প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] পদ্মা সেতুর শেষ রোডওয়ে স্ল্যাব বসছে আজ, পূর্ণাঙ্গ হচ্ছে সড়কপথ

হাসান তাকী : [২] ধাপে ধাপে এগিয়ে চলেছে স্বপ্নের পদ্মা সেতুর নির্মাণকাজ। পদ্মা সেতুর সর্বশেষ রোডওয়ে স্ল্যাব (ডেক স্ল্যাব) বসছে সোমবার (২৩ আগস্ট)। মূল সেতুর দুই হাজার ৯১৭টি রোডওয়ে স্ল্যাবের মধ্যে দুই হাজার ৯১৪টি স্থাপন করা হয়ে গেছে। বাকি তিনটি স্থাপনের কাজ চলমান আছে। যার মধ্যে রাতেই বসানো হবে দুটি স্লাব। সোমবার সকাল নাগাদ সর্বশেষ স্ল্যাবটি বসানো সম্পন্ন হবে। ফলে ছয় দশমিক ১৫ কিলোমিটার সেতুতে পূর্ণাঙ্গ রূপ পেতে যাচ্ছে সড়কপথ।

[৩] এ খবর নিশ্চিত করেন পদ্মা সেতুর সহকারী প্রকৌশলী আহসান উল্লাহ মজুমদার শাওন। তিনি জানান, পদ্মা সেতুর প্রকল্প পরিচালক মো. শফিকুল ইসলামসহ প্রকল্পের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এ স্মরণীয় মুহূর্তে উপস্থিত থাকবেন।

[৪] পদ্মা বহুমুখী সেতু প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক মো. শফিকুল ইসলাম জানিয়েছেন, পদ্মা সেতুর মাওয়া প্রান্তের ১২ ও ১৩ নম্বর খুঁটির মাঝখানে টু-এফ স্প্যানটিতে মাত্র ৬ মিটার রোডওয়ে স্ল্যাব বসে গেলেই স্বপ্নের পদ্মা সেতুর সড়ক পথ নির্মাণ শেষ হবে।

[৫] শফিকুল ইসলাম আরও জানান, ‘সব ঠিকঠাক থাকলে দক্ষিণাঞ্চলের কোটি কোটি মানুষের ভাগ্য বদলে দেয়ার পদ্মা সেতু আগামী বছরের জুনের মধ্যেই খুলে দেয়া হবে।’

[৬] তিনি জানান, ২০১৮ সালের ১৪ সেপ্টেম্বর জাজিরা প্রান্তের ৩৭ ও ৩৮তম খুঁটির মাঝের স্প্যানে রেলওয়ে স্ল্যাব বসানো শুরু হয়েছিল। পদ্মা সেতুর সড়ক পথের ২৯১৭টি স্ল্যাবের মধ্যে ৮টি বসানো বাকি মাত্র। পদ্মা সেতুর সড়ক পথের ৪০টি স্প্যানে রোড স্ল্যাব বসে গেছে। সেতুর ৬ কিলোমিটারেরও বেশি এলাকায় এখন গাড়ি চলতে পারছে।

[৭] সেতু প্রকল্পের প্রকৌশলীরা জানিয়েছেন, চলতি বছরের জুলাই মাস পর্যন্ত সেতু প্রকল্পের সার্বিক কাজ এগিয়েছে ৮৭ দশমিক ২৫ শতাংশ। আর মূল সেতুর কাজের অগ্রগতি ৯৪ দশমিক ২৫ শতাংশ। অর্থাৎ মূল সেতুর কাজের আর বাকি মাত্র ৫ দশমিক ৭৫ শতাংশ।

[৮] পদ্মা সেতুর প্রকল্প সংশ্লিষ্টরা জানান, নির্ধারিত সময়ের একমাস আগেই স্ল্যাব বসানো সম্পন্ন হবে।

[৯] পদ্মা সেতুতে ২ হাজার ৯৫৯টি রেলওয়ে স্ল্যাব বসানো সম্পন্ন হয়েছে চলতি বছরের ২০ জুন। ১ হাজার ৩২৮টি রেলওয়ে স্টেনজারের উপর বসেছে ১৭ ফুট প্রস্থের রেলওয়ে স্ল্যাব। ফলে এখন সেতুর নিচতলা দিয়ে পায়ে হেঁটেই মাওয়া থেকে পদ্মা পার হয়ে জাজিরা প্রান্তে যাওয়া যাচ্ছে।

[১০] প্রায় ১৯ মিলিয়ন মার্কিন ডলারে পদ্মা সেতুতে গ্যাস পাইপলাইন স্থাপন করছে চীনা ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান চায়না পেট্রোলিয়াম পাইপ লাইন ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানি লিমিটেড।

[১১] এই প্রকল্পের পরিচালক সুন হুন্ডু জানান, প্রকল্পের মেয়াদ আগামী ডিসেম্বর। নির্ধারিত সময়ের মধ্যেই পাইপ লাইন স্থাপন সম্ভব।

[১২] প্রসঙ্গত, ২০২০ সালের ১০ ডিসেম্বর ছয় দশমিক ১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ পদ্মা সেতু পুরোপুরি দৃশ্যমান হয়েছিল। একইসঙ্গে চলতে থাকে রোডওয়ে ও রেলওয়ে স্ল্যাব বসানোসহ অন্যান্য কাজ। গত ২০ জুন পদ্মা সেতুর সব রেলওয়ে স্ল্যাব বসানো সম্পন্ন হয়েছিল। এ পর্যন্ত মূল সেতুর প্রায় ৯৪ দশমিক ২৫ ভাগ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। ২০২২ সালের জুন মাসের মধ্যেই পদ্মা সেতু যান চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করে দেয়ার কথা রয়েছে। বাংলাট্রিবিউন, সমকাল, জাগোনিউজ

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত