প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মাত্র ৬ হাজার টাকার জন্যই খুন হন অভিনেত্রী কৃতিকা

নিউজ ডেস্ক: বিনোদন দুনিয়ার তারকা হওয়ায় স্বপ্ন দেখেন অনেকেই। তিনিও অনেক স্বপ্ন নিয়ে রঙিন এই জগতে পা রেখেছিলেন। হতে চেয়েছিলেন এই অঙ্গনের নামকরা একজন। সে জন্য প্রাণপন চেষ্টাও করেছিলেন। কিন্তু ভাগ্য তাকে ঠেলে দিয়েছিল করুণ পরিণতির দিকে। শেষ পর্যন্ত নির্মমভাবে খুন হয়ে পৃথিবীকেই বিদায় জানান ভারতীয় এই অভিনেত্রী। যার নাম কৃতিকা চৌধুরী।

অভিনেত্রীর একটাই দুর্ভাগ্যবতী যে মাত্র ৬ হাজার টাকার জন্য খুন হতে হয় তাকে। তার সেই কাহিনী ৪ বছর পরও ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ভুলেনি। সেই খবরটি নতুন করে সামনে এনেছে আনন্দবাজার পত্রিকা।

রোববার কৃতিকা চৌধুরীকে নিয়ে আনন্দবাজারের করা প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, ১৯৯০ সালে উত্তরাখণ্ডের হরিদ্বারে জন্ম কৃতিকা চৌধুরীর। পড়াশোনা করেন উত্তরপ্রদেশের চিত্রকূট ইন্টার কলেজ থেকে। বরাবরই পড়াশোনায় মনোযাগী ছিলেন তিনি। সে কারণে মা-বাবা ভেবেছিলেন তিনি পড়াশোনা নিয়েই থাকবেন। কিন্তু কৃতিকার লক্ষ্য ছিল বলিউড।

দিল্লিতে তার পরিচয় হয় বিজয় দ্বিবেদী নামে এক ব্যক্তির সঙ্গে। বলিউডে নামজাদা পরিচালকদের সঙ্গে ওঠাবসা রয়েছে বলে নিজের পরিচয় দিয়েছিলেন বিজয়। কৃতিকা বিশ্বাস করেছিলেন বিজয়কে। তার সঙ্গেই মুম্বাই চলে আসেন তিনি। ক্রমে তাদের বন্ধুত্ব গাঢ় হয়। এক সময় দুজন বিয়ে করে থাকতে শুরু করেন মুম্বাইয়ে।

ততদিনে ছোটখাটো মডেলিং শুরু করেছিলেন কৃতিকা। ২০১১ সালে ‘পরিচয়’ নামে একটি হিন্দি ধারাবাহিকেও কাজ করেন। ২০১৩ সালে কঙ্গনা রানাওয়াতের সিনেমা ‘রাজ্জো’তেও সুযোগ আসে তার। এর বাইরেও কয়েকটি ধারাবাহিকে সংক্ষিপ্ত চরিত্রে অভিনয় করছিলেন।

কিন্তু যে বিজয়ের ওপর ভরসা করে তিনি মুম্বাই এসেছিলেন, তার ক্যারিয়ারে সেই বিজয়ের কোনও অবদানই ছিল না। এ নিয়ে দু’জনের সম্পর্কেও চিড় ধরে। এরই মধ্যে ২০১৬ সালে আচমকা ফ্ল্যাটে ঢুকে বিজয়কে গ্রেফতার করে পুলিশ। বিজয়ের গ্রেফতারের পর তার কুকীর্তি সামনে আসে স্ত্রী কৃতিকার। তারকা হওয়ার স্বপ্ন নিয়ে মুম্বাই আসা নবাগতদের মিথ্যা প্রতিশ্রুতি দিয়ে টাকা হাতিয়ে নিতেন বিজয়। এ রকমই এক মহিলার থেকে ২২ লাখ টাকা নিয়েছিলেন। সেই অপরাধেই গ্রেফতার হন বিজয়।

এ ঘটনার পর বিজয়কে ডিভোর্স দেন কৃতিকা। তার পর মুম্বাইয়ের লোখান্ডওয়ালার একটি এক কামরায় ফ্ল্যাটে একাই থাকতে শুরু করেন। অবসাদগ্রস্ত কৃতিকা ক্রমে মাদকের নেশায় বুঁদ হয়ে পড়েন। ওই দুই জনের কাছ থেকে তিনি মাদক কিনতেন। কৃতিকার থেকে নাকি তারা ৬ হাজার টাকা পেতেন। বারবার বলার পরও যা কৃতিকা দিচ্ছিলেন না। শেষে ওই ৬ হাজার টাকার জন্যই খুন হন কৃতিকা।

ধারালো অস্ত্র নিয়ে কৃতিকার মাথায় বারবার আঘাত করে তাকে খুন করা হয়। অতিরিক্ত রক্তক্ষরণের ফলে মৃত্যু হয় তার। ২০১৭ সালে ১২ জুন ওই ফ্ল্যাট থেকেই তার পচাগলা দেহ উদ্ধার করে পুলিশ। দুর্গন্ধ পেয়ে যখন পুলিশ ওই ফ্ল্যাটে যায় তখনও তার পরিচয় ছিল অজানা। জেরার মুখে অপরাধীরা খুনের কথা স্বীকার করে। কিন্তু খুনের কারণ জেনে অবাক হয়ে যায় পুলিশ! মাত্র ৬ হাজার টাকার জন্য নিভে যায় একজন উঠতি অভিনেত্রীর জীবন প্রদীপ। সূত্র: ঢাকা পোস্ট

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত