প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বিসিসি মেয়রের বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহার চেয়ে পরিচ্ছন্নকর্মীদের হুমকি

প্রশান্ত কুন্ডু: বরিশাল সিটি করপোরেশনের (বিসিসি) মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহর বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছেন বরিশাল সিটি করপোরেশনের পরিচ্ছন্নকর্মীরা। দাবি মানা না হলে তারা নগরীর ময়লা-আবর্জনা (বর্জ্য) পরিষ্কার করবেন না বলে হুমকি দিয়েছেন।

শনিবার (২১ আগস্ট) দুপুরে নগরীর অশ্বিনী কুমার হলের সামনে মানববন্ধন করে তারা এ হুমকি দেন। মেয়র সাদিক আবদুল্লাহ বিরুদ্ধে দায়ের হওয়া মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে সদর রোডে পরিচ্ছন্নকর্মী, বিসিসি কর্মকর্তা কর্মচারী এবং বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে শিক্ষক শিক্ষার্থীদের তিনটি মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

গত বুধবার রাতে সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) বাসভবনে ছাত্রলীগ-যুবলীগের হামলা ও পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষের ঘটনায় করা দুটি মামলায় সিটি মেয়র ও মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহকে প্রধান আসামি করা হয়। এর প্রতিবাদে বিসিসির কর্মকর্তা-কর্মচারীরা বৃহস্পতিবার থেকে কর্মবিরতি পালন করছেন। পরিচ্ছন্নকর্মীরাও নগরী পাড়া মহল্লা থেকে ময়লা-আবর্জনা অপসারণ থেকে বিরত রয়েছেন। টানা তিনদিন বর্জ্য অপসারণ না করায় গোটা নগরী দুর্গন্ধময় হয়ে উঠেছে।

শনিবার নগরীর বিএম কলেজ সড়ক, গোড়াচাঁদ দাস রোড, ব্রাউন কম্পাউন্ড নবগ্রাম রোডসহ বিভিন্ন সড়ক ঘুরে সড়কের পাশে বর্জ্যের স্তূপ দেখা গেছে। স্থানীয় বাসিন্দাদের বাসার ময়লা আবর্জনা এনে সেখানে ফেলছেন। বৃষ্টি এবং কুকুরে ময়লা-আবর্জনা ছড়িয়ে-ছিটিয়ে দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ৪৫ বর্গকিলোমিটার বিসিসি এলাকার সব জায়গাতে একই অবস্থা। বিসিসির কর্মীরা রুটিন অনুযায়ী প্রতিরাতে ওই বর্জ্য অপসারণ করে ট্রাকে তুলে কাউনিয়া ময়লা খোলার নির্ধারিত স্থানে ফেলে দিতেন। গত বৃহস্পতিবার থেকে পরিচ্ছন্নকর্মীরা ওই কাজ করছেন না।

শনিবার নগরীর অশ্বিনী কুমার হলের সামনে মানবন্ধনে অংশ নেয়া বিসিসির পরিচ্ছন্ন শাখার সহকারী কর্মকর্তা রেজাউল করীম ও শফিকুল আজম বলেন, বুধবার রাতে সদর উপজেলা পরিষদ চত্বরে পরিচ্ছন্ন কাজ চলার সময় তাদের ওপর হামলা ও গুলি করেছে উপজেলা পরিষদে দায়িত্বরত আনসার সদস্যরা। ওই ঘটনায় মেয়র সাদিক আবদুল্লাকে প্রধান আসামি করে দায়ের হওয়া মামলায় অজ্ঞাতনামা বিপুল সংখ্যক আসামি উল্লেখ করায় পরিচ্ছন্ন কর্মীরা গ্রেপ্তার আতংকে ভুগছেন।

এসব কারণে তারা পরিচ্ছন্ন কাজ থেকে বিরত রয়েছেন। মেয়রের বিরুদ্ধে দায়ের হওয়া মামলা প্রত্যাহার না হলে পরিচ্ছন্নকর্মীরা কাজে যোগ দেবেন না বলে জানিয়েছেন ওই দুই পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা।

এদিকে শনিবার দুপুরে সিটি করপোরেশনের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মানববন্ধনে বিপুল সংখ্যক পরিচ্ছন্নকর্মী অংশগ্রহণ করেন। নাম প্রকাশ না করার শর্তে কয়েকজন জানান, নগর পরিচ্ছন্ন না করার জন্য বিসিসির ভেতর থেকেই তাদের ওপর চাপ রয়েছে। চাকরি হারানোর আতঙ্কে তারা পরিচ্ছন্ন কাজ থেকে বিরত রয়েছেন। একই কারণে তারা মানববন্ধনে যোগ দিয়েছেন।

উল্লেখ্য, বিসিসির পরিচ্ছন্ন শাখায় অস্থায়ী নিয়োগ দেড় সহস্রাধিক কর্মী রয়েছে। তারাই প্রতিরাতে নগরীর সকল বর্জ্য অপসারণ করেন। সহকারী পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা রেজাউল করীম জানান, প্রতিদিন নগরীতে প্রায় আড়াইটন বর্জ্য অপসারণ করতে হয়।

এদিকে মেয়র সাদিক আবদুল্লাহর বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে শনিবার দুপুরে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে মানববন্ধন করেছে শিক্ষক-কর্মচারীরা। বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি আরিফ হোসেন ও ছাত্রলীগ নেতা আহমেদ সিফাত বক্তব্য দেন।

সর্বাধিক পঠিত