প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] কঠোর লকডাউনে জনশূণ্য খুলনার সড়ক

শরীফা খাতুন : [২] দেশে করোনা সংক্রমণ রোধ বৃহস্পতিবার সকাল ৬টা থেকে ৭ দিনের সরকারি ‘বিধি-নিষেধ বা কঠোর ‘লকডাউন’র প্রথম দিন চলছে। এই সাতদিন সব অফিস, যানবাহন ও দোকানপাট বন্ধ রেখে প্রজ্ঞাপন জারি করে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। সরকারি বিধিনিষেধ এবং মানুষের স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করতে সড়কে টহলে রয়েছে সেনা বাহিনী, পুলিশ, বিজিবি, র‌্যাব, কোস্টগার্ড ও আনসার সদস্যরা।

[৩] কঠোর লকডাউনের প্রথম দিনে খুলনায় চলছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কড়াকড়ি। শহরে প্রবেশ পথগুলোতে বসানো হয়েছে পুলিশের চেকপোস্ট। লকডাউন সর্বাত্মকভাবে পালনে বাধ্য করতে পাড়া-মহল্লা থেকে শুরু করে প্রধান সড়ক ও মোড়ে মোড়ে টহল দিচ্ছেন পুলিশসহ বিজিবি।

[৪] রাস্তায় পুলিশের টহল গাড়ি, পণ্যবাহী ট্রাক, রোগীবাহী অ্যাম্বুলেন্সসহ জরুরি প্রয়োজনে ব্যবহৃত সীমিত সংখ্যক যানবাহন ছাড়া তেমন যানবাহন চোখে পড়ছে না। বাইরের কেউ ঢুকতে পারবেন না, পাড়ার কেউ বেরও হতে না পারার জন্য বাঁশ দিয়ে অনেক সড়কের প্রবেশ পথ আটকে দিয়েছে পুলিশ।

[৫] সরেজমিনে দেখা গেছে, জনগণকে লকডাউন মানাতে যথেষ্ট তৎপর আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। পথে পথে দেওয়া হয়েছে ব্যারিকেড। জরুরি কাজে কেউ বের হলেও পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদের মুখোমুখি হতে হচ্ছে। কিছু কিছু অফিস খোলা থাকায় কড়াকড়ির মধ্যেও রাস্তায় মানুষের সীমিত চলাচল রয়েছে।

[৬] বিভাগীয় শহর খুলনার ব্যস্ততম সড়ক, গুরুত্বপুর্ণ মোড় ও জনবহুল এলাকাগুলো অনেকটা জনশূণ্য অবস্থা। বাইরে বের হয়ে প্রশাসনের কাছে নিজেদের অতিপ্রয়োজনীয়তা ব্যাখ্যা করতে দেখা গেছে কয়েকজনকে। ব্যস্ত সড়কগুলো এখন যেনো সুনশান নিরব।

[৭] জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মাহবুব হাসান বলেন, করোনার সংক্রমনের হার কমানোর জন্য মন্ত্রীপরিষদের পক্ষ থেকে যে প্রজ্ঞাপন জারি হয়েছে তা যেন প্রতিপালন হয় সে জন্য আমরা মাঠে কাজ করছি। জেলার ৯ থানায় ২৬টি চেক পোস্ট বসানো রয়েছে। খুলনার সঙ্গে সাতক্ষীরার সংযোগ চুকনগর, যশোরের সঙ্গে সংযোগ যুগনীপাশা ও বাগেরহাটের সঙ্গে সংযোগ কুদিরবটতলায় নিরাপত্তা চৌকি বসিয়ে যোগাযোগ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

[৮] এসপি আরও বলেন, আমরা সবার প্রতি অনুরোধ জানাচ্ছি তারা যেন অপ্রয়োজনে বের না হন। যদি কেউ বের হন তাহলে তার সাথে যেন পরিচয় পত্র থাকে। বা তিনি কেন বের হয়েছেন তার একটি যৌক্তিক কারণ যেন থাকে। সবাই স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলবেন। এর ব্যাপতায় হলে বিধি অনুযায়ী যেসব শাস্তি বা জরিমানা রয়েছে তার ব্যাপারে আমরা কঠোর হবো।

[৯] জেলা প্রশাসক মোঃ মনিরুজ্জামান তালুকদার বলেন, খুলনায় ২ প্লাটুন বিজিবি নেমেছে। সেনাবাহিনীর এক ব্যাটালিয়ন এসে মাঠে নামবে। ৯টি উপজেলার ইউএনও, এসিল্যান্ড আছেন তারা সেনাবাহিনীর সাথে ম্যাজিস্ট্রেরিয়াল দায়িত্ব পালন করবেন। এছাড়া মেট্রোপলিটন এড়িয়াতে আমাদের পর্যাপ্ত সংখ্যক ম্যাজিস্ট্রেট থাকবেন। সম্পাদনা: জেরিন আহমেদ

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত