭] সদর থানার পরিদর্শক (অপারেশন) রবিউল হাসান বলেন, ‘হাসপাতালের সিসিটিভ ফুটেজও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। আরএমও ডা: ফরিদুল ইসলাম বলেন, হাসপাতালে ভর্তির পর কোন রোগী যদি কৌশলে সামাজিক অপরাধে জড়িয়ে পড়লে তার দায়ভার তার নিজেরই। অপরাধী হলে পুলিশ তদন্তে তা অবস্যই খুঁজে দেখবে।’ এদিকে, পরিবহন নেতা দুলাল শেখ বলেন, ‘ছেলের সাথে গত এক বছর থেকে সম্পর্ক না থাকলেও মেয়ে পক্ষ্য মিথ্যে যৌতুকের অপরাধ দিয়ে আমাদের ফাঁসানোর পাঁয়তারা করছে। সম্পাদনা: জেরিন আহমেদ

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত