প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ভাসমান কচুরিপানার বেডে সবজি বাগান

নিউজ ডেস্ক: চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ উপজেলার পাঁচটি ইউনিয়ন ও পৌরসভার সাফুয়া, ভাটিয়ালপুরে ভাসমান কচুরিপানায় সবজি চাষ করে লাভবান হচ্ছেন কৃষক। বিষমুক্ত এ সবজি পুরো জেলার চাহিদা মিটিয়ে অন্য জেলায়ও বিক্রি হচ্ছে। স্বাস্থ্যসম্মত সবজি বলে দূরদূরান্ত থেকে সচেতন ব্যক্তিরা এখানে এসে সবজি কিনছেন। মিষ্টিকুমড়া, লাল শাক, লাউ, শসা, পাট শাক, ধনেপাতা, কলমি শাক, সরিষা, ডাঁটা, কচু শাকসহ বিভিন্ন সবজি চাষ করে স্থানীয় কৃষক জীবনমান উন্নত করেছেন। বিষমুক্ত সবজি চাষ উদ্বুদ্ধকরণে কৃষি বিভাগ সার্বিক সহযোগিতা দিয়ে আসছে। বাংলাদেশ প্রতিদিন

কৃষি অফিস সূত্র জানান, এখানে সাড়ে ৬ একর জমিতে সারা বছর কৃষক ভাসমান কচুরিপানায় সবজি আবাদ করেন। ফরিদগঞ্জের ডাকাতিয়া নদী সংলগ্ন পতিত, অনাবাদি ও জলাবদ্ধ স্থানে নদীর কচুরিপানা স্তুপ করে ভাসমান বেডে কৃষক বীজ বপনের মাধ্যমে বিষমুক্ত সবজি উৎপাদন করেন। কৃৃষক আবদুল কাদের ও মনির হোসেন বলেন, ‘কৃষি অফিস আমাদের কচুরিপানার বেড তৈরি, জৈবসার, বিভিন্ন বীজ, জাল ও প্রশিক্ষণ দেয়। যে কোনো রোগবালাইয়ে পরামর্শ দেয়। আমরা এ সবজি নিজেরা খাওয়ার পাশাপাশি বাজারে বিক্রি করে উল্লেখযোগ্য অর্থ আয় করতে পারছি।’ উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আশিক জামিল মাহমুদ বলেন, ‘সোবান, রামপুর, ধানুয়া, শোল্লা, বাগপুর এবং পৌরসভার সাফুয়া ও ভাটিয়ালপুরে মোট সাড়ে ৬ একর জমিতে কচুরিপানা দিয়ে তৈরি বেডে ১১০ জন কৃষক শাকসবজি চাষাবাদ করেছেন। এতে তারা একদিকে অর্থনৈতিকভাবে লাভবান হচ্ছেন, অন্যদিকে বিষমুক্ত সবজি স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে বিভিন্ন উপজেলায় সরবরাহ করছেন। আমাদের মাঠপর্যায়ের উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তারা তাদের সার্বক্ষণিক পরামর্শ দিয়ে আসছেন।’

সর্বশেষ