শিরোনাম

প্রকাশিত : ০১ আগস্ট, ২০২১, ১২:২৬ দুপুর
আপডেট : ০১ আগস্ট, ২০২১, ১২:৩৬ দুপুর

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

[১] রাজবাড়ীতে আক্রান্ত ২৫৬, সংক্রমণের হার ৩৫ দশমিক ১২ শতাংশ

মো.ইউসুফ মিয়া: [২]  গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে আ‌রো ২ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়ালো ৬৬ জনে। এ সময় ৭২৯ জনের নমুনা পরীক্ষায় আরও ২৫৬ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। বর্তমা‌নে এ পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা ৮ হাজার ৬৮৬ জনে।জেলায়  সংক্রমণের হার ৩৫ দশমিক ১২ শতাংশ।

[৩] হাসপাতা‌লে চি‌কিৎধীন অবস্থায় ক‌রোনাভাইরা‌সে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়। তারা হ‌লো- রাজবাড়ী সদর উপজেলার রমাকান্তপুরের বাসিন্দা মোছাম্মৎ আছিয়া খাতুন (৬৫) ও পাংশা উপজেলার বিষ্ণুপুরের বাসিন্দা আলিমুদ্দিন বিশ্বাস (৭০)। এরা দুই জনি করোনা পজিটিভ নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন।

[৪] শনিবার(৩১ জুলাই) সন্ধ‌্যায় বিষয়‌টি নি‌শ্চিত ক‌রে জানান, জেলা সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ ইব্রাহিম টিটন।

[৫] জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় আরটিপিসিআর ল্যাব টেস্টে ৪৫৭টি নমুনার মধ্যে ১৮২ জনের শরীরে করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয় এবং র‍্যপিড এন্টিজেনে ২৭২টি নমুনা পরীক্ষা করা হলে ৭৪ জনের করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়। এদের মধ্যে রাজবাড়ী সদর উপজেলায় ৮৩, পাংশায় উপ‌জেলায় ১০৪, কালুখালি উপ‌জেলায় ২৪, বালিয়াকান্দি উপজেলায় ৩১, গোয়ালন্দ উপ‌জেলায় ১৪ জন।

[৬] জেলায় করোনাভাইরা‌সে আক্রান্ত হ‌য়ে এ পর্যন্ত মোট মৃত্যু হয়েছে ৬৬ জনের। মৃতদের মধ্যে রাজবাড়ী সদর উপজেলায় ৩৭, পাংশা উপজেলায় ২০, বালিয়াকান্দি উপজেলায় ২, কালুখালি উপজেলায় ৫ ও গোয়ালন্দ উপজেলায় ২ জন ক‌রোনাভাইরা‌সে আক্রান্ত হ‌য়ে মারা যান।

[৭] জেলায় এ পর্যন্ত ৩২ হাজার ১০৮টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এর মধ্যে করোনা পজিটিভ হয়েছে ৮ হাজার ৬৮৬ জন। জেলায় করোনায় আক্রান্তদের মধ্যে এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৬ হাজার ৯৬৫ জন। বর্তমানে হোম আইসোলেশনে চিকিৎসা নিচ্ছেন ১ হাজার ৫৯৭ জন ও হাসপাতালে ভর্তি হয়ে চিকিৎসাধীন রয়েছেন ৫৮ জন। এদের মধ্যে সদর হাসপাতালে করোনা ইউনিটে ২২ জন ও গোয়ালন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ৪, বালিয়াকান্দি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ৩, কালুখালি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ২০ ও পাংশা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ৯ জন চিকিৎসাধীন আ‌ছে।

[৮] সিভিল সার্জন ডা. মো.ইব্রাহিম টিটন বলেন, রাজবাড়ী জেলায় করোনা ভাইরা‌স ঠেকাতে জনসাধারণ‌কে জরুরী প্রয়োজন ছাড়া সবাইকে ঘরে থাকতে হবে এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনেই চলাচল কর‌তে হবে। স্বাস্থ‌্যবি‌ধি না মান‌লে পরিস্থিতি জেলায় আ‌রো বে‌ড়ে যাওয়ার সম্ভবনা বেশি। আস‌লে জীবন বাঁচাতে হ‌লে সবাই মি‌লে স্বাস্থ‌্যবি‌ধি মানাটাই জরু‌রি মান‌লে ভা‌লো না মান‌লে খারপের দি‌কে যা‌বে। সম্পাদনা: হ্যাপি

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়