প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] প্রথম তিব্বত সফরে শি জিন পিং

রাশিদুল ইসলাম : [২] চীনের প্রেসিডেন্ট হিসেবে এটাই শি জিন পিংয়ের প্রথম তিব্বত সফর। এর আগে ১৯৯৮ সালে পার্টির নেতা হিসেবে তিব্বত সফর যান। পরে ২০১১ সালে সফর করেন চীনের ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে। ১৯৯০ সালে সর্বশেষ চীনের প্রেসিডেন্ট জিয়াং জেমিন তিব্বতে যান। গত তিন দশকের বেশি সময়ের মধ্যে এটিই ছিল চীনের শীর্ষ কোনো নেতার তিব্বত ভ্রমণ। সিসিটিভি

[৩] গত বুধবার তিব্বতের দক্ষিণপূর্বে নিয়াংঝি মেইনলিং বিমানবন্দরে পৌঁছান শি। তিব্বতের ঐতিহ্যবাহী পোশাক পরে, চীনের পতাকা উড়িয়ে তাকে লালগালিচা সংবর্ধনা জানান স্থানীয় বাসিন্দারা। শি ইয়াং সেতু পরিদর্শন করেন। সেখান থেকে তিনি ইয়ারলুং সাংপো ও ইয়ান নদীবাহিত এলাকার পরিবেশ সুরক্ষা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করেন।

[৪] নিয়াংঝি শহরের উন্নয়নসংশ্লিষ্ট নানা বিষয় খতিয়ে দেখতে নিয়াংঝি সিটি প্ল্যানিং মিউজিয়ামসহ নানা এলাকা পরিদর্শন করেন চীনা প্রেসিডেন্ট। বৃহস্পতিবার তিনি নিয়াংঝি রেলস্টেশনে যান। সেখানে তিনি সিচুয়ান-তিব্বত রেলওয়ের কার্যক্রম পরিদর্শন করেন। এরপর তিনি ট্রেনে করে রাজধানী লাসার উদ্দেশে রওনা দেন।

[৫] তিব্বত চীনের একটি স্বায়ত্তশাসিত অঞ্চল। যদিও অনেকেই তিব্বতিদের চীনের অংশ মানতে রাজি নয়। এ কারণেই ১৯৬৯ সালে তিব্বতিরা দালাই লামার নেতৃত্বে চীনের বিরুদ্ধে স্বাধিকার আন্দোলন গড়ে তোলে। তিব্বতে জনরোষ সামাল দিতে সেখানে বিভিন্ন উন্নয়নকাজে হাত দেয় চীন। তবে দেশটির নির্বাসনে যাওয়া অনেক বাসিন্দার অভিযোগ, এই অঞ্চলে চীন সরকার ধর্মীয় দমনপীড়ন চালাচ্ছে এবং হাজার বছরের সংস্কৃতিকে ক্ষতিগ্রস্ত করছে।

সর্বাধিক পঠিত