প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

কর্নেল জয়নুল আবেদীনের তত্ত্বাবধানে চন্দ্রিমায় নামে জিয়ার মরদেহ: মেজর হাফিজ

নিউজ ডেস্ক: লে. কর্নেল জয়নুল আবেদীনের প্রত্যক্ষ তত্ত্বাবধায়নে জিয়াউর রহমানের মরদেহ চন্দ্রিমা উদ্যানে নামানো হয় বলে মন্তব্য করেছেন মুক্তিযুদ্ধে জেড ফোর্সের সদস্য ও বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মেজর (অব.) হাফিজ উদ্দিন আহমেদ বীর বিক্রম। জাগো নিউজ ২৪

বৃহস্পতিবার (২ সেপ্টেম্বর) দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে এক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

হাফিজ উদ্দিন আহমেদ বলেন, কবরে জয়নুল নিজেও নেমেছিলেন। অথচ তারা (আওয়ামী লীগ) বলে যে, কবরে মরদেহ নেই।

বিএনপির এই ভাইস চেয়ারম্যান উল্লেখ করেন, মুক্তিযুদ্ধে জিয়াউর রহমান জেড ফোর্সের অধিনায়ক ছিলেন। যারা অধিনায়ক হন তারা যুদ্ধ পরিচালনা করেন গুলি ছোড়েন না।

এদিকে সরকারের কয়েকজন মন্ত্রীর বক্তব্যের কঠোর সমালোচনা করেন বিএনপির আরেক ভাইস চেয়ারম্যান মেজর (অব.) শাহজাহান ওমর।

তিনি বলেন, কয়েকজন মন্ত্রী ইদানীং বলা শুরু করেছেন জিয়াউর রহমান সাহেব যে মুক্তিযোদ্ধা ছিলেন তার প্রমাণ দিতে হবে। আরে ব্লাডি ফুল তুমি কে? তুমি কি মুক্তিযোদ্ধা। ইউ হেভ বিন এ বিগ বডি রাজাকার। এই প্রশ্ন করার তুমি কে?

তিনি আরও বলেন, আসলে জিনিসটা কি জানেন? সবাই জিয়াউর রহমানকে ভয় পান। শেখ হাসিনা ঘুমাইতে পারেন না, আওয়ামী লীগ ঘুমাইতে পারে না। দরজা-জানালা সব আটকে ঘুমান। কারণ কী জানেন? কখন জিয়ার প্রেতাত্মা ঘুম থেকে উঠে মেরে ফেলে-এই ভয়ে দরজা-জানালা সব বন্ধ করে ঘুমান।

বিএনপি নেতাকর্মীদের উদ্দেশ করে শাহজাহান ওমর বলেন, আজ যত মানুষ এখানে আছেন, আপনারা যদি রাস্তায় একটা মিছিল করতে পারেন, তাহলে কিন্তু তাদের পলায়ন শুরু হয়ে যাবে। একবার সাহস করে রাস্তায় নামেন। মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসকে তারা (আওয়ামী লীগ) বিকৃত করেছেন। আসুন আমরা সবাই মিলে আরেকটি মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করি।

মির্জা ফখরুল ইসলামের সভাপতিত্বে ও প্রচার সম্পাদক শহিদউদ্দিন চৌধুরী ও সহ-প্রচার সম্পাদক আমিরুল ইসলাম আলীমের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান অধ্যাপক এজেডএম জাহিদ হোসেন, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য আমান উল্লাহ আমান ও আবদুস সালাম, যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, যুব দলের সাইফুল আলম নিরব, স্বেচ্ছাসেবক দলের আবদুল কাদির ভুঁইয়া জুয়েল, মহিলা দলের আফরোজা আব্বাস, মুক্তিযোদ্ধা দলের সাদেক আহমেদ খান, ছাত্রদলের ফজলুর রহমান খোকন প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

এই অনুষ্ঠানে বিএনপির শওকত মাহমুদ, খায়রুল কবির খোকন, সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স, শিরিন সুলতানা, এবিএম মোশাররফ হোসেন, আবদুস সালাম আজাদ, শহীদুল ইসলাম বাবুল, আকরামুল হাসান, নিপুণ রায় চৌধুরী, অবসরপ্রাপ্ত মেজর আক্তারুজ্জামান, বিএনপির বিভিন্ন অঙ্গসংগঠনের আমিনুল হক, রফিকুল আলম মজনু, হেলেন জেরিন খান, শাহ নেসারুল হক, রফিকুল ইসলাম মাহতাব, মুন্সি বজলুল বাসিত আনজু, এসএস জাহাঙ্গীর, ইকবাল হোসেন শ্যামলসহ কেন্দ্রীয় নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

সর্বাধিক পঠিত