শিরোনাম

প্রকাশিত : ০২ জুলাই, ২০২১, ০২:৪৮ দুপুর
আপডেট : ০২ জুলাই, ২০২১, ০২:৪৮ দুপুর

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

[১] লকডাউ‌নে য‌শো‌রে বে‌ড়ে‌ছে সব‌জির দাম

র‌হিদুল খান : [২] যশোরের বাজারে সবজি ও আলুর দাম আরও বেড়েছে। এরমধ্যে কেজিতে ২ টাকা বেড়েছে আলুর দাম। অপরিবর্তিত আছে চাল, ডাল, ভোজ্য তেল, মরিচ ও পেঁয়াজের দাম। বৃহস্পতিবার যশোর শহরের বড় বাজার ঘুরে এমন তথ্য পাওয়া গেছে।

[৩] বাজারে সবজির দাম বেশ বেড়েছে। কঠোর লকডাউন ও বর্ষার কারণে পণ্যের সরবরাহ অনেক কম ছিল। ক্রেতা সমাগম ছিল হাতে গোনা। সব মিলিয়ে সবজির দাম আগের চেয়ে কেজিতে ৫ টাকা থেকে ১০ টাকা বেড়েছে বলে জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। প্রতি কেজি বেগুন বিক্রি হয় ৬০ টাকা থেকে ৭০ টাকা। ২৫ টাকা থেকে ৩০ টাকা কেজি বিক্রি হয় কুমড়া। প্রতি কেজি কুশি বিক্রি হয় ৩০ টাকা। ৪০ টাকা কেজি বিক্রি হয় ধেঢ়স। প্রতি কেজি পটল বিক্রি হয় ৩০ টাকা। ৫০ টাকা কেজি বিক্রি হয় কচুরমুখি। প্রতি কেজি পেঁপে বিক্রি হয় ৩০ টাকা ৩৫ টাকা। ৮০ টাকা কেজি বিক্রি হয় উচ্ছে। প্রতি কেজি ডাটা বিক্রি হয় ২০ টাকা।

[৪] ২০ টাকা কেজি বিক্রি হয় পুঁইশাক। প্রতি কেজি টমেটো বিক্রি হয় ৭০ টাকা থেকে ৮০ টাকা। ৬০ টাকা কেজি বিক্রি হয় কচুরলতি। প্রতি কেজি কলা বিক্রি হয় ৩০ টাকা থেকে ৩৫ টাকা। ২৫ টাকা থেকে ৩০ টাকা কেজি বিক্রি হয় ধুন্দল। প্রতি কেজি ঝিঙে বিক্রি হয় থেকে ৩০ টাকা থেকে ৪০ টাকা। ৫০ টাকা থেকে ৬০ টাকা কেজি বিক্রি হয় কাঁকরোল। প্রতি কেজি বরবটি বিক্রি হয় ৫০ টাকা কেজি।

[৫] বাজারে প্রতি কেজি পেঁয়াজ বিক্রি হয় ৫০ টাকা। ৭০ টাকা থেকে ৮০ টাকা কেজি বিক্রি হয় রসুন। প্রতি কেজি আমদানিকৃত রসুন বিক্রি হয় ১শ’৩০ টাকা। ২২ টাকা কেজি বিক্রি হয় আলু। প্রতি কেজি মরিচ বিক্রি হয় ৪০ টাকা থেকে ৬০ টাকা।

[৬] বাজারে ভোজ্য তেলের দাম বাড়েনি। প্রতি কেজি সয়াবিন তেল বিক্রি হয় ১শ’৩৬ টাকা। ১শ’২০ টাকা থেকে ১শ’২৫ টাকা কেজি বিক্রি হয় সুপার পাম তেল। প্রতি কেজি পাম তেল বিক্রি হয় ১শ’২০ টাকা।

[৭] বাজারে ডালের দাম আগের মত আছে। প্রতি কেজি দেশি মসুর ডাল বিক্রি হয় ১শ’ টাকা থেকে ১শ’১০ টাকা। ৭০ টাকা থেকে ৭৫ টাকা কেজি বিক্রি হয় আমদানিকৃত মসুর ডাল। প্রতি কেজি ছোলার ডাল বিক্রি হয় ৭০ টাকা। ৪২ টাকা থেকে ৪৪ টাকা কেজি বিক্রি হয় বুটের ডাল। প্রতি কেজি মুগের ডাল বিক্রি হয় ১শ’ টাকা থেকে ১শ’৩৫ টাকা। ৬৫ টাকা থেকে ৭০ টাকা কেজি বিক্রি হয় কলাইয়ের ডাল।

[৮] বাজারে ঊর্ধ্বদামে অপরিবর্তিত আছে চালের দাম। প্রতি কেজি রত্না চাল বিক্রি হয় ৪৬ টাকা থেকে ৪৮ টাকা। ৪৮ টাকা থেকে ৫০ টাকা কেজি বিক্রি হয় বিআর-২৮ ও কাজল লতা চাল। প্রতি কেজি মিনিকেট চাল বিক্রি হয় ৫৪ টাকা থেকে ৫৬ টাকা। ৬০ টাকা থেকে ৬৫ টাকা কেজি বিক্রি হয় বাঁশমতি চাল।সম্পাদনা:অনন্যা আফরিন

 

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়