প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] বগুড়ায় বাড়িতে ডেকে এনে মাদরাসার ছাত্রীকে দিনভর ধর্ষণ

আবদুল ওহাব: [২] বগুড়ার শাজাহানপুরে এক মাদরাসা ছাত্রীর সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলে বাড়িতে ডেকে এনে দিনভর ধর্ষণ করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার ডেমাজানি দক্ষিন পাড়া গ্রামে। অভিযুক্ত ধর্ষক রিফাত (১৭) দশম শ্রেনীর ছাত্র পলাতক রয়েছে। সে ওই  গ্রামের রফিকুল ইসলামের ছেলে।

[৩] সোমবার ৬ সেপ্টেম্বর এ অভিযোগে শাজাহানপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

[৪] নির্যাতিতা মাদরাসা ছাত্রীর মা জুলেখা বেগম জানান, তার মেয়ে কামিল মাষ্টার্সে লেখাপড়া করে। তাদের বাড়ি শেরপুর উপজেলার কানুপুর গ্রামে। পার্শবর্তী শাজাহারপুর উপজেলার ডেমাজানি গ্রামের রিফাত  প্রায় এক বছর যাবত তার মেয়ের সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলে। এ নিয়ে নিষেধ করা সত্বেও সে বারণ মানেনা। এরই ধারাবাহিকতায় শনিবার দিন সে বাড়িতে না থাকার সুযোগে তার মেয়েকে ভালবাসার প্রলোভন দিয়ে তাদের বাড়িতে নিয়ে যাওয়ার কথা বলে  পাশেই তার ফুফুর বাড়িতে নিয়ে যায়। এসময় ওই বাড়িতে কেউ না থাকায় দিনভর মেয়েটিকে ধর্ষন করে।

[৫] মেয়েটির খালা হালিমা জানান, ওই বাড়িতে কেউ থাকেনা। সারাদিন দুইজনে ঘরের ভিতরে ছিল। বিকেলে টের পেলে রিফাতের আত্মীয় স্বজনরা এসে রিফাতকে নিয়ে যায়। আর মেয়েটিকে তার পিতার বাড়িতে রেখে আসে। এরপর মেয়েটি সব হারিয়ে কাদতে থাকে এবং বাবা মাকে সব জানালে তারা এসে থানায় অভিযোগ দায়ের করে।

[৬] মেয়েটির নানা হাবিল মিয়া জানান, বিয়ের কথা বলে দিনভর তার সাথে শারীরিক সম্পর্ক করা হয়েছে। তাছাড়া রিফাতের পিতা-মাতা ও আত্নীয় স্বজনরা দাপুটে হওয়ায় নির্যাতিতা মেয়েটির কথা কেউ আমলে নেয়নি এবং জটিলতা থেকে বাঁচতে সন্ধ্যার পর জোড় করে মেয়েটিকে রেখে এসেছে। রিফাতের মা বাবা জানান, ওসব কিছু না। ছেলে মেয়ে ওসব একটু করেই থাকে।

[৭] এ বিষয়ে শাজাহানপুর থানার এসআই জেবুননেসা জানান, অভিযোগের পর নির্যাতিতা মাদরাসা ছাত্রীকে মেডিকেল রিপোর্ট ও জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ হেফাজতে নেওয়া হয়েছে এবং তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সম্পাদনা: সঞ্চয় বিশ্বাস

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত