প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] মশার জ্বালায় অতিষ্ঠ চৌগাছা পৌরবাসী, নিধনে পদক্ষেপ নেই কর্তৃপক্ষের

র‌হিদুল খান: [২] যশোরের চৌগাছা পৌর এলাকায় মশার উপদ্রবে অতিষ্ঠি হয়ে উঠেছে জনজীবন। গুড়ি গুড়ি বৃষ্টির কারনে ভয়াবহ আকারে বৃদ্ধি পেয়েছে মশার বিস্তার। দিন রাতে সব সময় মশার কামড়ে নাজেহাল পৌরবাসী। দিনের বেলায়ও অফিস কিংবা বাসা বাড়িতে মশার কয়েল জ্বালিয়ে রাখতে হচ্ছে। আর একটু সন্ধ্যা হলেই মশার উপদ্রব বৃদ্ধি পাচ্ছে আরও কয়েক গুন। সারাদেশে ভয়াবহ আকারে ডেঙ্গু বিস্তার করলেও পৌর কর্তৃপক্ষ মশা নিধনে চলতি মৌসুমে এখন পর্যন্ত কোনো উদ্যোগ গ্রহণ করেনি।

[৩] চৌগাছা উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্স সূত্রে জানাগেছে উপজেলায় এখন পর্যন্ত ডেঙ্গু অক্রান্ত হয়েছেন চারজন । আক্রান্তরা হলেন, শহরের কলেজপাড়ার আবুল হোসেনের মেয়ে আফসানা খানম পায়েল (১৭), নারায়ণপুর গ্রামের আমির হোসেনের ছেলে আব্দুর রশিদ (১৩), স্বরুপদাহ ইউনিয়নের টেঙ্গুরপুর গ্রামের আকাশের ছেলে ঈশান (১৭ মাস) এবং একই এলাকার সুশান্তকুমারের মেয়ে সুস্মিতা (৪)। এদের মধ্যে আব্দুর রশিদকে যশোরে রেফার করা হয়েছে। এবং আফসানা খানম পায়েল স্বজনদের ইচ্ছায় যশোরে গিয়ে চিকিৎসা নিচ্ছেন। এ পর্যন্ত ডেঙ্গু আক্রন্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে এক জনের।

[৪] ১১.৬৯ বর্গ কিলোমিটারের আয়তনের পৌরসভায় ৯ টি ওয়ার্ডে প্রায় চল্লিশ হাজার লোকের বসবাস রয়েছে। কপোতাক্ষ নদ চৌগাছা পৌরসভাকে দুই ভাগে বিভক্ত করেছে । একসময় নদটি প্রবাহমান ছিল। কিন্তু দীর্ঘদিনের দখল ও দূষণে মরা খালে পরিণত হয়েছে। নদীর পানিতে প্রবাহ না থাকায় এবং দুই তী‌রে প্রচুর প‌রিমা‌নে আর্বজনা থাকার কার‌ণে মশা জ‌ন্মের আর্দশ স্থা‌নে প‌রিণত হ‌য়ে‌ছে। অন্যদিকে দীর্ঘদিন ধরে পৌরসভাও মশা নিধন করছে না। ফলে বেড়ে গেছে মশার উপদ্রব।

[৫] পৌর এলাকার মানুষের সাথে কথা বলে জানা গেছে, মশার উপদ্রব ব্যাপকভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। এতে মানুষের দৈনন্দিন কাজে ব্যাঘাত ঘটছে। কয়েল, স্প্রে বা মশারি টাঙ্গিয়েও মশার উৎপাত থেকে রেহাই পাওয়া যাচ্ছে না। বিশেষ করে সন্ধ্যার পর মশার উপদ্রব বেড়ে যাওয়ায় অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছেন পৌরবাসী। কেউই স্বাভাবিকভাবে কাজ করতে পারছেন না।

[৬] শিক্ষার্থীদের অভিভাবকরা উদ্বেগ প্রকাশ করে জানান, সারাদিন মশার উপদ্রব থাকলেও সন্ধ্যার পরপরই এই উৎপাত আরও ব্যাপকভাবে বৃদ্ধি পায়। ফলে সন্ধ্যায় মশার কয়েল জ্বালিয়ে বা স্প্রে দিয়ে শিক্ষার্থীদের পড়তে বসতে হচ্ছে। এমনকি মশার উৎপাতে নাজেহাল হয়ে মশারি টাঙ্গিয়ে ছেলে মেয়েদের লেখাপড়া করতে হচ্ছে। অনেকই মশার কামড়ে অসুস্থ হয়ে পড়ছে। এতে ডেঙ্গ ঝুঁকি বাড়ছে।

[৭] মশা নিধ‌নের ব‌্যাপা‌রে জান‌তে চাই‌লে পৌরসভার স‌চিব আবুল কা‌শেম ব‌লেন মশা নিধন প্রক্রিয়া চলমান আ‌ছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত