প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজে স্পোর্টিং উইকেট চায় সুজন

রাহুল রাজ: [২] বাংলাদেশের বিপক্ষে পাঁচ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ ৩ আগষ্ট থেকে মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে। চার বছর পরে বাংলাদেশ সফরে এসেছে অস্ট্রেলিয়া। ২০১৭ সালে বাংলাদেশের মাটিতে স্পিনে কুপোকাৎ হয়ে তিন দিনেই টেস্ট হারে ক্যাঙ্গারু বাহিনী। টেস্ট বা টি-টোয়েন্টি দেশের মাটিতে ফাস্ট বোলারদের থেকে অনেকটাই এগিয়ে রয়েছে স্পিনাররা।

[৩] দুবাইয়ে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে দেশের মাটিতে মোট ১৩ টি টি- টোয়েন্টি ম্যাচ খেলবে টিম টাইগার। তাই বিশ্বকাপে আগে প্রস্তুতি হিসেবে অস্ট্রেলিয়া, নিউ জিল্যান্ড এবং ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলবে রিয়াদ বাহিনী।

[৪] দলের আত্মবিশ্বাস বাড়াতে দেশের সেরা অস্ত্র ব্যবহার করতে চান বাংলাদেশ জাতীয় দলের প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু। তিনি বলেন, আমাদের শক্তির জায়গা স্পিন। দলে ভালো মানের স্পিনার রয়েছে। তাদেরকে নিয়ে পরিকল্পনা করে আমাদের এগিয়ে যাওয়া উচিত। স্বাগতিক দেশ হিসেবে এসব সুবিধা তো আমাদের নেওয়া উচিত। তবে বিশ্বকাপের প্রস্তুতি হিসেবে স্পোর্টিং উইকেট চান ক্রিকেট বোর্ডের পরিচালক খালেদ মাহমুদ সুজন। এবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হবে সংযুক্ত আরব আমিরাত এবং ওমানে। সেখানে উইকেট-এর সাথে মিল রেখেই সিরিজ খেলা উচিত বলে মনে করেন জাতীয় দলের সাবেক এই অধিনায়ক। ঢাকা লিগের উইকেটগুলো কিন্তু স্পোর্টিং ছিল। ছেলেরা খেলে মজা পেয়েছে। বল কিন্তু স্পিনও করেছে। আবার পেসাররাও ভালো করেছে। এরকম উইকেটে খেলে অভ্যস্ত হওয়া উচিত। কারণ সামনে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। সেখানকার উইকেট কিন্তু আইসিসির কিউরেটর বানাবে। ফলে দীর্ঘমেয়াদে সাফল্যর জন্য স্পোর্টিং উইকেটে খেলা ভালো। আমার বিশ্বাস স্পোর্টিং উইকেটে খেললেও বাংলাদেশ ম্যাচ জিতবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত