প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] ৫ হাজারের অধিক রোগীকে করােনা সংক্রান্ত চিকিৎসা প্রদান করেছে ইমপেরিয়াল হাসপাতাল: ড. রবিউল হোসেন

রিয়াজুর রহমান : [২] ইমপেরিয়াল হাসপাতালের চেয়ারম্যান ড. রবিউল হোসেন আরো বলেন- চট্টগ্রামে অবস্থিত ৪০০ শয্যা বিশিষ্ট আর্ন্তজাতিক মানের ইমপেরিয়াল হাসপাতাল ২০১৯ সালের ১৫ জুন মাত্র শুরু করে এবং পরিকল্পিত কর্মকাণ্ড শুরুতেই অনাকাঙ্খিতভাবে বিশ্বে করােনা পরিস্থিতির দরুন অগ্রগতিতে বাধা প্রাপ্ত হয় ।

[৩] অপরদিকে প্রশিক্ষিত ২০০ জন ডাক্তার ও দক্ষ নার্স সরকারি চাকুরীতে যােগদান করে । ইমপেরিয়াল হাসপাতাল এই সংকটময় পরিস্থিতিকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে গ্রহণ করে রােগীদের উন্নতমানের চিকিৎসার লক্ষ্যে ৫০ শয্যা বিশিষ্ট স্থাপনা – ২৫ টি ক্রিটিকেল কেয়ার বেড এবং ২৫ টি আইসােলেশন কেবিন বিশিষ্ট একটি সম্পূর্ণ আলাদা কোভিড ইউনিট স্থাপন করে যেখানে ডাক্তার ও নার্স সমন্বয়ে গঠিত ৭০ জনের একটি টিম সার্বক্ষণিক চিকিৎসা সেবায় নিয়ােজিত আছে ।

[৪] চট্টগ্রাম শহরের বাইরে রােগীদের জন্য একটি মােৰাইল টিমের মাধ্যমে প্রােন্ত অঞ্চলে যেমন- মহেশখালী , কুতুবদিয়া , সন্দীপ , উখিয়া , ভাসানচর থেকে করােনা সেম্পল গ্রহণ ও চিকিৎসার ব্যবস্থা করে ইমপেরিয়াল হাসপাতাল একটি উল্লেখযােগ্য অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে।
রোববার (২০ জুন) দুপুরে চট্টগ্রাম নগরীতে অবস্হিত ইমপেরিয়াল হাসপাতালের হল রুমে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়কালে হাসপাতালের চেয়ারম্যান ড. রবিউল হোসেন এসব কথ বলেন।

[৫] তিনি বলেন- এই করোনা পরিস্থিতিতে ভারতের প্রখ্যাত হার্ট সার্জন ডা . দেবী শেটির প্রতিষ্ঠিত নারায়ানা হেলথের ডাক্তার , নার্স , টেকনিশিয়ান সমন্বয়ে গঠিত ৪০ জনের একটি টিম বিগত জানুয়ারী , ২০২১ থেকে ইমপেরিয়াল হাসপাতালে চিকিৎসা সেবার মাধ্যমে ২৬ টি ওপেন হার্ট সার্জারী , ২০০ টি এঞ্জিওপ্লাস্টি , ৩১ টি অন্যান্য হার্ট প্রসিডিউর সহ বহির্বিভাগে ৭০০০ এর অধিক রোগীর ছিকিৎসা সেবা দিয়েছে।

[৬] বাংলাদেশে শিশুদের গুনগত মান সম্পন্ন চিকিৎসা দেয়ার লক্ষে ইমপেরিয়াল হাসপাতাল অত্যাধুনিক যন্ত্রপাতি সমৃদ্ধ একটি পূর্ণাঙ্গ শিশু রােগ বিভাগ স্থাপন করেছে । এছাড়া চট্টগ্রাম শহরের বাইরে রােগীদের জন্য একটি মােৰাইল টিমের মাধ্যমে প্রত্যন্ত অঞ্চলে যেমন- মহেশখালী , কুতুবদিয়া , সন্দীপ , উখিয়া , ভাসানচর থেকে করােনা সেম্পল গ্রহণ ও চিকিৎসার ব্যবস্থা করে ইমপেরিয়াল হাসপাতাল একটি উল্লেখযােগ্য অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে।

[৭] ড. রবিউল হোসেন আরো বলেন, ক্যান্সার রােগ নির্ণয়ে বায়োপসি ও হিস্টোপ্যাথোলজি বিভাগ অত্যন্ত সফলতার সাথে চট্টগ্রামে অনন্য হয়ে উঠেছে । এমনকি অপারেশন চলাকালীন তাৎক্ষণিক ক্যান্সার নির্ণয়ের জন্য ফ্রোজেন সেকশানে ব্যবস্থা আছে যা চট্টগ্রামে ইমপেরিয়াল হাসপাতাল ই করে থাকে ।

[৮] চট্টগ্রামে সড়ক দূর্ঘটনাসহ যে কোন দূঘটর্নায় রোগীদের চিকিৎসা সম্মিলিত ভাবে একই হাসপাতালের ছাদে নীচে করার ব্যবস্থা নেই । তাই হাসপাতালে ৫ টি ডিসিপ্লিন যেমন জেনারেল সার্জারী , নিউরাে সার্জারী , অর্থোপেডিক সার্জারী , প্লাস্টিক সার্জাৱী এবং ম্যাক্সিলাে ফেসিয়াল সার্জারীর সমন্বয়ে একটি টিম নিয়ে ট্রমা সেন্টার ” গঠনের মাধ্যমে একই ছাদের নিচে রােগীদের চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

সর্বাধিক পঠিত