প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আন্তর্জাতিক জাহাজ চলাচলে আর্কটিক খুলে দিতে চায় রাশিয়া

রাশিদ রিয়াজ : রাশিয়া তার উত্তরাঞ্চলের সমুদ্র রুটে আন্তর্জাতিক জাহাজ চলাচলের জন্যে উন্মুক্ত করতে চায়। আর্কটিকে সারাবছর মালামাল পরিবহন করা যাবে। আন্তর্জাতিক নৌ চলাচল রুট হিসেবে ওই রুট চালু করলে তা আন্তর্জাতিক ট্রানজিট করিডোরে রুপ নেবে। রাশিয়ার প্রথম ডেপুটি প্রধানমন্ত্রী আন্দ্রে বেলুসোভ রাশিয়া টুয়েন্টি ফোরকে দেওয়া এক সাক্ষাতকারে বলেন আন্তর্জাতিক নৌ রুট হিসেবে ওই রুট চালু করতে তার দেশে প্রয়োজনীয় অবকাঠামো উন্নয়ন ছাড়াও আধুনিক জাহাজ চলাচল ব্যবস্থায় সব ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এজন্যে পারমানবিক শক্তি চালিত বরফ ভাঙ্গার জাহাজ নামানো হবে ওই রুটে। এধরনের জাহাজ আর্কটিকের বরফ ভেঙ্গে সেখানে জাহাজ চলাচল চালু রাখার ব্যবস্থা নিশ্চিত করবে। সহজে যাতে মালামাল পরিবহনকারী জাহাজ চলাচল করতে পারে এজন্য ডিজিটাল প্লাটফর্ম চালু করা হবে। আরটি

তবে আর্কটিকে এধরনের রুট চালু করতে ১০ বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ করবে রাশিয়া। এ বিনিয়োগ থেকে আয়ও হবে বিশাল বলে মনে করছে রাশিয়ার নীতি নির্ধারকরা। এধরনের রুট চালু হলে বছরে ৩০ মিলিয়ন টন মালামাল পরিবহন করা যাবে। ২০২৪ সালে তা বৃদ্ধি পেয়ে দাঁড়াবে ৮০ মিলিয়ন টন। ২০৩০ সাল নাগাদ মালামাল পরিবহনের পরিমান দাঁড়াবে দেড়শ মিলিয়ন টন। এবং সারা বছর কঠিন বরফ ভেঙ্গে জাহাজ চলাচল করতে পারবে। রাশিয়ার আর্কটিক উপকূল এবং সাইবেরিয়া বরাবর নোভা জেমলিয়ার পূর্ব দিকে কারা সাগর থেকে বেরিং প্রণালী পর্যন্ত অবস্থিত। রুটটি আর্কটিকের রাশিয়ার একচেটিয়া অর্থনৈতিক অঞ্চলের মধ্যে অবস্থিত। এটি রাশিয়ার সুদূর পূর্ব দিককে দেশটির ইউরোপীয় অংশের সাথে সংযুক্তকারী তিনটি পরিবহন রুটগুলির মধ্যে একটি। রাশিয়া ২০৩০ সালের মধ্যে দেশটির পরিবহন করিডোরের পুরো ব্যবস্থাটি সংস্কার করতে চলেছে, যার মধ্যে রয়েছে বৈকাল-আমুর এবং ট্রান্স-সাইবেরিয়ান রেলপথ। এছাড়া একটি মোটরওয়ে যা ফিনল্যান্ডের সাথে রাশিয়ার সীমান্তকে পশ্চিম সাইবেরিয়ার সাথে সংযুক্ত করেছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত