প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] ‘আওয়ামী লীগের মতো রাজনৈতিক দলে আদর্শভিত্তিক প্রার্থী কমে গেলে দলটি ভেতর থেকে ধসে যাবে’

ভূঁইয়া আশিক রহমান: [২] জনকল্যাণে কাজ করতে হলে জনগণের সঙ্গে থেকে কাজ করতে হবে। তাদের দুঃখ-কষ্টের ভাগিদার হতে হবে। বিপদ-আপদে এগিয়ে আসতে হবে। মাঠের রাজনীতি করে নেতৃত্বে এলে, এমপি-মন্ত্রী হলে জনগণ এর প্রকৃত সুফল পাবে বলে মনে করেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকেরা। ‘স্ট্রাগল’ করে রাজনীতিতে প্রতিষ্ঠার ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রীর মন্তব্য ইতিবাচক হলেও এতে মনোনয়ন বাণিজ্য বাড়ার শঙ্কাও প্রকাশ করেছেন তাঁরা।

[৩] ইতিহাসবিদ অধ্যাপক ড. সৈয়দ আনোয়ার হোসেনের মতে, ব্যবসায়ীদের প্রচুর বিত্ত থাকে। বিত্তের বিনিময়ে তারা মনোনয়ন নেন। কিন্তু ব্যবসায়ীরা ব্যবসায়িক কাজে ব্যস্ত থাকার কারণে অর্পিত দায়িত্ব পালন করতে পারেন না।

[৪] রাজনীতি ভেতর থেকে বদলাতে হবে। একটি ভালো লক্ষণ হলো কুমিল্লা-৭ উপনির্বাচনে বিখ্যাত চিকিৎসক প্রাণ গোপাল দত্তকে মনোনয়ন দেওয়া।

[৫] তিনি বলেন, ডা. প্রাণ গোপাল দত্তের মতো ভালো মানুষকে রাজনীতিতে নিয়ে আসতে হবে।

[৬] পরিবারভিত্তিক রাজনৈতিক সংস্কৃতি পরিবর্তনের ইংগিতই দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী ডা. প্রাণ গোপাল দত্তকে মনোনয়ন দেওয়ার মধ্যদিয়ে।

[৭] এতোদিন তো এমপি-মন্ত্রী মারা গেলে তাদের পরিবারের সদস্যেরই মনোনয়ন দিয়ে আসছিলো আওয়ামী লীগ। হঠাৎ করে এই বোধদয় হলো কেন! এমন প্রশ্ন রেখে লেখক ও গবেষক মহিউদ্দিন আহমদ বলেন, রাজনীতিতে গসিপ আছেÑ নির্বাচনে মনোনয়ন বাণিজ্য হয়। ফলে অনেক জায়গায় মনোনয়ন বিক্রি হয়। পারিবারিকভাবে মনোনয়ন দিয়ে দিলে হয়তো বিক্রির প্রশ্ন আসে না।

[৮] তিনি বলেন, স্ট্রাগল করে কে মনোনয়ন নিতে আসবেন। এ দেশে কোনো স্ট্রাগল আছে নাকি! দেশে তো কোনো দলই নেই, স্ট্রাগল কোথায় থাকবে। এখন তো সরকার ও প্রশাসন দল চালাচ্ছে। ফলে স্ট্রাগলের কোনো সুযোগই নেই।

[৯] ঢাকা বিশ্ব বিদ্যালয়ের আইন বিভাগের শিক্ষক ও রাজনৈতিক বিশ্লেষক অধ্যাপক ড. আসিফ নজরুল নির্বাচনের ব্যাপারে গভীর উষ্মা প্রকাশ করে বলেন, দেশে কোনো প্রকৃত নির্বাচন হয় না। ফলে নির্বাচনে এমপি-মন্ত্রীর ছেলে দাঁড়ালো, না নাতি দাঁড়ালো কিংবা ভালো মানুষ দাঁড়ালো- জনগণকে তা বিচার করার ভার দেওয়া হয় না।

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত