প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বিধিনিষেধ উঠতেই বায়ুদূষণ বেড়েছে ৩০ শতাংশ

নিউজ ডেস্ক: করোনা রোধে গত ২৩ জুলাই থেকে ১০ আগস্টের বিধিনিষেধ বদলে দিয়েছিল ঢাকার বাতাস। সেই সময় সতেজ হাওয়ায় নিঃশ্বাস নিতে পেরেছেন রাজধানীবাসী।

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক বায়ুমান পর্যবেক্ষণ সংস্থা আইকিউ এয়ারের জুলাই মাসের প্রতিবেদনে বলা হয়, বায়ুদূষণে শীর্ষে থাকা ঢাকা জুলাই মাসে পেয়েছে নির্মল বায়ু। তাদের মতে বায়ুদূষণ কমেছিল প্রায় ৩৫ ভাগ। তবে বিধিনিষেধ উঠে যাওয়ার ৪৮ ঘণ্টা পার না হতেই স্বরূপে ফিরেছে বায়ুদূষণ।

মেয়াদোত্তীর্ণ বাহন, অপরিকল্পিত নির্মাণ ও কারখানার দূষণ শুরু হওয়ায় ফের বায়ুদূষণ বেড়েছে বলে মনে করেন পরিবেশবিদরা।

বেসরকারি স্ট্যামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের বায়ুমণ্ডলীয় দূষণ অধ্যয়ন কেন্দ্রের (ক্যাপস) পরিচালক ও বিশ্ববিদ্যালয়টির অধ্যাপক ড. আহমদ কামরুজ্জমান মজুমদার জাগো নিউজকে বলেন, আমরা যদি বিধিনিষেধের আগের ও পরের তিনদিনের চিত্র দেখি তাহলে একটা পার্থক্য দেখতে পাব।

তিনি বলেন, আগস্ট মাসের প্রথম ১০ দিন বায়ুর মান ভালো ছিল আর পরের চারদিন খারাপ ছিল। বিধিনিষেধ উঠে যাওয়ার পরপরই বায়ুর মান খারাপ হতে শুরু করে।

ড. আহমদ কামরুজ্জমান মজুমদার আরও বলেন, জুলাই মাসের শেষ সপ্তাহে বায়ুর মান বিগত অনেক বছরের তুলনায় ভালো ছিল। কিন্তু এখন দূষণ আবার ৩০ শতাংশ পর্যন্ত বেড়েছে। ব্যাংক, শিল্প কলকারখানা খুলে দেয়ার পরেই এই দূষণ বেড়েছে।

যানবাহন চলাচল ও কারখানা চালু হবার সঙ্গে সঙ্গেই দূষণ ৩০ শতাংশ পর্যন্ত বেড়েছে বলে এই অধ্যাপক জানান।

মানুষের উপস্থিতির বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বায়ু দূষণ কমে এটা প্রমাণিত হয়েছে বলে যোগ করেন তিনি।

বায়ুদূষণের দিক দিয়ে ২০১৯ ও ২০২০ সালে বিশ্বে প্রথম কয়েকটি শহরের অন্যতম ছিল ঢাকা। চলতি বছরর করোনায় বিধিনিষেধ ইতিবাচক হয়ে উঠেছিল পরিবেশের জন্য।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত