প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] প্রচলিত নিয়মেই নির্বাচন কমিশন গঠন করতে চায় সরকার, মানবে না বিরোধী দল ও সুশীল সমাজ

শিমুল মাহমুদ ও শরীফ শাওন: [২] আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘নতুন নির্বাচন কমিশন গঠনের প্রাক্কালে বিএনপি নতুন ষড়যন্ত্র শুরু করেছে। জাতীয় সংসদ নির্বাচন আসার আগেই বিএনপি নির্বাচন কমিশনকে বিতর্কিত করার চেষ্টা করছে।

[৩] শনিবার আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে দলের সম্পাদকমণ্ডলীর সভায় তিনি বলেন, রাষ্ট্রপতির আহ্বানে ও সব দলের সঙ্গে আলোচনা করেই সার্চ কমিটির মাধ্যমে নির্বাচন কমিশন গঠন করা হয়েছে। এবারও তাই হবে।

[৪] দলের প্রসিডিয়াম সদস্য ও কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক বলেন, তত্ত্বাবধায়ক নয়, হবে সাংবিধানিক সরকার। সংবিধানের আলোকে আগামী দিনে নির্বাচন হবে এবং সেটির দায়িত্ব পালন করবে নির্বাচন কমিশন। আর কোনো তত্ত্বাবধায়ক সরকার হবে না।

[৫] এ ব্যাপারে মানবাধিকারকর্মী খুশি কবির বলেন, কৃষি মন্ত্রীর এমন বক্তব্য অসাংবিধানিক। তাহলে তারা কি দেশের সংবিধানে পরিবর্তন নিয়ে আসবে? নির্বাচন কমিশন নিরপেক্ষ কিনা সেটা নিয়ে প্রশ্ন থাকলেও তাদের আলাদা সত্ত্বা রয়েছে। সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচনের দায়িত্ব নির্বাচন কমিশনের, যা সরকারের অধীন বা সরকার দ্বারা নিয়ন্ত্রিত না।

[৬] ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের (টিআইবি) নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, বর্তমানে আইনি যে কাঠামো রয়েছে- সে অনুযায়ি নির্বাচন হবে। এর বিকল্প হওয়ার কোনো সুযোগ নেই, যদি না সংবিধান পরিবর্তন করা হয়। নির্দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবি করলেই হবে না, এর জন্য পরিবেশ সৃষ্টি করতে হবে। যার কোনো সুযোগ আমি দেখছি না। নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন চাইলে সংবিধান পরিবর্তন করতে হবে, সে সম্ভাবনাও দেখছি না।

[৭] সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা ব্যারিস্টার মইনুল হোসেন বলেন, বর্তমান সরকার নির্বাচন ফেইস করার মতো সরকার নয়। জনগণকে ফেইস করার মতো সরকার নয়। এরা মুখে বড় বড় কথা বলে, কিন্তু সাহস পায় না। ভয়ে পুলিশি প্রটেকশন থাকে। নির্বাচনে যাওয়ার তাদের সাহস নাই। সরকারের যদি এতই জনপ্রিয়তা থাকে, তাহলে কেয়ারটেকার গভর্মেন্ট দিলে অসুবিধা কী?

[৮] বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, এ কথা প্রমাণিত সত্য যে, বর্তমান সরকারের অধীনে কোনো নির্বাচন অবাধ, নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করা সম্ভব নয়। আপনারা একরতফা আইন পাস করে নিয়ে যাবেন আপনাদের সুবিধার জন্য। সেই আইনের মধ্য দিয়ে নির্বাচন কমিশন গঠন করা হলে সেটাও এদেশের মানুষ মেনে নেবে না। নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকার ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন কমিশন এখন গণদাবি। সম্পাদনা: সালেহ্ বিপ্লব

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত