প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] কিশোরগঞ্জ উপজেলায় ক্লাশের জন্য প্রস্তুত ২৫৩ টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান

মো. খাদেমুল মোরসালিন: [২] নীলফামারী জেলার কিশোরগঞ্জ উপজেলার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলোতে নির্দিষ্ট স্থানে হাত ধোয়ার জন্য পানির ব্যবস্থাসহ হ্যান্ড স্যানিটাইজার ও প্রত্যেক শিক্ষার্থীদের জন্য মাস্ক ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়েছে।

[৩] শনিবার সকালে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ঘুরে দেখা গেছে, অনেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান স্কুলের ক্লাশ রুম, অফিস রুম, ওয়াশ রুম ও স্কুলের চারিদিকে পরিস্কার পরিচ্ছন্নতার কাজ শেষ করে সুন্দর পরিবেশ সৃষ্টি করে রেখেছে। স্কুলের চারপাশে জীবানুনাশক পাউডার দিয়ে ষ্প্রে করা হয়েছে। জীবানুনাশক পাউডার দিয়ে ক্লাশের ব্রেঞ্চ, টেবিল ও চেয়ার পরিস্কার করা হয়েছে। শিক্ষার্থীদের বসার জন্য সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে আসন সংখ্যা গুলো নতুন করে সাজানো হয়েছে।

[৪] ইতঃপূর্বে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলো পরিদর্শন করে সংশ্লিষ্ট দপ্তরের কর্মকর্তারা প্রতিষ্ঠান প্রধানদের বিভিন্ন পরামর্শ দিয়েছেন। প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকদের নিয়ে ক্লাষ্টারগুলোতে মিটিংয়ের মাধ্যমে নির্দেশনা দিয়েছেন সহকারী উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তারা।

[৫] উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার এ টি এম নূরুল আমিন শাহ্ বলেন, স্কুল গুলো কিভাবে চলবে সেই বিষয়ে ১৯ দফা নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে জরুরী সভার মাধ্যমে। এ সময় কিশোরগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শাহ্ মো. আবুল কালাম বারী পাইলট উপস্থিত ছিলেন। আশা করি শিক্ষার্থীদের ব্যাপারে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকরা যথাযথ দায়িত্ব পালন করবেন।

[৬] স্কুল খোলার কথা শুনে শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের মাঝেও স্বস্তি ফিরে এসেছে। শিক্ষার্থীরা আনন্দে উল্লসিত হয়ে পড়েছে। বৈশ্বিক করোনা ভাইরাসের কারণে দেড় বছর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকার কারণে অনেক শিক্ষার্থীদের মধ্যে পড়ালেখার প্রতি অনিহা দেখা দিয়েছে।

[৭] নয়ানখাল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক গোলাম মওলা ও নিতাই বাড়ী মধুপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কামরুন্নাহার রূপালী বলেন, স্কুল খোলার ব্যাপারে নির্দেশনা আসার পর থেকে স্কুলের ক্লাশ রুম, অফিস রুম, ওয়াশরুম ও স্কুলের মাঠ পরিস্কার করা হয়েছে। জীবানুনাশক পাউডার দিয়ে ক্লাশ রুমের ব্রেঞ্চ, টেবিল ও চেয়ার পরিস্কার করা হয়েছে।

[৮] উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা শরিফা আক্তার বলেন,২৭৬ টি প্রাথমিক বিদ্যালয় ইতঃপূর্বে পরিস্কার ও পরিচ্ছন্নতার কাজ শেষ করে পাঠদানের জন্য উপযোগী করে তোলা হয়েছে। আশা করি শিক্ষার্থীদের ক্লাশ করতে কোন সমস্যা হবে না।

[৯] সদ্য যোগদানকৃত কিশোরগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার নবীরুল ইসলাম বলেন, আগামী কাল (রবিবার) স্কুল খোলার পর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পরিদর্শনে যাব।

[১০] উল্লেখ্য যে, কিশোরগঞ্জ উপজেলায় মোট প্রাথমিক বিদ্যালয় ২৭৬ টি, মাধ্যমিক উচ্চ বিদ্যালয় ৪০টি, মাদ্রাসা ২৫টি ও কলেজ ১২ টি সারা দেশের সাথে একযোগে ১২ সেপ্টেম্বর খুলছে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। সম্পাদনা: সঞ্চয় বিশ্বাস

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত