প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] ডাকাতির জন্য শনিবারকে বেচে নিতো চক্রটি, গ্রেপ্তার ৩

মাসুদ আলম: [২] গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- জলিল মোল্লা, রিয়াজ ও দীপু। রাজধানীর মৌচাক ফ্লাইওভার ও নারায়নগঞ্জ জেলার সিদ্ধিরগঞ্জের সানারপাড় এলাকায় ডাকাতির ঘটনায় অস্ত্রসহ আন্তঃজেলা ডাকাত দলের ৩ সদস্যকে গ্রেপ্তার করেে গোয়েন্দা রমনা বিভাগ। বুধবার ঢাকা মহানগরী, সাভার ও যশোর জেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে তাদেরকে গ্রেপ্তার করা হয়। তাদের কাছ থেকে ডাকাতির ঘটনায় ব্যবহৃত ২টি বিদেশী রিভলবার, ৫০ রাউন্ড গুলি, ২টি মোটরসাইকেল ও লুন্ঠিত ১ লাখ টাকা উদ্ধার করা হয়।

[৩] বৃহস্পতিবার ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে সংবাদ সম্মেলনে ডিবির অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার হাফিজ আক্তার বলেন, গত ২৮ আগস্ট একজন ব্যবসায়ী মতিঝিলের নিহন মানি এক্সচেঞ্জ থেকে ৬০ লাখ টাকা নিয়ে গাড়িযোগে রওনা দেন। ৬ জন ডাকাত মোটর সাইকেলযোগে ওই ব্যবসায়ীর গাড়ি অনুসরণ করে মৌচাক ফ্লাইওভার এর উপর গাড়িটির গতিরোধ করে। ডাকাতরা আতংক সৃষ্টির জন্য ২ রাউন্ড ফাঁকা গুলি করে এবং হাতুড়ি দিয়ে গাড়ির দরজার গ্লাস ভেঙ্গে ফেলে। এসময় ডাকাতরা গাড়ির ব্যাকডালা খুলে ভিতর থেকে একটি কালো ব্যাগে রক্ষিত ৬০ লাখ টাকা নিয়ে পালিয়ে যায়।

[৪] তিনি আরো বলেন, এছাড়াও ওই ডাকাত দল গত ৪ সেপ্টেম্বর অপর এক ব্যবসায়ী মতিঝিল থেকে একটি ব্যাগে ২৫ লাখ টাকা নিয়ে যাওয়ার সময় ডাকাত দলের সদস্যরা ৩ টি মোটরসাইকেল যোগে তাকে অনুসরণ করতে থাকে। ব্যবসায়ী নারায়নগঞ্জ জেলার সিদ্ধিরগঞ্জের সানারপাড় পৌঁছামাত্র ডাকাত দলের সদস্যরা তার গতিরোধ করে ২৫ লাখ টাকা ছিনিয়ে নেয়। তাৎক্ষনিক পথচারীগণ জড়ো হয়ে প্রতিরোধ করতে চাইলে ডাকাতরা পথচারীদের লক্ষ্য করে ২ রাউন্ড গুলি ছুঁড়লে একজন পথচারী গুলিবিদ্ধ হয়।

[৫] ডিবি প্রধান বলেন, তারা সাধারণত সাপ্তাহিক ছুটির দিন বিশেষ করে শনিবারকে ডাকাতির জন্য বেছে নেয়। তারা প্রত্যেকেই পেশাদার ডাকাত দলের সদস্য। এই ডাকাত দলের একটি গ্রুপ মানি এক্সচেঞ্জ এলাকায় অবস্থান করে যে সকল ব্যবসায়ী অধিক পরিমাণে টাকা বহন করে তাদের টার্গেট করে। টার্গেটকৃত ব্যক্তির তথ্য তাদের সহযোগী মোটরসাইকেলে অবস্থানকারী গ্রুপকে প্রদান করে। তারা টার্গেটকৃত ব্যবসায়ীকে অনুসরণ করতে থাকে এবং সুবিধাজনক স্থানে পৌঁছলে ফাঁকা গুলি করে আতংক সৃষ্টির মাধ্যমে ওই ব্যবসায়ীকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে তার মূল্যবান জিনিসপত্র ও টাকা পয়সা ছিনিয়ে নিয়ে পালিয়ে যায়।

[৬] তিনি বলেন, জলিলের বিরুদ্ধে ৪টি মামলা ও অন্যান্যদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় একাধিক মামলা রয়েছে । ঢাকা মহানগরের যেকোনো এলাকায় ডাকাতি কিংবা কোনো গুলির ঘটনা ঘটলে কাউকে ছাড় দেযা হবে না।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত