প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

খালিদ খলিল: পৃথিবীতে বেশকিছু জিনিস আবিষ্কৃত হয়েছে যা মানুষ আবিষ্কার করতে চাননি 

খালিদ খলিল: প্রত্যেক আবিষ্কারকই একটি সুনির্দিষ্ট লক্ষ্য নিয়ে গবেষণা চালান। তিনি কি আবিষ্কার করতে যাচ্ছেন এবং তা করতে তার কি কি উপাদান লাগতে পারে সেটা আগে থেকেই চিন্তা ভাবনা করে রাখেন। যদিও সব ক্ষেত্রে একজন উদ্ভাবক সফলতা পান না; তবু তিনি কী আবিষ্কার করতে যাচ্ছেন তা তার কাছে স্পষ্ট এবং সেই লক্ষ্যেই তিনি কাজ করেন।

কিন্তু মজার ব্যাপার হচ্ছে, পৃথিবীতে বেশকিছু গুরুত্বপূর্ণ জিনিস আবিষ্কৃত হয়েছে যা আসলে আবিষ্কার করতে চাননি আবিষ্কারক। যা হওয়ার তা হয়েছে দুর্ঘটনাবশত।

সুপার গ্লু
আমরা যে আঠাকে সুপার গ্লু নামে চিনি তার নাম হচ্ছে সিয়ানোএক্রিলেটস। ১৯৪২ সালে কোডেক ল্যাবরেটরিসে কাজ করছিলেন ড. হ্যারি কুভার ও তার সহকারী ফ্রেড স্বচ্ছ প্লাস্টিক আবিষ্কারের জন্য। তখন তিনি দেখতে পান নতুন তৈরি হওয়া পদার্থটি খুব বেশি আঠালো এবং তা সবকিছুতেই শক্তভাবে লেগে যাচ্ছে। ফালতু ভেবে প্রজেক্ট বাতিল করলেন কুভার। এর ঠিক ৬ বছর পর আবার একদিন কুভার কাজ করছিলেন বিমানের ককপিটের ওপর স্বচ্ছ আচ্ছাদন তৈরির জন্য। এক্ষেত্রেও তিনি সিয়ানোএক্রিলেটস ব্যবহারে একই সমস্যায় পড়েন। কোনো তাপ বা চাপ ছাড়াই এটি খুব বেশি আঠালো লাগছিল কুভারের কাছে। এবার আর ভুল করলেন না কুভার। প্রজেক্ট বাতিল না করে ৬ বছর আগের কথা মনে পড়ায় দুটি গ্লাসকে সিয়ানোএক্রিলেটস দিয়ে আটকানোর চেষ্টা করে সফল হলেন। ১৯৫৮ পেটেম্লট নিয়ে সুপার গ্লু নামে বাজারে ছাড়লেন নতুন এ আঠাকে।

■ ব্রান্ডি ■
বিশ্বের অন্যতম জনপ্রিয় এই পানীয় আবিষ্কার হয়েছে সম্পূর্ণ ভুলবশত। মধ্যযুগে ব্যবসায়ী বা নাবিকরা ওয়াইন জাহাজে করে সরবরাহ করার আগে ওয়াইন থেকে পানি বের করে নেয়ার জন্য বয়েল করত। কিন্তু একবার এক নাবিক যাকে ওয়াইন সিদ্ধ করার দায়িত্ব দেয়া হয়েছিল সে ভুলবশত তা না করেই কাঠের বাক্সে সংরক্ষণ করে। দীর্ঘদিন পর পান করার সময় তারা টের পায় এর টেস্ট সম্পূর্ণ আলাদা এবং আরও উপাদেয়। এভাবেই তৈরি হয় প্রথম ব্রান্ডি।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত