প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] দ্রুত জলবায়ু পরির্বতনে এবছরই ইন্দোনেশিয়াসহ কিছু দেশে একাধিক বার ভূমিকম্প সংঘটিত হচ্ছে, যুক্তরাষ্ট্রের ভূতত্ত্ব বিভাগ

শ্রাবণী কবির: [২] যুক্তরাষ্ট্রের ভূতত্ত্ব বিভাগ জানায়, এবছর ইন্দোনেশিয়া, তাজিকিস্থান, ফিলিপাইন,তুরস্ক এবং ভারতসহ বেশ কিছু স্থানে শক্তিশালী ভূমিকম্প অনুভূত হয়। এই সকল ভূমিকম্পের জন্য দায়ী দ্রুত পরির্বতনশীল জলবায়ু। জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে প্রশান্ত মহাসাগরের রিং অব ফায়ারে আশেপাশে অবস্থিত দেশগুলোতে প্রায় প্রতিনিয়ত আগ্নেয়গিরির বিস্ফোরণ ও ভূমিকম্পের ঘটনা ঘটে, কিন্তু এবছরে ইন্দেনেশিয়াতেই ভূমিকম্প হয়েছে কমপক্ষে ৩ থেকে ৪ বার। স্পুটনিক নিউজ

[৩] সোমবার ইন্দোনেশিয়ার দক্ষিণ সুলাওসি দ্বীপে ৫.৭ মাত্রার ভূমিকম্প অনুভূত হয় যার গভীরতা ১৮ কিলোমিটার পর্যন্ত। এখনো পর্যন্ত কোনো ক্ষয়ক্ষতির সংবাদ পাওয়া যায়নি।

[৪] রোববার ভারতে ৪ মাত্রার ভূমিকম্প হয় যার গভীরতা ১১ কিলোমিটার পর্যন্ত ছিলো। ভারতের প্রায় ৮টি শহরে ভূমিকম্প অনুভূত হয়েছে বলে জানায় দেশটির ন্যাশনাল সেন্টার ফর সিসমোলজি।

[৫] শনিবার ফিলিপাইনের উত্তরাঞ্চলীয় দ্বীপ লুজনে প্রথম ভূমিকম্পটি অনুভূত হয়, যার মাত্রা ছিলো ৬.৭। এর কিছুক্ষণ পর একই স্থানে ৫.৮ মাত্রার আরো একটি ভূমিকম্প হয় যার গভীরতা ছিলো ১১২ কিলোমিটার পর্যন্ত। এনডটিিিভ

[৬] ২০১৮ সালে ইন্দোনেশিয়ায় একটি শক্তিশালী ভূমিকম্প হয় যাতে ৫৫০ জন মানুষ মারা যায়। ২০১৯ সালে ৭.৫ মাত্রার ভূমিকম্পের পর সুনামিতে ৪ হাজার ৩০০ জন মানুষ নিখোঁজ হয়। চলতি বছরের জানুয়ারিতে শক্তিশালী ভূমকিম্প হয়, যার তীব্রতার মাত্রা ছিলো ৬.২ এবং সেখানে ১০০ মানুষ মারা যায়। হাজারেও বেশি মানুষ গৃহহীন হয়। ১০ জুলাই ভূমিকম্পের মাত্রা ছিলো ৬.১ এবং ভূমিকম্পটি দক্ষিণ মানাডে নামক অঞ্চলের ২৫৮ কিলোমিটার পর্যন্ত আঘাত হানে। যার গভীরতা ছিলো ৬৮ কিলোমিটার পর্যন্ত।

[৭] আল জাজিরার প্রতিবেদনে জানানো হয়, ১০ জুলাই তাজিকিস্তানেও ৫.৯ মাত্রায় ভূমিকম্প হয়। ভূমিকম্পটি পূর্ব রাস্ট এর ২৭ কিলোমিটার পর্যন্ত এবং তাজিকিস্থানের রাজধানী ডুসানবের ১৬৫ কিলোমিটার র্পযন্ত আঘাত হানে। কম্পনের গভীরতা ১০ কিলোমিটার পর্যন্ত অনুভূত হয়েছে এবং মারা গেছে ৫ জন। স্থানীয়রা জানায়, ব্যাপক ঘর-বাড়ি ধ্বংস হয়েছে এবং বৈদ্যুতিক লাইনগুলোও ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। সম্পাদনা: সাকিবুল আলম

 

 

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত