প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

জান্নাতুন নাঈম প্রীতি: মেয়েরা, চুপ করে থাকবেন না, একটা বদমাশকে ধরিয়ে দিলে আপনার মানইজ্জত শেষ, এই ধারণা থেকে বের হয়ে আসেন

জান্নাতুন নাঈম প্রীতি: বুয়েটের জারিফ হোসাইন নামের সিএসই ডিপার্টমেন্টের একটা ছেলে ক্রমাগত একটা মেয়েকে ইনবক্সে বিরক্ত করেই যাচ্ছে, অশ্লীল ভিডিও দিচ্ছে এবং তার বন্ধুরা তাকে মেয়েটা ‘না’ বলা সত্ত্বেও আরও বিরক্ত করার পরামর্শ দিচ্ছে- এরকম অসংখ্য স্ক্রিনশট আমার ওয়ালে ঘুরে বেড়াচ্ছে। এইটা কেন হইছে তা জানেন? এইটা থেকে বাঙালি বেশির ভাগ পুরুষের একটা বৈশিষ্ট্য আলাদা করতে পারবেন। সেটা হলো- তারা কন্সেন্ট বা সম্মতি বোঝে না এবং একটা মেয়ে যখন ‘না’ বলতেছে, বারবার লিখতেছে ‘নট ইন্টারেস্টেড’ তখন তারা চিন্তা করতেছে সে আরও অশ্লীল কিছু করলে মেয়েটা পটে যাবে!
এইটার সঙ্গে রেপিস্টদের সাইকোলজির মিল দেখতে পান না? রেপিস্টরাও এই একই কাজ করে। নিজেদের শক্তি দেখানো। অথচ রেপের সঙ্গে সেক্সের সম্পর্ক নেই একবিন্দুও। দ্বিতীয়ত বেশির ভাগ বাংলাদেশি বাপ-মা মনে করে ছেলেপেলের জীবনে প্রেম-ভালোবাসার কোনো দরকার নেই। সারাদিন লেখাপড়া করুক। ছেলে-মেয়েদের মেলামেশার দরকার নেই। এর ফলে তারা জানে না কেমন করে মানুষের সঙ্গে কথা বলতে হয়, কেমন করে নিজের পরিচয় দিতে হয়। ফলে এইরকম নামমাত্র মেধাবী ছেলেপেলে ভাবে নিজের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের নাম আর রেজাল্ট কইলেই মেয়ে ইম্প্রেসড হয়ে যাবে! যখন দেখে কাজ হচ্ছে না তখন শুরু করে জোর করা।
স্ক্রিনশটগুলো দেখেন, দেখবেন ওই ছেলেও একই কাজ করছিলো। আমি মেয়েদের সবসময় পরামর্শ দিই এই লোকগুলাকে এক্সপোজ করে দিতে। তারা সবচেয়ে বেশি ভয় পায়- ধরা খাওয়া আর মেয়েদের চিৎকার। আমার মনে আছে, এক লোককে আমি বাসের মধ্যে ধরছিলাম যে আমার ড্রেসের মধ্যে হাত দিচ্ছিলো। আমি চিৎকার করে লোক জড়ো করছি এবং ইচ্ছেমতন চড়াইছি। সেই লোক সুড়সুড় করে বাস থেকে নেমে গেছে। অথচ চিৎকার শুরুর আগে সেই লোক কিন্তু শুরুতে আমাকে বলেছিলো, আপনি এরকম পোশাক পরেছেন কেন? আমি তারে চিল্লায়ে কইছি, আমি দরকার হইলে ন্যাংটো হয়ে দাঁড়ায়ে থাকবো, কিন্তু তুই আমার গায়ে হাত দিবি ক্যান? মেয়েরা, চুপ করে থাকবেন না। একটা বদমাশকে ধরিয়ে দিলে আপনার মানইজ্জত শেষ, এই ধারণা থেকে বের হয়ে আসেন। আপনার মান-ইজ্জতের দাম এতো কম না যে একটা হারামি আপনাকে জ্বালাইলে আর সেই কথা প্রকাশ করলে মানইজ্জত সিমেন্টের দেয়ালের মতো খসে পড়ে। একটা বদমাশকে ধরিয়ে দিলে সম্মান কমে না, বরং বাড়ে বহুগুণে- এইটা আপনি কবে থেকে বুঝবেন? ফেসবুক থেকে

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত