প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] স্বাধীন কর্মকান্ড থেকে বিরত রাখতে জুলহাস-তনয়কে হত্যা: আদালত

খালিদ আহমেদ :[২] আদালত আরও বলেন, সমকামীদের নিয়ে র‌্যালি আয়োজনসহ সমকামীদের সমাজ প্রতিষ্ঠার আন্দোলনের কারণে জুলহাস মান্নান ও তার বন্ধু মাহবুব তনয়কে হত্যা করা হয়েছে। একাত্তর টিভি

[৩] মঙ্গলবার (৩১ আগস্ট) ঢাকার সন্ত্রাসবিরোধী বিশেষ ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. মজিবুর রহমান ঘোষিত রায়ে আরও বলেন, মূল হত্যাকারীসহ অত্র মামলার অভিযুক্ত আসামিদের অভিন্ন উদ্দেশ্য ছিল জননিরাপত্তা বিপন্ন করার জন্য আতঙ্ক সৃষ্টির মাধ্যমে মতামত প্রকাশ ও স্বাধীন কর্মকান্ড হতে বিরত রাখতে বাধ্য করার জন্য তাদেরকে হত্যা করেছে।

[৪] এদিকে রায়ের পর প্রতিক্রিয়ায় রাষ্ট্রপক্ষের প্রধান কৌঁসুলি আবদুল্লাহ আবু বলেন, বাংলাদেশের আইনে সমকামীতা নিষিদ্ধ। কেউ এ বিষয়ে প্রতিকার চাইলে আইনের আশ্রয় নিতে পারে। কিন্তু কোনভাবেই আইন নিজের হাতে তুলে নিতে পারে না।

[৫] ২৪ জন সাক্ষীর সাক্ষের ভিত্তিতে সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হওয়ায় ছয় জন আসামিকে যৌক্তিকভাবে মৃত্যুদÐ দেয়া হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, আনসার আল ইসলাম একটি জঙ্গী সংগঠন। দেশের প্রচলিত আইন না মেনে সন্ত্রাসী কর্মকান্ড পরিচালনার মাধ্যমে তারা বাংলাদেশকে একটি অকার্যকর রাষ্ট্রে পরিণত করতে চায়।

[৬] এদিকে মৃত্যুদÐের রায় হবার পরও আসামীদের মধ্যে কোন ভাবান্তর ও অনুশোচনা দেখা যায়নি জানিয়ে রাষ্ট্রপক্ষের এই আইনজীবী বলেন, কাঠগড়ায় দাঁড়িয়ে তারা হাসছিল। এতে প্রমাণিত হয় তারা কতোটা ভয়ঙ্কর।

[৭] এর আগে মঙ্গলবার সমকামী অধিকারকর্মী জুলহাজ মান্নান ও তার বন্ধু মাহবুব তনয় হত্যা মামলার রায় ঘোষণা ঘোষণা করে আদালত। এতে ছয় জনকে মৃত্যুদÐ ও দুইজনকে খালাস দেয়া হয়।

[৮] রায়ে মৃত্যুদÐপ্রাপ্তরা হলেন- চাকরিচ্যুত মেজর সৈয়দ মোহাম্মদ জিয়াউল হক ওরফে জিয়া, আকরাম হোসেন ওরফে হাসিব ওরফে আবির ওরফে আদনান ওরফে আবদুল্লাহ, মোজাম্মেল হুসাইন ওরফে সায়মন, আরাফাত রহমান ওরফে সিয়াম ওরফে সাজ্জাদ ওরফে শামস, শেখ আব্দুল্লাহ ও আসাদুল্লাহ।

[৯] এছাড়া খালাস পাওয়া দুইজন হলেন- সাব্বিরুল হক চৌধুরী, জুনাইদ আহমদ ওরফে মওলানা জুনায়েদ আহম্মেদ ওরফে জুনায়েদ।

[১০] ২০১৬ সালের ২৫ এপ্রিল রাজধানীর কলাবাগানের লেক সার্কাস রোডের বাড়িতে প্রবেশ করে সমকামীদের অধিকার নিয়ে কাজ করা জুলহাজ মান্নান ও তার বন্ধু থিয়েটারকর্মী মাহবুব তনয়কে কুপিয়ে হত্যা করা হয়।

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত