প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মা ও নবজাতকের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় মিডওয়াইফদের অবদানের স্বীকৃতি প্রদানের লক্ষ্যে বিএমএস এর পক্ষ থেকে ক্রেস্ট ও সার্টিফিকেট প্রদান

এ বছর আন্তর্জাতিক মিডওয়াইফ দিবসের (আইডিএম) প্রতিপাদ্য বিষয় ছিল ‘Follow the data: Invest in Midwives’ বাংলায় “তথ্য উপাত্ত অনুসরণ করুন: মিডওয়াইফারি খাতে বিনিয়োগ করুন”। বিগত ৫ই মে, ২০১১ তারিখে, বিএমএস প্রায় ২৫৫ জন অংশগ্রহণকারীদের নিয়ে একটি অনলাইন জুম আইডিএম প্রোগ্রামের আয়োজন করেছিল। সেই কর্মসূচিতে, ডিজিএনএম -এর মহাপরিচালক সিদ্দিকা আক্তার তার বক্তৃতা দেন এবং পাঁচটি শ্রেণীতে কর্মদক্ষতার ভিত্তিতে মিডওয়াইফদের পুরস্কার ঘোষণা করেন। কিন্তু লকডাউনের কারণে বিএমএস পুরস্কারগুলো বিজয়ীদের কাছে এতদিন হস্তান্তর করতে পারেনি। যার কারণে গত সোমবার, ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০২১ তারিখে বিএমএস ব্র্যাক লার্নিং সেন্টার, উত্তরা, ঢাকায় একটি ক্রেস্ট সার্টিফিকেট বিতরণ এবং কৌশলগত পরিকল্পনা পর্যালোচনা সভার আয়োজন করে। উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে, শরণার্থী শিবিরে, টেলিমেডিসিনে, শিক্ষকতায় এবং ছাত্রী হিসেবে সেরা অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে যারা পুরস্কার পেয়েছেন তারা হলেন- সাথী খাতুন, মাকসুমা আক্তার, সঙ্গীতা সাহা প্রেমা, আসমা খাতুন এবং শারমিন আক্তার।

নবীন মিডওয়াইফদের নেতৃত্ব গঠনে বিএমএস প্রতিবছর, একবছর মেয়াদি একটি প্রশিক্ষণ কর্মসূচি পরিচালনা করে। গত বছর এই প্রোগ্রামটি যারা সাফল্যের সাথে সম্পন্ন করেছেন বিএমএস তাদেরকেও এই একই সভায় সার্টিফিকেট প্রদান করে। যারা সার্টিফিকেট পেয়েছেন তারা হলেন- মোসা. খাদিজা আক্তার, তাহমিনা আহমেদ বর্ণা, শান্তা ইসলাম, তানজিনা আক্তার, ঝুমুর রানী সাহা, লুবনা বেগম এবং আফরোজা বানু। বিএমএস-এর পক্ষ থেকে, মমতাজ বেগম, সভাপতি, মাহফুজা ঝুমু, সহ-সভাপতি, রেহেনা খানম, কোষাধ্যক্ষ, পিংকি দত্ত, যুগ্ম সম্পাদক, জান্নাতী লিমা, সাংগঠনিক সম্পাদক এবং শারমিন শবনম জয়া, প্রকল্প ব্যবস্থাপক মিডওয়াইফদের কাজের অনুপ্রেরণা ও উৎসাহ যোগানোর লক্ষ্যে এই পুরষ্কার এবং সার্টিফিকেট প্রদান করেন।

মিডওয়াইফদের মূল দ্বায়িত্ব প্রজনন স্বাস্থ্যসেবা প্রদান। বাংলাদেশের প্রায় প্রতিটি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স/সাবসেন্টার ও রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবিরগুলোতে মিডওয়াইফরা কাজে নিয়োজিত আছেন। নরমাল ডেলিভারি, গর্ভ পূর্ববর্তী ও পরবর্তী, স্বাস্থ্য সেবা, নবজাতকের স্বাস্থ্যসেবা, পরিবার পরিকল্পনা ইত্যাদি মিডওয়াইফারি সেবার আওতাভূক্ত। বর্তমানে প্রথম সারির করোনা যোদ্ধা হিসেবে মিডওয়াইফরা কোভিড-কর্নার ও করোনা-ভ্যাক্সিন প্রোগ্রামেও কর্মরত আছেন। বাংলাদেশ মিডওয়াইফারি সোসাইটি (বিএমএস) বাংলাদেশ সরকারের মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর অনুমোদিত বাংলাদেশের সকল মিডওয়াইফদেরকে নিয়ে প্রতিষ্ঠিত একটি পেশাদারী সংগঠন। বিএমএস রয়েল কলেজ অফ মিডওয়াইফস্ (আরসিএম) ইউকে-এর টুনিং প্রজেক্টের মাধ্যমে মিডওয়াইফারি পেশার স্বার্বিক উন্নয়ন ও প্রচারণায় কাজ করে চলেছে।

 

সর্বাধিক পঠিত