প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] ৯৯৯ এ ফোন: গুলশান থেকে ফিলিপিনো নাগরিকের মৃতদেহ উদ্ধার

সুজন কৈরী: [২]  জাতীয় জরুরী সেবা নম্বর ৯৯৯ এ ফোন পেয়ে রাজধানীর গুলশানের একটি বাসায় টয়লেটের জানালায় গলায় বেল্ট প্যাঁচানো ঝুলন্ত অবস্থায় এক ফিলিপিনো নাগরিকের মৃতদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। মৃত ফিলিপিনো নাগরিকের নাম- এলিনো চেনাই ইভলি (৬৫)।

[৩] ৯৯৯ এর মিডিয়া কর্মকর্তা পুলিশ পরিদর্শক আনোয়ার সাত্তার বলেন, রোববার রাত সাড়ে ৮টায় গুলশান এক নম্বরের ১২৫ নম্বর সড়কের ৮ নম্বর বাসা থেকে একজন ব্যক্তি ফোন করে জানান, সেখানে টয়লেটের ছোট জানালার গ্রীলের সাথে গলায় বেল্ট প্যাঁচানো অবস্থায় এক ফিলিপিনো নাগরিকের দেহ ঝুলে আছে। তিনি বেঁচে আছেন নাকি তারা বুঝতে পারছিলেন না। কারণ দেহটি দেয়ালের দিকে মুখ করে ঝুলে ছিলো। তারা শুধু শরীরের পেছনের দিকটা দেখতে পাচ্ছিলেন।

[৪] কলার আরও জানান, ফিলিপিনো নাগরিক কক্সবাজারের মাতারবাড়ি পাওয়ার প্ল্যান্ট প্রজেক্টে কসকো ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড কন্সট্রাকশন কোম্পানীতে ম্যানেজার হিসেবে কাজ করতেন। তিনি গতমাসের গোড়ার দিকে ফিলিপাইন যাওয়ার জন্য ঢাকায় এসে করোনা টেষ্ট করান। কিন্তু পজিটিভ হওয়ায় ফ্লাইট রেস্ট্রিকশনের জন্য তিনি দেশে যেতে পারেন নি। এরপর তাকে উত্তরার একটি বেসরকারী হাসপাতালে রেখে চিকিৎসা দেওয়া হয়। হাসপাতালে ২০ থেকে ২১ দিন চিকিৎসা নেওয়ার পর করোনা নেগেটিভ হলে ৩-৪ দিন আগে গুলশানের ওই বাসায় তাকে এনে হোম আইসোলেশনে রাখা হয়। কিন্তু বাসায় আসার পরও নানা রকম শারীরিক সমস্যার কারণে তাকে কয়েকবার চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হয়েছে।

[৫] রোববার বিকেলে তিনি টয়লেটে গেলে অনেক্ষণ পরও বের না হলে তারা ভেবেছিলেন তিনি অসুস্থ হয়ে গেছেন। তাই তারা অ্যাম্ব্যুান্স কল করেন। এরপর বাথরুমের দরজা খুলে এই অবস্থা দেখতে পেয়ে ৯৯৯ এ ফোন করেন।৯৯৯ তাৎক্ষণিক বিষয়টি গুলশান থানায় জানিয়ে দ্রæত ব্যবস্থা নেয়ার জন্য অনুরোধ জানায়। সংবাদ পেয়ে থানা পুলিশের একটি দল দ্রæত ঘটনাস্থলে যায়।

[৬] পরে গুলশান থানার এসআই নজরুল ৯৯৯ কে ফোনে জানান, তারা ঘটনাস্থল থেকে ফিলিপিনো নাগরিকের মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠিয়েছেন। প্রাথমিক ভাবে ধারণা করা হচ্ছে, ফিলিপিনো নাগরিক আত্মহত্যা করেছেন এবং বিকেল সাড়ে ৪টা থেকে ৫টার মধ্যে তিনি মারা গেছেন। পরবর্তী আইনী ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত