প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] ত্রিপক্ষীয় চুক্তি, দেশেই তৈরি হবে করোনা টিকা, যাবে বিদেশেও

শিমুল মাহমুদ ও মিনহাজুল আবেদীন: [২] দেশে চীনের সিনোফার্মের টিকা উৎপাদন করতে সিনোফার্ম, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় এবং ইনসেপ্টা ভ্যাকসিন লিমিটেডের মধ্যে একটি সমঝোতা চুক্তি সই হয়েছে। সোমবার (১৬ আগস্ট) বিকেলে রাজধানীর মহাখালীতে বাংলাদেশ কলেজ অফ ফিজিশিয়ান এন্ড সার্জন (বিসিপিএস) মিলনায়তনে এ চুক্তি সই হয়।

[৩] যৌথ ভ্যাকসিন উৎপাদনের ত্রিপক্ষীয় এ চুক্তিতে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক, চীনের রাষ্ট্রদূত লি জিমিং ও ইনসেপ্টা ভ্যাকসিন লিমিটেডের চেয়ারম্যান আব্দুল মুক্তাদির সই করেন। চুক্তি অনুযায়ী, ইনসেপ্টা তাদের প্ল্যান্টে প্রতি মাসে সিনোফার্মের ৫০ লাখ ডোজ টিকা উৎপাদন করবে। চীন থেকে আসবে টিকার মূল ওষুধ এবং দেশে বোতলজাত এবং মোড়কীকরণের কাজ সম্পন্ন করে পরিপূর্ণভাবে প্রস্তুত করবে।

[৪] সিনোফার্মের চেয়ারম্যান লিউ জিংযান বেইজিং থেকে যুক্ত হয়ে বলেন, প্রতিবেশী রাষ্ট্র হিসেবে বাংলাদেশের মানুষের পাশে দাঁড়ানো আমাদের দায়িত্ব। সেই লক্ষে সিনোফার্ম ১ কোটি ৩০ লাখের মতো টিকা বাংলাদেশে সরবরাহ করেছে এবং আরও ৯০ লাখ ডোজ সরবরাহের জন্য প্রস্তুত আছে। সব মিলিয়ে সিনোফার্ম বাংলাদেশকে ৬ কোটি ডোজ টিকা দেবে।

[৫] তিনি আরও বলেন, একই সময়ে আমরা ইনসেপ্টার সঙ্গে একটি সমঝোতা চুক্তি করেছি, যেখানে স্থানীয়ভাবে আধা প্রস্তুতকৃত উপাদান থেকে মূল টিকা প্রস্তুত এবং সরবরাহ করা হবে। চুক্তি স্বাক্ষরের পর বাংলাদেশে মাসে ৫০ লাখ টিকা প্রস্তুত এবং সরবরাহ করা হবে।

[৬] ইনসেপ্টা ভ্যাকসিন ও ইনসেপ্টা ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেডের চেয়ারম্যান আব্দুল মুক্তাদির বলেন, এই চুক্তি স্বাক্ষরের মাধ্যমে এক নতুন দ্বার উন্মুক্ত হলো। আমরা এই মুহূর্তে বলতে পারছি না কবে নাগাদ উৎপাদন শুরু করতে পারবো। কারণ এখানে কিছু টেকনিক্যাল বিষয় আছে এবং উৎপাদনের পর সরবরাহ ব্যবস্থা নিয়ে আলোচনার বিষয় আছে। তবে আমরা খুব শিগগিরই উৎপাদনে যাবো বলে আশাবাদী।

[৭] স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, চীন থেকে আমরা বাল্ক নিয়ে আসবো। এখানে ফিনিশড প্রোডাক্ট তৈরি হবে। হয়তো একটু সময় লাগবে কিন্তু আমরা বানাবো এবং বিদেশেও রপ্তানি করবো।

[৮] পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন বলেন, সরকার বিদেশ থেকে অনেক টাকা দিয়ে টিকা কিনে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সেটি বিনামূল্যে জনগণকে দেয়।

[৯] স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক এ বি এম খুরশিদ আলম চুক্তি সই অনুষ্ঠানের স্বাগত বক্তব্যে বলেন, ‘বাংলাদেশ সরকার এখান থেকে উৎপাদিত প্রয়োজনীয় ভ্যাকসিন কম মূল্যে কিনতে পারবে।’

[১০ ] এ সময় বিশেষ অতিথি হিসেবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন স্বাস্থ্যসচিব লোকমান হোসেন মিয়া। এ ছাড়াও, এ চুক্তি সই অনুষ্ঠানে বেইজিং থেকে অনলাইনে চীনের পররাষ্ট্র বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের এশিয়ান অ্যাফেয়ার্স বিভাগের উপমহাপরিচালক চেন সং, সিনোফার্মের চেয়ারম্যান লিউ জিংযান ও সিনোফার্মের চিফ ইঞ্জিনিয়ার ফু কুয়াং বক্তব্য দেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত