প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] সুন্দরবনে বিষ দিয়ে মাছ শিকারের অভিযোগে আটক ১

সাইফুল ইসলাম: [২] সুন্দরবনের খালে বিষ দিয়ে মাছ শিকারের অভিযোগে এক চোরা শিকারীকে আটক করেছে বন বিভাগ। রবিবার (১১ জুলাই) সকালে পূর্ব সুন্দরবনের চাঁদপাই রেঞ্জের বরইতলা টহল ফাঁড়ির ভাড়ানির খাল থেকে কিটনাশকসহ তাকে আটক করা হয়।

[৩] চাঁদপাই রেঞ্জ কর্মকর্তা মোঃ এনামুল হক বলেন, রবিবার সকাল সাড়ে ৮ টার দিকে গোপন সংবাদেরভিত্তিতে চোরা মাছ শিকারী সলেমান ব্যাপারি (৪৫) ওই খালে বিষ দিয়ে মাছ শিকার করছে এমন অভিযোগ আসে বনরক্ষীদের কাছে। বনের জিউধারা স্টেশন অফিসার মোঃ জাহাঙ্গীর আলম নির্দেশনায় বনরক্ষীদের একটি চৌকস টিম ওই এলাকায় অভিযান পরিচালনা করেন। এসময় বন রক্ষীদের উপস্থিতি বুঝতে পেরে অন্যান্যরা পালিয়ে গেলেও মাছ ধরার বিষসহ হাতেনাতে সলেমানকে আটক করা হয়। আটক সলেমান ব্যাপারী ৫নং সুন্দরবন ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের বাসিন্ধা তাইজ উদ্দিন ব্যাপারীর ছেলে।

[৪] বরইতলা টহল ফাঁড়ির ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আঃ হান্নান বলেন, অভিযান পরিচালনা করে আসামীকে আটক করেছি কিন্ত তার সহযোগী আরও দু’জন ছিলো তাদের আটক করা সম্ভব হয়নি। আটক চোরা শিকারী সলেমান ব্যাপারির স্বীকাউক্তি মতে বৈদ্যমারী এলাকার গোলাম হওলাদারের ছেলে জাকির হাওলাদার (৩৭) ও জজ আলী ব্যাপারীর ছেলে কামাল ব্যাপারী (৪৩)সহ ৩জনের নামে মামলা দায়ের করা হয়েছে। তিনি আরো বলেন, আমাদের অভিযানের টের পেয়ে গহীন বনে পালিয়ে যায় অন্য আসামীরা, তাদের কাছ থেকে একটি নৌকা, ৪টি বিষের বোতল, বিষ দেয়া পাঁচ কেজি মাছ ও সাদা মাছ ধরার রোটেনন নামের কিটনাশক জব্দ করা হয়। আটক কৃত বিষ দিয়ে মাছ শিকারীকে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপরে নির্দেশে জিউধরা স্টেশনের নিয়ে আসা হয়। আটক সলেমান ব্যাপারি ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে বন আইনে মামলা দায়েরের শেষে বাগেরহাট আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

[৫] চাঁদপাই স্টেশন কর্মকর্তা ওবায়দুর রহমান ও বনরক্ষী মিজানুর রহমান বলেন, সুন্দরবন ও সুন্দরবনের বন্যপ্রাণী সংরক্ষন, মৎস্যসম্পদ রায় তাদের এই সকল অভিযান অব্যাহত আছে ও ভবিষ্যতেও অব্যাহত থাকবে।সুন্দরবনে বিষ দিয়ে মাছ শিকারের অভিযোগে আটক এক

[৬] শেখ সাইফুল ইসলাম কবির :সুন্দরবনের খালে বিষ দিয়ে মাছ শিকারের অভিযোগে এক চোরা শিকারীকে আটক করেছে বন বিভাগ। আজ রবিবার (১১ জুলাই) সকালে পূর্ব সুন্দরবনের চাঁদপাই রেঞ্জের বরইতলা টহল ফাঁড়ির ভাড়ানির খাল থেকে কিটনাশকসহ তাকে আটক করা হয়।

[৭] চাঁদপাই রেঞ্জ কর্মকর্তা মোঃ এনামুল হক বলেন, রবিবার সকাল সাড়ে ৮ টার দিকে গোপন সংবাদেরভিত্তিতে চোরা মাছ শিকারী সলেমান ব্যাপারি (৪৫) ওই খালে বিষ দিয়ে মাছ শিকার করছে এমন অভিযোগ আসে বনরক্ষীদের কাছে। বনের জিউধারা স্টেশন অফিসার মোঃ জাহাঙ্গীর আলম নির্দেশনায় বনরক্ষীদের একটি চৌকস টিম ওই এলাকায় অভিযান পরিচালনা করেন। এসময় বন রক্ষীদের উপস্থিতি বুঝতে পেরে অন্যান্যরা পালিয়ে গেলেও মাছ ধরার বিষসহ হাতেনাতে সলেমানকে আটক করা হয়। আটক সলেমান ব্যাপারী ৫নং সুন্দরবন ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের বাসিন্ধা তাইজ উদ্দিন ব্যাপারীর ছেলে।

[৭] বরইতলা টহল ফাঁড়ির ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আঃ হান্নান বলেন, অভিযান পরিচালনা করে আসামীকে আটক করেছি কিন্ত তার সহযোগী আরও দু’জন ছিলো তাদের আটক করা সম্ভব হয়নি। আটক চোরা শিকারী সলেমান ব্যাপারির স্বীকাউক্তি মতে বৈদ্যমারী এলাকার গোলাম হওলাদারের ছেলে জাকির হাওলাদার (৩৭) ও জজ আলী ব্যাপারীর ছেলে কামাল ব্যাপারী (৪৩)সহ ৩জনের নামে মামলা দায়ের করা হয়েছে। তিনি আরো বলেন, আমাদের অভিযানের টের পেয়ে গহীন বনে পালিয়ে যায় অন্য আসামীরা, তাদের কাছ থেকে একটি নৌকা, ৪টি বিষের বোতল, বিষ দেয়া পাঁচ কেজি মাছ ও সাদা মাছ ধরার রোটেনন নামের কিটনাশক জব্দ করা হয়। আটক কৃত বিষ দিয়ে মাছ শিকারীকে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপরে নির্দেশে জিউধরা স্টেশনের নিয়ে আসা হয়। আটক সলেমান ব্যাপারি ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে বন আইনে মামলা দায়েরের শেষে বাগেরহাট আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

[৮] চাঁদপাই স্টেশন কর্মকর্তা ওবায়দুর রহমান ও বনরক্ষী মিজানুর রহমান বলেন, সুন্দরবন ও সুন্দরবনের বন্যপ্রাণী সংরক্ষন, মৎস্যসম্পদ রায় তাদের এই সকল অভিযান অব্যাহত আছে ও ভবিষ্যতেও অব্যাহত থাকবে।

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত