শিরোনাম

প্রকাশিত : ০৯ জুলাই, ২০২১, ০২:৫৪ রাত
আপডেট : ০৯ জুলাই, ২০২১, ০২:৫৪ রাত

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

হাফ শাটার খুলে বেচাকেনা, যেন চোর-পুলিশ খেলা!

নিউজ ডেস্ক : ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে হাফ শাটার আর ফুল শাটার খুলে লকডাউনে অলি-গলিতে চলছে অবাধে বেচাকেনা। আর দেখা যাচ্ছে চোর-পুলিশ খেলা। প্রশাসন কর্তৃক করোনা বিস্তার রোধ করতে গ্রাম-গঞ্জে সকল ব্যবসা-প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখার নির্দেশ দেয়া হলেও থেমে নেই ব্যবসা-বাণিজ্য।

বৃহস্পতিবার (৮ জুলাই) সকাল ১০টার সময় কালীগঞ্জ শহর ঘুরে দেখা গেছে মধূগঞ্জবাজার, হাসপাতাল সড়ক, নিমতলাবাজার, নতুনবাজার, বারবাজার, মহিলা কলেজ রোডে অধিকাংশ দোকান, ব্যবসা-প্রতিষ্ঠানের হাফ শাটার আর ফুল শাটার খুলে ব্যবসা-বাণিজ্য করছেন ব্যবসায়ীরা। পুলিশের টহল গাড়ি ও ভ্রাম্যমাণ আদালত দেখলে দোকানের হাফ শাটার বন্ধ করে পালিয়ে যাচ্ছেন দোকানদাররা। পুলিশ চলে গেলে সুযোগ বুঝে হাফ শাটার খুলে বেচাকেনা শুরু করেন দোকানদার ও কর্মচারীরা- এমন অভিযোগ উঠেছে।

লকডাউনের সাত দিন ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে চলছে ঢিলেঢালাভাবে। নানা অজুহাতে বাইরে বের হচ্ছে মানুষ। ব্যবসা-প্রতিষ্ঠান বন্ধের নির্দেশ থাকলেও প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে ব্যবসা পরিচালনা করছেন অনেকে। নানা অজুহাতে সড়ক, মহাসড়ক, হাট-বাজারে বেড়েছে মানুষের উপস্থিতি। মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি।

গত ২৪ ঘণ্টায় কালীগঞ্জে ৩০ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। শহরের পাশাপাশি গ্রাম-গঞ্জে ছড়িয়ে পড়েছে করোনা সংক্রমণ। মানুষের উপস্থিতি বাড়ার কারণে সংক্রমণ হার বেড়েই চলেছে।

কালীগঞ্জ পরিবেশ সমিতির সভাপতি সদরউদ্দীন মিয়া বলেন, সমিতির পক্ষ থেকে সকল ব্যবসায়ীকে সরকারী বিধি-নিষেধ মেনে চলতে বলা হয়েছে।

কালীগঞ্জ থানা ওসি মাহফুজার রহমান বলেন, লকডাউন কার্যকরে শহরের বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালাচ্ছে সেনাবাহিনী, পুলিশ ও ম্যাজিস্ট্রেট। বসানো হয়েছে চেকপোস্ট। বাইরে বের হওয়া ব্যক্তিদের করা হচ্ছে জিজ্ঞাসাবাদ।

  • সর্বশেষ